Home /News /west-bardhaman /
Rail Ticket Reservation System Change|| ট্রেন ছেড়ে দিলেও এ বার মিলবে সংরক্ষিত টিকিট, বিরাট সিদ্ধান্ত পূর্ব রেলের

Rail Ticket Reservation System Change|| ট্রেন ছেড়ে দিলেও এ বার মিলবে সংরক্ষিত টিকিট, বিরাট সিদ্ধান্ত পূর্ব রেলের

Eastern railway changed ticket reservation system: রেলের তরফ থেকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিযুক্ত যে মেশিন আনা হয়েছে, তার নাম হ্যান্ড হেল্ড টার্মিনাল বা এইচ এইচ টি। এই মেশিনটির সাহায্যে সংরক্ষিত আসনগুলির যাত্রীদের টিকিট পরীক্ষা করতে পারবেন টিটিইরা।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    #আসানসোল: সংরক্ষিত কামরায় টিকিটের ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন আনল পূর্ব রেল। এ বার টিকিট পরীক্ষার জন্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তি চালু করা হল রেলের পক্ষ থেকে। আসানসোল ডিভিশনের রেলের পক্ষ থেকে অত্যাধুনিক টিকিট পরীক্ষার ব্যবস্থা চালু করা হল রেলের উদ্যোগে। ট্রাভেলিং টিকিট এক্সামিনারদের এ বার থেকে আর ঘুরে ঘুরে টিকিট পরীক্ষা করতে হবে না, অথবা চার্ট নিয়ে ঘুরতে হবে না সংরক্ষিত কামরায়। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মেশিনের সাহায্যে টিকিট পরীক্ষা করতে পারবেন এক্সামিনাররা।

    জানা গিয়েছে, রেলের তরফ থেকে যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিযুক্ত মেশিন আনা হয়েছে, তার নাম হ্যান্ড হেল্ড টার্মিনাল বা এইচএইচটি। এই মেশিনের সাহায্যে সংরক্ষিত আসনগুলির যাত্রীদের টিকিট পরীক্ষা করতে পারবেন টিটিইরা। মেশিনগুলি নিয়ে ট্রেনের সংরক্ষিত কামরাগুলির টিকিট পরীক্ষা করবেন তারা। এ ক্ষেত্রে কোনও চার্টের প্রয়োজন হবে না টিটিইদের। মেশিনে পিএনআর নম্বর দিলেই ওই কামরার যাত্রীদের সমস্ত টিকিট সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য চলে আসবে টিকিট পরীক্ষকের কাছ। তা ছাড়া ওই মেশিন ব্যবহারের ফলে টিকিট বুকিংয়ের কাজ আরও স্বচ্ছ হবে বলে মনে করছেন রেলের শীর্ষ আধিকারিকরা।

    আরও পড়ুন: নিউটাউনে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরাট বাগানবাড়ির হদিশ! কী চলত সেখানে? তদন্তে ইডি কর্তারা

    কিন্তু, কীভাবে এই মেশিন কাজ করবে? কেন এইচএসটি মেশিন ব্যবহারের ফলে স্বচ্ছতা আসার কথা বলছেন রেলের আধিকারিকরা? রেল সূত্রে খবর, এই এইচএইচটি মেশিন ব্যবহারের ফলে বাতিল হয়ে যাওয়ার টিকিটের সিট পুনরায় অন্য কোনও যাত্রীর জন্য বুকিং এর ক্ষেত্রে অনেক বেশি স্বচ্ছতা আসবে। জানা গিয়েছে, সংরক্ষিত কামরায় পিএনআর নম্বরের সাহায্যে যাত্রীর টিকিটের সমস্ত তথ্য পাবেন পরীক্ষকরা। যদি সিট বুকিং করেও কেউ অনুপস্থিত থাকেন, তাহলে সেই সিটের তথ্য এই মেশিনের সাহায্যে সরাসরি পূর্ব রেলের দিল্লি সদর দফতর অথবা ফেয়ারলি প্লেসে গিয়ে পৌঁছবে। এই মেশিনগুলি পূর্ব রেলের সদর দফতরগুলির সঙ্গে সরাসরি সংযুক্ত থাকবে।

    আরও পড়ুন: রাত বাড়তেই অর্পিতার আজব আবদার! ডিনারের লিস্ট শুনে তাজ্জব ইডি কর্তারা

    উদাহরণস্বরূপ তারা বলেছেন, যদি কোনও যাত্রী আসানসোল থেকে টিকিট কাটেন, কিন্তু অনুপস্থিত থাকেন, তাহলে সেই টিকিটের তথ্য রেলের সদর দফতরে পৌঁছে যাবে এইচএইচটি মেশিনের মাধ্যমে। আবার যদি কোনও যাত্রী বর্ধমান থেকে ট্রেনে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার পরেও টিকিট বুকিং করতে চান, তাহলে সেই সিট বুকিং করতে পারবেন তৎক্ষণাৎ। যে সুবিধা এতদিন স্টেশনে পাওয়া যেত না। অনেক ক্ষেত্রেই এই সমস্ত অনুপস্থিত সিটগুলি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠত। এবার তা সরাসরি সদর দফতরের সঙ্গে সংযুক্ত থাকায়, দুর্নীতির আশঙ্কা অনেকটাই কমবে বলে মনে করছেন তারা। স্বাভাবিকভাবেই তারা বলছেন, হ্যান্ড হেল্ড টার্মিনাল মেশিন ব্যবহার করার ফলে টিকিট বুকিংয়ে যেমন স্বচ্ছতা আসবে, তেমনভাবেই দুর্নীতির আশঙ্কা অনেক কমবে।

    এই বিষয়ে, আসানসোল ডিভিশনের রেলের সিনিয়র ডিভিশনাল কমার্শিয়াল সুপারিনটেনডেন্ট শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমাদের ডিভিশনে আমরা প্রথমে অগ্নিবীনা এবং ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস সংরক্ষিত কামরায় টিটিইদের কাছে এই যন্ত্র তুলে দিয়েছি। এমন ২৭ টি যন্ত্র আমাদের ডিভিশনে এসে পৌঁছেছে। যে দুটি ট্রেনে আমরা এটা চালু করেছি, সেই দুটি ট্রেন পূর্ব রেলের মধ্যেই চলাচল করছে। তিনি বলেন, আর টিটিই দের ট্রেনে কাগজের চার্ট নিয়ে উঠতে হবে না। মেশিনেই কাজ হবে। সেন্ট্রাল টার্মিনালের সঙ্গে মেশিনগুলির তথ্য যুক্ত করা আছে। সবচেয়ে বড় কথা, ধরুন হাওড়া থেকে অগ্নিবীণা ছেড়েছে আসানসোলের উদ্দেশ্য। ইতিমধ্যে বর্ধমান থেকে কেউ টিকিট কাটতে গিয়ে দেখলেন যে ওই ট্রেনের একজন সংরক্ষিত যাত্রী আসেননি। তাহলে তার ওই টিকিটটি সংরক্ষণ হয়ে যাবে সেখানেই। যা এতদিন স্টেশন থেকে সম্ভব হত না।

    উল্লেখ্য, পূর্ব রেল আধুনিকীকরণের ক্ষেত্রে একাধিক পদক্ষেপ করছে। যাত্রী পরিষেবা আরও ভালো করতে নানান রকম উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে রেলের তরফ থেকে। পাশাপাশি রেলের নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হচ্ছে। অন্যদিকে আসানসোল স্টেশনকে বিশ্বমানের গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া দুর্গাপুর সহ আসানসোল ডিভিশনের অন্যান্য স্টেশনগুলিরও উন্নতি করণের কাজ চলছে। ট্রেনের কামরা পরিস্কার থেকে শুরু করে নিরাপত্তা, সমস্ত বিষয়েই আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করছে পূর্ব রেল। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে নতুন এই হ্যান্ড হেল্ড টার্মিনাল মেশিন পূর্ব রেলকে আরও একধাপ এড়িয়ে দিল বলেই মনে করছেন রেলের আধিকারিকরা। তাদের আশা, এই নতুন মেশিন যেমন দুর্নীতির হাত থেকে রক্ষা করে পূর্ব রেলকে লাভের দিশা দেখাবে, তেমনভাবেই যাত্রী পরিষেবা আরও উন্নত হবে টিকিট বুকিংয়ের ক্ষেত্রে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Indian Railway, IRCTC

    পরবর্তী খবর