Home /News /west-midnapore /
West Midnapore News:গৃহবধূ খুনের ঘটনায় পরিবারের পাঁচ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

West Midnapore News:গৃহবধূ খুনের ঘটনায় পরিবারের পাঁচ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

সাজাপ্রাপ্ত

সাজাপ্রাপ্ত পরিবার

West Midnapore News: রুমা রায়কে ঘুমন্ত অবস্থায় মুখে বালিশ চাপা দিয়ে রুমার স্বামী, শাশুড়ি , ননদ,ভাসুর ও তার স্ত্রী খুন করে। ঘাটাল আদালতে দীর্ঘ ন বছর আইনী লড়াইয়ের পর এই পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল ঘাটাল মহকুমা আদালত।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর: পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর থানা এলাকায় ২০১৩ সালে একটি খুনের ঘটনায় পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল ঘাটাল মহকুমা আদালত। ২০১৩ সালের ৩০ আগস্ট দাসপুরের বাসিন্দা নির্মল রায় তার পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে স্ত্রী রুমা রায়কে ঘুমন্ত অবস্থায় মুখে বালিশ চাপা দিয়ে খুন করে বলে অভিযোগ ওঠে। রুমা রায়ের স্বামী নির্মল রায়, শাশুড়ি প্রভাবতী রায়, ননদ মলিনা সিংহ,ভাসুর প্রদ্যুৎ রায় ও প্রদ্যুৎ রায়ের স্ত্রী তপতী রায় পরিবারের এই পাঁচজন সদস্যের বিরুদ্ধে রুমাকে খুন করার অভিযোগ দায়ের হয় দাসপুর থানায়।

    অভিযোগ পেয়ে দাসপুর থানার পুলিশ মৃত গৃহবধূর স্বামী শাশুড়ি সহ মোট পাঁচজনকে গ্রেফতার করে এবং ঘাটাল মহকুমা আদালতে তোলা হলে তিন মাস পর জামিনে মুক্তি পেয়ে যায়। পরে পুলিশ তদন্ত শুরু করে এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে।শুরু হয় ঘাটাল আদালতে বিচার প্রক্রিয়া। দীর্ঘ ৯ বছর পর মঙ্গলবার দাসপুরের গৃহবধূ রুমা রায়কে খুন করার অপরাধে স্বামী নির্মল রায় ও শাশুড়ি প্রভাবতী রায় সহ শ্বশুরবাড়ির মোট ৫ জন সদস্যের যাবজ্জীবন সাজা ঘোষণা করল ঘাটাল মহকুমা আদালত। এছাড়াও দশ হাজার টাকা করে জরিমানা ঘোষণা করা হয়েছে আদালতের তরফে।

    মৃত গৃহবধূর রুমা রায়ের বাবা সুকুমার রায় ভাই শুভন রায় বলেন, বিয়ের পর থেকেই রুমার উপর অত্যাচার করত স্বামীসহ তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন, ২০১৩ সালে ৩০ আগস্ট রুমার মুখে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করে রুমার স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির পাঁচজন সদস্য মিলে, আমরা সেই অভিযোগ করেছিলাম দাসপুর থানা, অভিযোগ প্রমাণিত হয়, সেই মত ওই পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে, এতে রুমার আত্মার শান্তি পাবে, খুনিরা শাস্তি পেয়েছে খুব ভালো লাগছে রুমার বাপের বাড়ি সদস্যদের।

    Partha Mukherjee 

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Bangla News, Midnapore

    পরবর্তী খবর