IPL 2021: নামেই বায়ো-বাবল! বাচ্চা-বুড়ো সবাই মাঠে থাকত! ঋদ্ধিমান সাহার বিস্ফোরণ

আইপিএল চলার সময় কারা ছিল মাঠে! কী বললেন ঋদ্ধিমান!

আইপিএল চলার সময় কারা ছিল মাঠে! কী বললেন ঋদ্ধিমান!

  • Share this:

    #মুম্বই:

    আইপিএল ২০২১ সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আয়োজিত হলেই ভাল হত। এমনটাই মনে করছেন ঋদ্ধিমান সাহা। স্রেফ কথার কথা নয়। তিনি যা দাবি করেছেন তার সপক্ষে যুক্তিও দিয়েছেন। বাংলার উইকেটকিপার-ব্যাটসম্য়ান জানিয়েছেন, গতবার আইপিএলের সময় ক্রিকেটারদের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয় অনেক বেশি সুরক্ষিত ছিল। সেখানে এবার বায়ো-বাবলে অনেক ফাঁক-ফোঁকড় ছিল। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে জেরবার গোটা দেশ। এমন পরিস্থিতিতে দেশের মাটিতে আইপিএল আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। মহামারীর মধ্যেও কী করে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ আয়োজন হয়! কী করে দেশের এমন কঠিন পরিস্থিতিতে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে এত টাকা খরচ করা হয়! এসব প্রশ্ন আগেই উঠেছিল। এবার আইপিএলে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়েও প্রশ্ন উঠে গেল। বিশেষ করে ঋদ্ধিমান সাহার এদিনের দাবির পর আইপিএলের জৈব সুরক্ষা বলয় এবার প্রশ্নের মুখে।

    পিটিআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে ঋদ্ধি বলেছেন, ''গতবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আইপিএল চলার সময় মাঠে ক্রিকেটাররা ছাড়া কারও থাকার অনুমতি ছিল না। এমনকী মাঠকর্মীদের প্র্যাকটিসের সময় মাঠে থাকতে দেওয়া হয়নি। তবে এবার এখানে আইপিএলের সময় মাঠে লোকজন থাকত। এমনকী বাচ্চারা মাঠের পাশে থাকা পাঁচিলে উঠে উঁকি মারত। আইপিএল আয়োজন নিয়ে আমার বেশি কথা বলা উচিত নয়। সেটা আয়োজকদের সিদ্ধান্ত। তবে এটুকু বলব, গতবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে কিন্তু আইপিএল সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করা হয়েছিল।'' এবার আইপিএলে একের পর এক ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফ করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ঋদ্ধিমান সাহাও করোনা পজিটিভ হন। তার পর দিল্লিতে ১৫ দিন একটি হোটেলে নিভৃতবাসে ছিলেন তিনি। জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকা সত্ত্বেও এতজন ক্রিকেটার কী করে আক্রান্ত হলেন! ঋদ্ধি বলছিলেন, ''সেটা আমি বলতে পারব না। তবে এবারও আইপিএল সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আয়োজিত হলে হয়তো ভাল হত। এই ব্যাপারে আয়োজকদের ভাবা উচিত।''

    ৪ মে কোভিড পজিটিভ হন তিনি। সেইদিনই আইপিএল মাঝপথে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিসিসিআই। ঋদ্ধি এখন সুস্থ। তিনি বলেছেন, আমি এখন সব কাজ করছি। তেমন কোনও অসুবিধা হচ্ছে না। তবে ট্রেনিংয়ে নামলে বুঝতে পারব শরীর কতটা ধকল নিতে পারছে! এখন সাধারণ কাজকর্ম করতে কোনও ক্লান্তি অনুভব হচ্ছে না। পজিটিভ হওয়ার পর প্রথমে কয়েকদিন জ্বর ছিল। পাঁচ-ছ দিনের মাথায় আর কোনও স্বাদ, গন্ধ পাচ্ছিলাম না। বাড়ি ফিরে হালকা শরীর চর্চা করছি। তবে মুম্বইতে দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার পর ট্রেনিং করলে শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ধারণা পাব। উল্লেখ্য, সামনের মাসেই ইংল্যান্ড সফরে যাবে ভারতীয় দল। আর সেই দলে রয়েছেন ঋদ্ধিমান।

    Published by:Suman Majumder
    First published: