‘বাবা-মায়ের পরে আমার জীবনে যাঁর প্রভাব সবচেয়ে বেশি তিনি অঞ্জন মিত্র’- দেবাশিস দত্ত

এক যুগের অবসান হল কলকাতা ময়দানে

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Nov 08, 2019 10:49 AM IST
‘বাবা-মায়ের পরে আমার জীবনে যাঁর প্রভাব সবচেয়ে বেশি তিনি অঞ্জন মিত্র’- দেবাশিস দত্ত
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Nov 08, 2019 10:49 AM IST

#কলকাতা: ময়দানে দক্ষ প্রশাসকদের যে নাম উচ্চারিত হয় তার একটি নাম নিঃসন্দেহে অঞ্জন মিত্র ৷ শুক্রবার কাকভোরে বাইপাসের ধারে এক বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর ৷ দীর্ঘদিন অসুস্থতার সঙ্গে লড়াই করে তাঁর এই ৭৩ বছরে চলে যাওয়াটা মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে অনেকেরই ৷ কারো কারো মতে এই চলে যাওয়া অপূরণীয় ক্ষতি ৷ কিন্তু তাঁর দীর্ঘদিনের কর্মজীবনের সঙ্গে মোহনবাগানের অন্যতম প্রশাসক দেবাশিস দত্তের মতে অঞ্জন দা চিরকাল বেঁচে থাকবেন তাঁর কাজের মধ্যে দিয়ে ৷

অঞ্জন মিত্রের প্রয়াণের পর নিজের প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে দেবাশিস দত্ত অকপটভাবে জানান, ‘‘ বাবা -মায়ের পরে আমার জীবনে যাঁর সবচেয়ে বেশি প্রভাব তিনি অঞ্জন মিত্র ৷ আমি মাত্র ২৪ বছর যখন তখন ওনার সঙ্গে আলাপ আর আজ ৫০ ৷ ’’

debasis datta

আরও পড়ুন - প্রয়াত প্রাক্তন মোহনবাগান সচিব অঞ্জন মিত্র

একইসঙ্গে সচিব ও কোষাধ্যক্ষ জুটিতে মোহনবাগানে সাফল্যের সঙ্গে প্রশাসন সামলেছেন দীর্ঘদিন ৷ দেবাশিস দত্ত জানিয়েছেন, ‘‘ অঞ্জন দা চিরকাল বেঁচে থাকবেন নিজের কাজের মধ্যে দিয়ে ৷ যেভাবে তিনি মোহনাবাগানের প্রশাসকের পদে ২৫ বছর ছিলেন আমি নিকট অতীতে কাউকে দেখছি না যে এতদিন ধরে দায়িত্ব সামলোচ্ছে ৷ ’’

Loading...

২৬ বছরের সম্পর্ক আজ শেষ তার আগে গোটা রাতভর দারুণ ব্যস্ততা কেটেছে ৷ শনিবার নিজের বাসভবনে যাওয়ার পর মোহনবাগান ক্লাব তাঁবুতে শায়িত থাকবে অঞ্জন মিত্রের দেহ ৷

 আরও দেখুন

First published: 10:48:05 AM Nov 08, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर