• Home
  • »
  • News
  • »
  • technology
  • »
  • Phishing Email-এ ক্লিক করলেই হ্যাকারের হাতে ফোনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, জানুন এই সমস্যা থেকে বাঁচার উপায়

Phishing Email-এ ক্লিক করলেই হ্যাকারের হাতে ফোনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, জানুন এই সমস্যা থেকে বাঁচার উপায়

Phishing Email: হ্যাকারদের পাঠানো ফিশিং ই-মেল (Phishing Email) থাকা লিঙ্কে ক্লিক করলেই ঘটে যেতে পারে বিপদ।

Phishing Email: হ্যাকারদের পাঠানো ফিশিং ই-মেল (Phishing Email) থাকা লিঙ্কে ক্লিক করলেই ঘটে যেতে পারে বিপদ।

Phishing Email: হ্যাকারদের পাঠানো ফিশিং ই-মেল (Phishing Email) থাকা লিঙ্কে ক্লিক করলেই ঘটে যেতে পারে বিপদ।

  • Share this:

    #কলকাতা: বর্তমানে হ্যাকারদের (Hackers) প্রথম পছন্দ হল স্মার্টফোন। কারণ এটি হ্যাক করে সহজেই হাতিয়ে নেওয়া যায় ব্যাঙ্কের টাকা। এ ছাড়াও হ্যাকাররা ফোন হ্যাক করে হাতিয়ে নিতে পারে বিভিন্ন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। হ্যাকাররা বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকারক ফিশিং ই-মেল (Phishing Email) পাঠিয়ে ফোন হ্যাক করার চেষ্টা করে। আর হ্যাকারদের পাঠানো সেই ই-মেলে থাকা লিঙ্কে ক্লিক করলেই ঘটে যেতে পারে বিপদ। এই ফিশিং মেল (Phishing Email)-এর মাধ্যমে হ্যাকাররা অনেকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সরাসরি তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের থেকে। কারণ সেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফোনের বিভিন্ন অ্যাপের সঙ্গে লিঙ্ক করা থাকে। বর্তমানে ফোনের মাধ্যমেই ঘরে বসে হয়ে যাচ্ছে সব কাজকর্ম। এর জন্যই হ্যাকারদের মূল টার্গেট হল, ফোন। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, এই ফিশিং মেল আসলে কী এবং কী ভাবে এর থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখা সম্ভব।

    ফিশিং (Phishing) - Google জানিয়েছে যে, ফিশিং হল হ্যাকিং করার একটি পদ্ধতি। বর্তমানে ওয়ার্ক ফ্রম হোম এবং অনলাইন ক্লাসের ফলে প্রায় সকলেই তাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য অনলাইনের মাধ্যমেই শেয়ার করে। এই ফিশিং অ্যাটাকের মাধ্যমে সেই গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি করার চেষ্টা করা হয়। এটি করা হয় মূলত ই-মেল (Phishing Email), অ্যাডস অথবা বিভিন্ন ধরনের সাইটের মাধ্যমে। ইউজাররা (Hackers) প্রতিনিয়ত যে সব সাইট ব্যবহার করেন, এ ক্ষেত্রে হ্যাকাররা ঠিক তেমনই দেখতে বিভিন্ন ধরনের অন্যান্য সাইট ব্যবহার করে থাকে। এর ফলে ইউজাররা বিভ্রান্ত হয়ে হ্যাকারদের ফাঁদে পা দেয়।

    এই ধরনের ফিশিং মেল থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখার একটি সহজ উপায় হল, নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ডেটা অন্য কারওর সঙ্গে শেয়ার করা চলবেনা। যেমন --

    - ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড, পরিবর্তিত পাসওয়ার্ড।

    - সোশ্যাল সিকিউরিটি স্কিম নম্বর।

    - পিন।

    - ডেবিট কার্ড এবং ক্রেডিট কার্ড নম্বর।

    - নিজেদের জন্ম তারিখ।

    - নিজেদের মায়েদের মেডেন নাম।

    হ্যাকারদের (Hackers) হাত থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখার জন্য সবার আগে একটি কথা মনে রাখতে হবে যে, কোনও ব্যাঙ্ক, সংস্থা, কোম্পানি, অনলাইন অ্যাপ ইত্যাদি থেকে ইউজারদের এই সকল ডেটা জানতে চাওয়া হয় না। তাই সবার আগে এই ধরনের কোনও ফোন, মেসেজ অথবা মেল এলে তা ডিলিট করে দিতে হবে। এ ছাড়াও অজানা কোনও সোর্স থেকে আসা মেসেজ এবং মেলের লিঙ্কে ক্লিক করা যাবেনা। এই ধরনের কোনও ফিশিং মেল (Phishing Email) এলে তা না-খুলে সবার আগে সেটি ডিলিট করতে হবে।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: