ম্যারাথনে দৌড়তে গিয়ে একসঙ্গে প্রাণ হারালেন ২১ জন দৌড়বিদ, মর্মান্তিক ঘটনা চিনে

বেশিরভাগ দৌড়বিদের শরীরে ছিল পাতলা স্পোর্টস টি-শার্ট ও শর্টস।

বেশিরভাগ দৌড়বিদের শরীরে ছিল পাতলা স্পোর্টস টি-শার্ট ও শর্টস।

  • Share this:
    ২১ জন আলট্রা ম্যারাথন দৌড়বিদ প্রাণ হারালেন চিনে। চিনের উত্তর-পশ্চিমে একটি পার্বত্য অঞ্চলে ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ১০০ কিমি পথ ছুটতে গিয়ে প্রাণ হারান দৌড়বিদরা। ২১ জন আলট্রা ম্যারাথন দৌড়বিদ প্রাণ হারালেন চিনে। চিনের উত্তর-পশ্চিমে একটি পার্বত্য অঞ্চলে ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ১০০ কিমি পথ ছুটতে গিয়ে প্রাণ হারান দৌড়বিদরা। হুয়াংঝে শিলং পার্বত্য এলাকায় শনিবার সকালে ম্যারাথন শুরু হয়। সকালে আবহাওয়া ভাল ছিল। কিন্তু স্থানীয় সময় দুপুর একটা থেকে বৃষ্টি শুরু হয়। এর পর শিলাবৃষ্টি ও প্রবল বেগে হাওয়া বইতে শুরু করে। হুয়াংঝে শিলং পার্বত্য এলাকায় শনিবার সকালে ম্যারাথন শুরু হয়। সকালে আবহাওয়া ভাল ছিল। কিন্তু স্থানীয় সময় দুপুর একটা থেকে বৃষ্টি শুরু হয়। এর পর শিলাবৃষ্টি ও প্রবল বেগে হাওয়া বইতে শুরু করে। প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও ছুটতে থাকেন দৌড়বিদরা। বেশিরভাগ দৌড়বিদের শরীরে ছিল পাতলা স্পোর্টস টি-শার্ট ও শর্টস। ফলে ঠাণ্ডায় তাঁদের শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকে। প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও ছুটতে থাকেন দৌড়বিদরা। বেশিরভাগ দৌড়বিদের শরীরে ছিল পাতলা স্পোর্টস টি-শার্ট ও শর্টস। ফলে ঠাণ্ডায় তাঁদের শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকে। লিয়াং জিং নামের এক দৌড়বিদও মারা গিয়েছেন। তাঁকে চিনের অন্যতম সেরা ম্যারাথন রানার হিসাবে ধরা হয়। লিয়াং এর আগেও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ম্যারাথন শেষ করেছেন। কিন্তু এদিন আর পারলেন না। লিয়াং জিং নামের এক দৌড়বিদও মারা গিয়েছেন। তাঁকে চিনের অন্যতম সেরা ম্যারাথন রানার হিসাবে ধরা হয়। লিয়াং এর আগেও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ম্যারাথন শেষ করেছেন। কিন্তু এদিন আর পারলেন না। ইয়েলো রিভার স্টোন ফরেস্ট-এ দৌড়বিদরা পৌঁছনোর পরই আবহাওয়া খারাপ হতে থাকে। এর পর অন্ধকার নেমে আসে। ১২০০ জনের উদ্ধারকারী দল দৌড়বিদদের খুঁজতে শুরু করে অন্ধকারেই। সাধারণত ম্য়ারাথন হয় ৫০ কিমির। কিন্তু এটা ছিল আলট্রা ম্যারাথন। ১০০ কিমি রাস্তা। আটজন দৌড়বিদ এখনও হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। প্রবল ঠাণ্ডার জন্যই দৌড়বিদরা প্রাণ হারিয়েছেন বলে প্রাথমিক তদন্তের পর মনে করছে পুলিশ-প্রশাসন। ইয়েলো রিভার স্টোন ফরেস্ট-এ দৌড়বিদরা পৌঁছনোর পরই আবহাওয়া খারাপ হতে থাকে। এর পর অন্ধকার নেমে আসে। ১২০০ জনের উদ্ধারকারী দল দৌড়বিদদের খুঁজতে শুরু করে অন্ধকারেই। সাধারণত ম্য়ারাথন হয় ৫০ কিমির। কিন্তু এটা ছিল আলট্রা ম্যারাথন। ১০০ কিমি রাস্তা। আটজন দৌড়বিদ এখনও হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। প্রবল ঠাণ্ডার জন্যই দৌড়বিদরা প্রাণ হারিয়েছেন বলে প্রাথমিক তদন্তের পর মনে করছে পুলিশ-প্রশাসন।
    Published by:Suman Majumder
    First published: