corona virus btn
corona virus btn
Loading

"অবিশ্বাস্য! জীবনে শহরে এরকম ফাঁকা রাস্তা দেখিনি..." করোনা যুদ্ধে আরও সাহায্যের প্রতিশ্রুতি সৌরভের

বেহালা থেকে বেলুড় মঠ। সৌরভের পৌঁছতে এদিন সময় লাগল মাত্র ২৫ মিনিট।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা যুদ্ধে আরও সাহায্যের প্রতিশ্রুতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের। বেলুড়মঠে বুধবার ২০০০ কেজি চাল দেওয়ার পর সৌরভ জানান," কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে চলতে হচ্ছে। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে কাঁধে-কাঁধ লাগিয়ে লড়তে হবে। এই সময়ে সবাই সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছেন। ১৯৯৬ সাল থেকে এরকম কাজ করে এসেছি। প্রয়োজনে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করি। এই মুহূর্তে সবচেয়ে জরুরী হচ্ছে খাবার। গরীব মানুষদের জন্য খুব প্রয়োজন খাবারের। সেই জন্যই এই চাল তুলে দেওয়া হল। বিভিন্ন অনাথ আশ্রমেও চাল দেওয়া হবে।"

করোনা যুদ্ধে বেশিরভাগ সেলেবরা অর্থ সাহায্য করছেন। কিন্তু সৌরভ চাল কিনে দিলেন কেন? প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক জানান, "দেশের কঠিন পরিস্থিতিতে সবার অনুদান কাজে লাগে। যে যেভাবে অনুদান দিতে চান তিনি দেন। সবার অনুদানে সমান গুরুত্বপূর্ণ।"

বেহালা থেকে বেলুড় মঠ। সৌরভের পৌঁছতে এদিন সময় লাগল মাত্র ২৫ মিনিট। কলকাতার ফাঁকা রাস্তায় দেখে সৌরভ বলেন, "এরকম অভিজ্ঞতা জীবনে কখনও হয়নি। অবিশ্বাস্য। আশা করি আমরা সবাই এই কঠিন পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবো।" করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ৩ সপ্তাহ লকডাউন চলছে দেশজুড়ে। বুধবার প্রথমবার বাড়ির বাইরে বের হলেন সৌরভ। ২০০০ কিলো চাল অনুদান হিসেবে বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেন সৌরভ। এর মধ্যেই শহরজুড়ে দেখা যাচ্ছে অনেক ক্ষেত্রেই লকডাউন মানছেন না সাধারণ মানুষ। এই প্রসঙ্গে বোর্ড প্রেসিডেন্ট জানান, "সবার নিয়ম মানা উচিত। সাবধানে থাকতে হবে। স্বাস্থ্য দফতর, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার যে আইসোলেশনের নিয়ম জারি করেছে সেটা মানা উচিত। নিশ্চয়ই কোনও কারণ থেকেই এই সিদ্ধান্ত। অনেকেই মনে করেন আমার কিছু হবে না। সেটা ঠিক না। সচেতন হওয়া উচিত।"

করোনা যুদ্ধে সৌরভ ৫০ লক্ষ টাকার জাল অনুদান দেবেন বলে ঘোষণা করেছিলেন এদিন সৌরভ জানান, "২১ দিনে গরীব ও দুঃস্থ মানুষদের অন্ন জোগাড় করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মোট দেড় লক্ষ কিলো চাল দেওয়া হবে। প্রয়োজনে আরও সাহায্য করা হবে।" এই কঠিন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটাররা যেভাবে এসেছেন সেই অবদান কতটা গুরুত্বপূর্ণ? সৌরভ স্পষ্ট বক্তব্য, "শুধু ক্রিকেটার নন, সিনেমা জগতের মানুষজন এমনকি সমাজের প্রত্যেক স্তরের মানুষ এই সময় সাহায্য করছেন। যার যা সামর্থ্য, সেই দিয়ে সাহায্য করছেন। ফেসবুকে দেখতে পাওয়া যায় কত মানুষ এই সময়ে এগিয়ে এসেছেন। সবাইকে মিলেই কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।"

দীর্ঘ ২৫ বছর পর বেলুড়মঠে যাওয়া নিয়ে সৌরভ বলেন, "অনেক ছোটবেলায় বাবার সঙ্গে বেলুড়মঠে এসেছিলাম। আবার এসে ভাল লাগলো। মহারাজের আশীর্বাদ পেয়েছি। ভাল লাগলো এখানে আসতে পেরে।"   এই দিনের মতো বৃহস্পতি ও শুক্রবার শহরের বিভিন্ন জায়গায় দুঃস্থ মানুষদের চাল দিয়ে সাহায্য করবেন মহারাজ। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাসবিহারী সংলগ্ন ভারত সেবাশ্রম সংঘে যাবেন সৌরভ।

Eeron Roy Barman

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: April 1, 2020, 10:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर