কমছে অক্সিজেন লেভেল, মিলখা হাসপাতালে

হাসপাতালে লড়ছেন মিলখা সিং

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়ার জন্য শেষপর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি হলেন এশিয়াডে জোড়া সোনাজয়ী দৌড়বিদ মিলখা সিং। সোমবার শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়ার জন্য তাঁকে মোহালির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ভাগ মিলখা ভাগ ! না এখন আর দৌড়াতে পারেন না তিনি। সেটা কথাও নয়। কিন্তু ফ্লাইং শিখ বরাবর মনের দিক দিয়ে নবীন। অসম্ভব মনের জোর এবং হার না মানা মনোভাব। এটাই তাঁর অফুরান প্রাণশক্তির উৎস। তিনি মিলখা সিং। ভারতের গর্ব। জীবন্ত কিংবদন্তি। শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়ার জন্য শেষপর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি হলেন এশিয়াডে জোড়া সোনাজয়ী দৌড়বিদ মিলখা সিং।

    সোমবার শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়ার জন্য তাঁকে মোহালির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে মিলখা পুত্র জীব মিলখা সিং জানিয়েছেন তাঁর বাবার শারীরিক অবস্থা আগের থেকে স্থিতিশীল। গত ২০ মে মিলখা করোনায় আক্রান্ত হন। জ্বর থাকলেও তাঁর শরীরে কোনও উপসর্গ ছিল না। তাই বাড়িতে নিভৃতবাসে ছিলেন ৯১ বছরের এই প্রাক্তন ক্রীড়াবিদ।

    কিন্তু সোমবার সকালে মিলখার প্রবল শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তারপরেই স্ত্রী নির্মল কৌর ও পুত্র জীব তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানোর সিদ্ধান্ত নেন। বাবার শরীর খারাপের খবর শুনে শনিবারই দুবাই থেকে ফিরে আসেন এই গলফার। জীব এদিন সাংবাদিকদের বলেন, “রবিবার থেকে বাবার শরীর আরও খারাপ হতে থাকে। খাওয়া দাওয়া একদম বন্ধ করে দিয়েছিলেন। শ্বাসকষ্টের সঙ্গে প্রচুর বমি করছিলেন। তাই আমরা ওঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। ডাক্তারদের দেখভালের মধ্যে থাকার জন্য এখন ওঁর শারীরিক অবস্থা অনেকটা ভাল। সবচেয়ে বড় কথা হল বাবার ৯১ বছর বয়স হলেও শারীরিক ও মানসিক ভাবে খুব চাঙ্গা। তাই আশা করি বাবা দ্রুত হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন।”

    এদিকে ৯১ বছর বয়স হলেও এখনও কোভিডের টিকা নেননি মিলখা। তবে ঠিক করেছেন, কোভিড থেকে সেরে উঠলেই নেবেন। জীব যোগ করেন,“টিকা নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা বাবা বুঝতে পারেননি। কিন্তু এ বার মনে হচ্ছে টিকা নেওয়া জরুরি। গোটা দেশের ভালবাসা এবং আশীর্বাদে বাবা খুব দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন।”

    গত বছর কোভিড-ত্রাণে মিলখা এবং তাঁর পুত্র জীব ২ লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন। কেন্দ্রীয় সরকার এমনিতেই ক্রীড়াবিদদের সাহায্যে এগিয়ে আসেন। ক্রীড়ামন্ত্রী কিরণ রিজিজু এই ব্যাপারে সব সময় বড় ভূমিকা পালন করে থাকেন। মিলখা সিং দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন এটাই সকলের প্রার্থনা।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: