Home /News /technology /
5G Services: 4G না 5G কোন ধরনের স্মার্টফোন কিনলে পয়সা উসুল! দেখে নিন এক নজরে

5G Services: 4G না 5G কোন ধরনের স্মার্টফোন কিনলে পয়সা উসুল! দেখে নিন এক নজরে

এখনই কি 5G ফোন কিনে ফেলা উচিত? নাকি 4G কানেক্টিভিটি যুক্ত ফোন ব্যবহার করা যায় আরও বেশ কিছু দিন?

  • Share this:

    ভারতে 5G নেটওয়ার্ক এখনও চালু হয়নি। মনে করা হচ্ছে আগামী মাসে এ দেশে 5G স্পেকট্রাম নিলাম করা হতে পারে। কিন্তু ইতিমধ্যেই এমন পরিকাঠামো ভারত তৈরি করে ফেলেছে যেখানে যে কোনও মানুষ সহজেই একটি 5G নেটওয়ার্কে চলতে সক্ষম স্মার্টফোন কিনতে পারবেন। দামও প্রায় নাগালের মধ্যেই রাখা হয়েছে।

    বাজারে রয়েছে OnePlus, Redmi, Xiaomi, Realme এবং Samsung-এর মতো ব্র্যান্ডের নানা ধরনের স্মার্টফোন। নতুন করে 5G স্মার্টফোন তারা বাজারে নিয়ে আসছে। বিভিন্ন রেঞ্জের ফোন রয়েছে। আর তাই সারা বিশ্বের সঙ্গে এ দেশেও 5G স্মার্টফোন হাতে পাওয়ার খেয়ালে মেতে উঠেছে নতুন প্রজন্ম। সঙ্গে রয়েছে নতুন ও আধুনিকতর প্রযুক্তির হাতছানি, ফিচারের প্রলোভন।

    কিন্তু এখনই কি 5G ফোন কিনে ফেলা উচিত? নাকি 4G কানেক্টিভিটি যুক্ত ফোন ব্যবহার করা যায় আরও বেশ কিছু দিন? সে সব প্রশ্নের উত্তর খুঁজে দেখা যাক।

    আরও পড়ুন - সাবধান! বন্ধ হয়ে যেতে পারে আপনার Netflix অ্যাকাউন্ট! কেন জানুন

    5G স্মার্টফোনে কোন কোন বিশেষত্ব রয়েছে?

    প্রথমেই জানা দরকার, 5G স্মার্টফোনে কী আছে! 5G স্মার্টফোনের মূল বিশেষত্বই রয়েছে তার চিপসেটে। এই ফোনগুলিতে হয় Qualcomm, না হলে MediaTek দ্বারা প্রস্তুত বিল্ট-ইন (Built-in) চিপসেট রয়েছে। এই দুই চিপসেট নির্মাতা সংস্থাই বিল্ট-ইন (Built-in) 5G মোডেম-সহ SoC তৈরি করেছে মোবাইল ডিভাইসের জন্য। আর সেই পদ্ধতি মোটেও সুলভ নয়। মোবাইল নির্মাতা সংস্থাগুলি এই চিপসেটগুলি কিনেছেন মোটা টাকার বিনিময়েই। তাই তারা যখন মূল্যবান প্রযুক্তি-সহ মোবাইলগুলি বাজারে আনছেন তখন তার দামও বাড়ছে। মনে রাখতে হবে এই নতুন ও উন্নততর প্রযুক্তি সুলভ হতে এখনও বাকি। ফলে এই প্রযুক্তির ভাল ফোন কিনতে গেলে ‘প্রিমিয়াম’ মূল্য দিতে হবে।

    তবে হ্যা, বাজারে কম দামের 5G ফোনও পাওয়া যেতে পারে। ধরা যাক ১৫০০০ টাকায় একটি 5G ফোন কেনা হল। কিন্তু তার সঙ্গে ওই একই মূল্যের একটি 4G ফোনের তুলনা করলেই বোঝা যাবে, ফিচারে কতখানি পার্থক্য রয়েছে। কম দামের 5G ফোন হয়তো প্রয়োজনীয় সব চাহিদা পূরণ করতেই পারবে না।

    আরও পড়ুন - ভুলেও এই মেসেজে ক্লিক করবেন না! অনলাইন শপিংয়েও সাবধান! খালি হয়ে যাবে ব্যাঙ্কের সব টাকা!

    শুধু 5G নয়, ফোনের অন্য বৈশিষ্ট্য জরুরি —

    ভারতে 5G নেটওয়ার্ক এখনও চালু হয়নি। এটি আগামী ছ’মাসের মধ্যে তা চালু হতে পারে, বা আরও পরে। সুতরাং এখনই অতিরিক্ত ব্যয় করে এই কানেক্টিভিটি পাওয়ার তেমন প্রয়োজন নাও হতে পারে। বরং নতুন ফোন কিনলে দেখে নেওয়া দরকার ক্যামেরা, ডিসপ্লে এবং ফোনের ব্যাটারি, চার্জিংয়ের দ্রুততার মতো বিষয়৷ আর 4G ফোনে কম দামে এ সব বেশি পাওয়া যাবে 5G ফোনের তুলনায়।

    ভবিষ্যতের জন্য কোন ফোন—

    এ কথা সত্যি যে যদি এখন 5G ফোন কেনা যায়, তা হলে আগামীর জন্য চিন্তা করতে হবে না। তবে দেখে নিতে হবে ফোনটি যেন পাঁচটির বেশি নেটওয়ার্ক ব্যান্ড সমর্থন করে৷ যদি হাই-এন্ড স্মার্টফোন কেনা যায় তা হলে 5G ব্যান্ড, হার্ডওয়্যার এবং অন্য দিকগুলি নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

    কিন্তু ঘটনা হল, এ দেশে 4G নেটওয়ার্কও থাকবে। আগামী বেশ কয়েক বছর 4G পরিষেবায় ঘাটতি হওয়ার সম্ভাবনা কম। ফলে পুরনো ফোন বা নতুন 4G ফোন কাজে লাগবেই। বর্তমান বাজারে ২৫০০০ টাকা বা তার বেশি দামী 5G ফোন কিনতে পারলে অবশ্য ভবিষ্যতে ভালই কাজে লাগবে।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: 5G Network, 5G Smartphone

    পরবর্তী খবর