• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL FOR CHRISTIAN ERIKSEN BALL WIL GO OUT OF THE FIELD IN EURO CLASH BETWEEN DENMARK BELGIUM SMJ

Euro 2020: আজ বেলজিয়াম-ডেনমার্ক ম্যাচের ১০ মিনিটে বল পাঠানো হবে মাঠের বাইরে, কেন জানেন?

ম্যাচের ঠিক ১০ মিনিটের মাথায় বল পাঠানো হবে সাইড লাইনের বাইরে।

ম্যাচের ঠিক ১০ মিনিটের মাথায় বল পাঠানো হবে সাইড লাইনের বাইরে।

  • Share this:

    #কোপেনহেগেন:

    আজ রাত সাড়ে নটা থেকে বেলজিয়াম বনাম ডেনমার্ক ইউরো কাপের ম্যাচ। আর এই ম্যাচের ঠিক ১০ মিনিটের মাথায় বল পাঠানো হবে সাইড লাইনের বাইরে। বেলজিয়াম তারকা রোমেলু লুকাকু সেটা জানিয়েছেন। লুকাকু বলেছেন, ডেনমার্কের তারকা মিডফিল্ডার ক্রিশ্চিয়ান এরিকসনের জন্যই তাঁর দল এমনটা করবে আজ রাতে। ইউরো কাপে ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের সময় আচমকা মাঠে লুটিয়ে পড়েন এরিকসন। পরে জানা যায়, তাঁর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়েছিল। গোটা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছিল সেই ঘটনা। ইন্টার মিলানে রোমেলু লুকাকু এবং ক্রিশ্চিয়ান এরিকসন একসঙ্গে খেলেন। গতবার সিরি আ চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য ছিলেন ডেনমার্কের তারকা মিডফিল্ডার এরিকসন ও বেলজিয়ামের লুকাকু। এরিকসনের সঙ্গে লুকাকুর বন্ধুত্ব অনেক পুরনো। আর তাই পুরনো বন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপনে আজকের ম্যাচের ১০ মিনিটের মাথায় বল সাইড লাইনের বাইরে পাঠাবে লুকাকুর বেলজিয়াম।

    ডেনমার্কের হয়ে ১০ নম্বর জার্সি গায়ে খেলেন এরিকসন। ইউরো কাপের শুরুতেই ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের প্রথমার্ধের ঠিক আগে আচমকাই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ছিলেন ডেনমার্কের মিডফিল্ডার এরিকসন। সেই সময় মাঠেই তাঁকে সিপিআর দেওয়া হয়। ডেনমার্কের অধিনায়ক সিমন জায়েরের উপস্থিত বুদ্ধিতে প্রাণে বাঁচেন এরিকসন। এর পর তাঁকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। এরিকসন এখন আগের থেকে অনেকটাই ভাল আছেন। হাসপাতাল থেকে বার্তা পাঠিয়েছেন তিনি। তবে এখনই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে না। তাঁর বেশ কয়েকটি টেস্ট বাকি রয়েছে। সেগুলি তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করেই হবে বলে জানিয়েছে ডেনমার্কের ফুটবল সংস্থা। মাঠের মধ্যেই ক্রিশ্চিয়ান এরিকসনের কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট-এর ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা বিশ্বকে। প্রায় প্রতিটি ক্রীড়াবিদ তাঁর দ্রুত সুস্থতা কামনা করে ছিলেন।

    গত ম্যাচে রাশিয়ার বিরুদ্ধে দুটি গোল করেছিলেন বেলজিয়ামের লুকাকু। এর পরই তিনি সেই ম্যাচের প্রথম গোলটি পুরনো বন্ধু এরিকসনকে উৎসর্গ করেন। এমনকী এরিকসনের দ্রুত সুস্থতা কামনা করে তিনি বার্তাও দেন। গোল করার পরই ক্যামেরার সামনে চলে এসেছিলেন লুকাকু। তার পর ক্রিস, আই লাভ ইউ- বলে আচমকা চিৎকার করেন। ডেনমার্কের ফুটবল সংস্থা জানিয়েছে, আগের থেকে অনেকটাই সুস্থ আছেন এরিকসন। তবে তাঁর ফুটবল ক্যারিয়ার অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ইতালির আইন অনুযায়ী, হৃদপিন্ডের সমস্যা থাকা কোনও অ্যাথলিটকে মাঠে নামতে দেওয়া হয় না। তাই ইন্টার মিলানের হয়ে ক্রিশ্চিয়ান এরিকসন আর খেলতে পারবেন কিনা সন্দেহ রয়েছে। তবে হয়তো ডেনমার্কের জার্গিস গায়ে আবার মাঠে দেখা যেতে পারে তাঁকে। সবটাই নির্ভর করছে তাঁর শারীরিক অবস্থার উপর।

    Published by:Suman Majumder
    First published: