Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: একটানা ২৫ দিন রক্তদান শিবির! ৪০০ লিটার রক্ত সংগ্রহ মেদিনীপুর পুরসভার

Paschim Medinipur: একটানা ২৫ দিন রক্তদান শিবির! ৪০০ লিটার রক্ত সংগ্রহ মেদিনীপুর পুরসভার

title=

গ্রীষ্মকালীন রক্তের চাহিদা মেটাতে মেদিনীপুর পৌরসভার উদ্যোগে এবং মেদিনীপুর জেলা ভলান্টারি ব্লাড ডোনার ফোরাম এর সহযোগিতায় মেদিনীপুর পৌরসভার ২৫ টি ওয়ার্ডে গত পয়লা জুন থেকে শুরু হয়েছে ধারাবাহিক রক্তদান শিবির।

  • Share this:

    পশ্চিম মেদিনীপুর : গ্রীষ্মকালীন রক্তের চাহিদা মেটাতে মেদিনীপুর পৌরসভার উদ্যোগে এবং মেদিনীপুর জেলা ভলান্টারি ব্লাড ডোনার ফোরাম এর সহযোগিতায় মেদিনীপুর পৌরসভার ২৫ টি ওয়ার্ডে গত পয়লা জুন থেকে শুরু হয়েছে ধারাবাহিক রক্তদান শিবির। শুক্রবার ২৪ শে জুন ছিল মেদিনীপুর পৌরসভার অন্তর্গত ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে রক্তদান শিবির কর্মসূচি। শনিবার ২৫ জুন শেষ হয় ২৫ দিন ব্যাপী এই রক্তদান শিবিরের বিশেষ কর্মসূচি। এ পর্যন্ত প্রায় দেড় হাজারেরও বেশি মানুষ ২৫ দিনে এক থেকে ২৫ জুন অনুষ্ঠিত ক্যাম্পে রক্ত দান করেছেন। রক্তদাতা থেকে চিকিৎসক সকলেই এই অভিনব উদ্যোগের জন্য মেদিনীপুর বিধানসভার বিধায়িকা জুন মালিয়া এবং মেদিনীপুর পৌরসভার পৌরপ্রধান সৌমেন খানের ভুয়সী প্রশংসা করেন। মেদিনীপুরের অন্যতম চিকিৎসক ডাঃ গোলক মাজি বলেন, গোটা ভারতবর্ষে এ ধরনের ক্যাম্প হয়েছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। রক্ত সংকট মেটাতে বিভিন্ন সংগঠনকে এভাবেই রক্তদানের কর্মসূচি করার জন্য এগিয়ে আসা উচিত।

    প্রসঙ্গত এক জুন মেদিনীপুরের ১ নং ওয়ার্ড এলাকায় রক্তদান শিবিরের উদ্বোধন করেছিলেন বিধায়িকা জুন মালিয়া। আজ শনিবার ২৫ শে জুন মেদিনীপুর পুরসভার ২৫ নং ওয়ার্ড এলাকায় ২৫ তম রক্তদান শিবিরের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটল মেদিনীপুর পুরসভার ওয়ার্ড ভিত্তিক রক্তদান কর্মসূচির। শনিবার শেষ দিনে ১০০ জনের রক্ত সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও ব্লাড ব্যাংকের পরিকাঠামোর অভাবে ৩০ জনের রক্ত সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। এদিন ৭০ জনের রক্ত সংগ্রহ করা হয়।

    আরও পড়ুনঃ ঝাড়গ্রামে হাতির তাণ্ডব অব্যাহত! আতঙ্কে গ্রামবাসীরা

    ২৫ দিন ব্যাপী রক্তদান কর্মসূচির শেষে মেদিনীপুর পৌরসভার পুরপ্রধান সৌমেন খান বলেন, ২৫ দিনে প্রায় ২০০০ বোতল অর্থাৎ প্রায় ৪০০ লিটার রক্ত সংগ্রহ করেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর, খড়্গপুর, ঝাড়গ্রামের ব্লাড ব্যাংক গুলি। এই কর্মসূচিতে প্রায় এক হাজারের বেশি মহিলা রক্তদান করেছেন বলেও জানিয়েছেন সৌমেন খান।

    আরও পড়ুনঃ সুদুর সাইবেরিয়া থেকে গ্রামে আসে পরিযায়ী পাখির দল, বয়ে নিয়ে আসে বর্ষার বার্তা

    অন্যদিকে মেদিনীপুরের অন্যতম চিকিৎসক ডাঃ গোলক বিহারী মাজি জানান, এই ধরনের রক্তদানের উদ্যোগ গোটা ভারতবর্ষে এর আগে কোথায় হয়েছে বলে জানা নেই। রাজ্য তথা গোটা দেশের কাছে নজির স্থাপন করেছে আমাদের মেদিনীপুর পৌরসভা এই এতো বড় আকারে, এতো বড় সংখ্যায় রক্তদান কর্মসূচি করে। মহিলা রক্তদাতারাও মেদিনীপুর পৌরসভার এই মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

    Partha Mukherjee
    First published:

    Tags: Medinipur, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর