• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL DENMARK THRASH WALES BY 4 GOALS IN AMSTERDAM TO BOOK PLACE IN QUARTER FINALS RRC

Euro 2020 : স্বপ্নের দৌড় অব্যাহত, ওয়েলস বধ করে শেষ আটে ডেনমার্ক

জোড়া গোল পেলেন ডলবার্গ

২৭ মিনিটে বাঁদিক থেকে দূরপাল্লার শটে ডেনমার্ককে এগিয়ে দেন ক্যাসপার ডলবার্গ। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আবার ব্যবধান বাড়ান তিনি

  • Share this:

    ডেনমার্ক -৪ ( ডলবার্গ -২, জোয়াকিম, ব্রেথওয়েট )

    ওয়েলস -০

    #আমস্টারডাম: দলের সেরা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন প্রথম ম্যাচে সাক্ষাৎ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছিলেন। সেদিন ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে হেরে গিয়েছিল ডেনমার্ক। দ্বিতীয় ম্যাচে এগিয়ে গিয়েও হেরে ফিরেছিল বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে। কিন্তু তারপর রাশিয়াকে ৪ গোলে হারিয়ে দুরন্ত কাম ব্যাক করে ড্যানিশরা। এদিন প্রি কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে ওয়েলস যে ডেনমার্ককে খুব বেশি চাপে রাখতে পারবে না সেটা জানা ছিল।

    গ্যারেথ বেল, রামসে এবং বেন ডেভিস ছাড়া ওয়েলস দলে বলার মত কেউ নেই। অন্যদিকে সেই তুলনায় ডেনমার্ক দলের গভীরতা বেশি। কিন্তু শুরুটা খারাপ করেনি গ্যারেথ বেলের দল। দশ মিনিটের মাথায় অধিনায়ক বেল দুর্দান্ত শট নিয়েছিলেন। সেটা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ২০ মিনিট পরে ক্রমশ খেলাটা ধরে ফেলে ডেনমার্ক। ৩-৪-২-১ ফরমেশনে বুদ্ধি করে দল সাজিয়েছিলেন ডেনমার্ক কোচ। বাঁদিক থেকে দ্যামসগার্ড এবং ডানদিক থেকে বার্সেলোনার ব্রেথওয়েট ক্রমশ চাপে ফেলছিলেন ওয়েলস ডিফেন্সকে।

    ২৭ মিনিটে বাঁদিক থেকে দূরপাল্লার শটে ডেনমার্ককে এগিয়ে দেন ক্যাসপার ডলবার্গ। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আবার ব্যবধান বাড়ান তিনি। এই মাঠেই ডাচ দল আয়াক্স আমস্টারডামের হয়ে খেলেন তিনি। চেনা মাঠে জোড়া গোল পেলেন। এই গোলটার পর এই ম্যাচে আর কিছু পাওয়ার ছিল না ওয়েলস দলের। ৮৮ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান জোয়াকিম মেইলি। ডানদিক থেকে বল ধরে ইনসাইড কাট করে ভেতরে ঢুকে বাঁপা দিয়ে দুরন্ত ফিনিশ করেন তিনি।

    অতিরিক্ত সময় ওয়েলস দলের লজ্জা বাড়ান বার্সেলোনা দলের মার্টিন ব্রেথওয়েট। প্রথমে গোল দেওয়া না হলেও পরে ভিএআর (VAR) টেকনলজি দেখে গোল দিয়ে দেন রেফারি। স্বপ্নের দৌড় অব্যাহত রইল ডেনমার্কের। প্রথম দল হিসেবে শেষ আটে পৌঁছে গেল তাঁরা। শেষ দুই ম্যাচে ৮ গোল করল তাঁরা।

    কোয়াটার ফাইনাল ম্যাচে নেদারল্যান্ডস বনাম চেক রিপাবলিক ম্যাচের বিজয়ী দলের সঙ্গে খেলতে হবে ড্যানিশদের। দেখে বোঝাই যাচ্ছে এবারের ইউরোতে ডেনমার্ক আরও বড় চমক দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে।১৯৯২ সালের পর চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ আসতেই পারে তাঁদের সামনে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: