• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS NEERAJ CHOPRA JAVELIN WAS IN PAKISTAN ARSHAD NADEEM HAND DURING TOKYO OLYMPICS FINAL VIDEO VIRAL SMJ

Neeraj Chopra taking his javelin from Arshad Nadeem: নীরজ চোপড়ার জ্যাভেলিন ছিল পাকিস্তানের আরশাদের হাতে! নতুন এক ভিডিও ভাইরাল

'ভাই আমার জ্যাভেলিন দাও। ওটা আমার।' টোকিও অলিম্পিক্স ফাইনালে নীরজের জ্যাভেলিন নিয়ে কেন ঘুরছিলেন পাকিস্তানের আরশাদ!

'ভাই আমার জ্যাভেলিন দাও। ওটা আমার।' টোকিও অলিম্পিক্স ফাইনালে নীরজের জ্যাভেলিন নিয়ে কেন ঘুরছিলেন পাকিস্তানের আরশাদ!

  • Share this:

    #কলকাতা:

    ভারতবাসীর ১০০ বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়েছেন তিনি। অলিম্পিক্সে ট্র্যাক এন্ড ফিল্ড ইভেন্টে একশো বছর বাদে ভারতীয় অ্যাথলিট হিসাবে সোনা জিতেছেন তিনি। টোকিও অলিম্পিক্স -এর ফাইনালে 87.58 মিটার জ্যাভলিন থ্রো করেছিলেন ২৩ বছর বয়সী নীরজ চোপড়া। সম্প্রতি টোকিও অলিম্পিক্সের ফাইনালের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ফাইনালে প্রথম থ্রো-এর আগে নীরজ চোপরা নিজের জ্যাভেলিন খুঁজে বেড়াচ্ছেন হন্যে হয়ে। তিনি এদিক-ওদিক তাঁর জাভেলিন খুঁজছেন, কিন্তু পাচ্ছেন না কোথাও। যার জন্য প্রথম থ্রো-র আগে তাঁর কিছুটা দেরি হয়ে গিয়েছিল। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও জ্য়াভেলিন খুঁজে না পাওয়ায় টেনশন ছিল তাঁর চোখে-মুখে।

    সেদিন যাঁরা নীরজের খেলা লাইভ দেখেছিলেন, তাঁদের পক্ষে পরিস্থিতি বোঝা সম্ভব ছিল না। কারণ ইভেন্ট শুরুর আগের সমটা লাইভে তেমনভাবে দেখানো হয়নি। তবে পরে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। অলিম্পিক্স ফাইনালের প্রথম থ্রো কিছুটা তাড়াহুড়ো করেই নীরজ চোপড়া শুরু করেছিলেন।

    আসলে নীরজের জ্যাভেলিন নিয়েছিলেন পাকিস্তানের আরশাদ নাদিম। নীরজ বলছিলেন, আমি আমার জ্যাভেলিন খুঁজছিলাম। অনেকক্ষণ ধরে ওটা দেখতে পাচ্ছিলাম না। এদিক ওদিক খোঁজ করছিলাম। হঠাৎ করেই দেখি পাকিস্তানের আরশাদ নাদিম আমার জ্যাভেলিন হাতে নিয়ে এদিক ওদিক ঘুরে বেড়াচ্ছে। তখন আমি কি ওকে বলি, ভাই আমার জ্যাভেলিন দাও। ওটা আমার। আমাকে ওটা ছুড়তে হবে। ও সঙ্গে সঙ্গে আমাকে ফেরত দিয়ে দেয়। প্রথম থ্রো তাই আমি কিছুটা তাড়াহুড়োর মাথাতেই করেছিলাম। এর পরই তাঁর জ্যাভেলিন থ্রো-এর মুহূর্তের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরপাক খাচ্ছে। নীরজের আগেই ফাইনালের দিন এরিনায় চলে এসেছিলেন আরশাদ। তার পর তিনি নীরজের জ্যাভেলিন হাতে নিয়ে ঘুরছিলেন।

    Published by:Suman Majumder
    First published: