Home /News /west-bardhaman /
West Bardhaman News: মানবিকতার নজির! পথ ভোলা বৃদ্ধাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিল পুলিশ

West Bardhaman News: মানবিকতার নজির! পথ ভোলা বৃদ্ধাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিল পুলিশ

পথভোলা বৃদ্ধা ছবি গরাইয়ের সঙ্গে পুলিশকর্মী মহম্মদ আলি।

পথভোলা বৃদ্ধা ছবি গরাইয়ের সঙ্গে পুলিশকর্মী মহম্মদ আলি।

ছেলের বাড়ি থেকে মেয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে রাস্তা হারিয়ে ছিলেন এক বৃদ্ধা। অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন ইসমাইল রোড এলাকায়।

  • Share this:

    #আসানসোল: জেলা পুলিশের মানবিক মুখ। এক পথ ভোলা বৃদ্ধাকে পুলিশ ফিরিয়ে দিল তাঁর পরিবারের কাছে। রীতিমতো যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তাঁর বাড়ির ঠিকানা খুঁজে, সেখানে পথ ভোলা বৃদ্ধাকে পৌঁছে দিয়ে এসেছেন পুলিশকর্মী। এমনই পদক্ষেপ করতে দেখা গিয়েছে সালানপুর থানার এক পুলিশ কর্মীকে।

    ছেলের বাড়ি থেকে মেয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে রাস্তা হারিয়েছিলেন এক বৃদ্ধা। অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন ইসমাইল রোড এলাকায়। এলাকার বাসিন্দারা প্রাথমিকভাবে ওই বৃদ্ধাকে খাবার এবং জল দিয়ে কিছুটা সুস্থ করেন। তবে অসংলগ্ন আচরণ করছিলেন তিনি। কথাবার্তা বলতে পারছিলেন না। তাই স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। তারপর এক পুলিশ কর্মী ওই বৃদ্ধার ঠিকানা খুঁজে, তাঁকে বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসেন।

    আরও পড়ুন- নজিরবিহীন! কর্কট রোগীদের মুখে হাসি ফোটাতে হেয়ার ডোনেশন ক্যাম্প দুর্গাপুরে!

    জানা গিয়েছে, এদিন ছেলের বাড়ি থেকে মেয়ের বাড়ি আসার পথে, রাস্তা হারিয়ে ফেললেন এক বৃদ্ধা। হীরাপুর থানার অন্তর্গত ইসমাইল এলাকায় ওই বৃদ্ধা অসুস্থতা অনুভব করেন। বিষয়টি নজরে আসে স্থানীয় বাসিন্দাদের। তারা প্রাথমিকভাবে বৃদ্ধাকে খাবার ও জল দেন। একটু সুস্থ হওয়ার পর ওই বৃদ্ধার অগোছালো মন্তব্য শুনে খবর দেওয়া হয় হীরাপুর থানায়।

    আরও পড়ুন- আসানসোলে আয়োজিত হল সাঁওতালি সিনে অ্যাওয়ার্ড; মধ্যমণি শত্রুঘ্ন সিনহা

    খবর পাওয়া মাত্রই, কালবিলম্ব না করে হীরাপুর থানার পিসিআর ভ্যান পৌঁছে যায় ওই অঞ্চলে। পিসিআর ভ্যানে দায়িত্বে থাকা সাব ইন্সপেক্টর মহম্মদ আলী ওই বৃদ্ধাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তখন তিনি বুঝতে পারেন, ওই বৃদ্ধা স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা। কিন্তু বৃদ্ধার বয়ান অনুযায়ী জানা যায়, তিনি আসানসোল দক্ষিণ থানার অন্তর্গত এলাকার বাসিন্দা। তাঁর নাম ছবি গড়াই। বৃদ্ধা পুলিশকে জানান, আসানসোল দক্ষিণ থানার অন্তর্গত এলাকার তাঁতি পাড়ার বাসিন্দা তিনি।

    সব জেনে বুঝে ওই কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিক বৃদ্ধাকে তাঁর ঠিকানায় পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। অসহায় বৃদ্ধাকে ছেড়ে না গিয়ে তিনি শুরু করেন খোঁজখবর। খোঁজখবর করে ওই বৃদ্ধার ঠিকানা খুঁজে বের করতে সচেষ্ট হন কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী। তখনই এক পথচারী ওই মহিলাকে শনাক্ত করেন। এরপর পথচারী কর্তব্যরত পুলিশকর্মীকে জানান, ওই বৃদ্ধাকে তিনি হীরাপুর থানার অন্তর্গত ইসমাইল মানব সরণির এক ব্যক্তির বাড়িতে দেখেছেন।

    কিন্তু ওই রাস্তা সংকীর্ণ হওয়ায়, সেখানে পুলিশ গাড়ি পৌঁছনো সম্ভব ছিল না। তাই আলিবাবু স্থানীয় এক বাইক আরোহীকে অনুরোধ করেন বৃদ্ধাকে নিয়ে ওই এলাকায় যাওয়ার জন্য। তিনি নিজেও ওই বাইক আরোহীর সঙ্গে আসেন মানব সরণি এলাকায়। তারপর অবশেষে মানব সরণি নামে ওই গলির ভিতরে হন্যে হয়ে খুঁজে বৃদ্ধার মেয়ের বাড়ির সন্ধান পান তিনি। পুলিশ জানতে পারেন, মেয়ের নাম মালা গড়াই। পরে ওই বৃদ্ধাকে নিয়ে গিয়ে তাঁর মেয়ের হাতে তিনি তুলে দেন। এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

    এই বিষয়ে বৃদ্ধার মেয়ে মালা গড়াই জানিয়েছেন, তাঁর মা মানসিকভাবে সামান্য দুর্বল হয়ে পড়েছেন। তিনি কিছু মনে রাখতে পারছেন না। তবে এদিনের হীরাপুর থানা এবং কর্তব্যরত পুলিশ কর্মী মহম্মদ আলির প্রশংসা করেন তিনি। বলেন, পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া এই সহযোগিতা, তিনি জীবনে ভুলবেন না।

    Nayan Ghosh

    Published by:Samarpita Banerjee
    First published:

    Tags: Asansol, Police, Salanpur, West Bardhaman

    পরবর্তী খবর