• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL CRISTIANO RONALDO ANGRY AFTER SEEING COLD DRINK BOTTLE IN PRESS CONFERENCE SMJ

Euro 2020: কোল্ড ড্রিঙ্ক-এর বোতল দেখে রেগে আগুন রোনাল্ডো, হঠাত্ কী হল?

ভরা সাংবাদিক বৈঠকে সবাইকে বললেন, জল পান করুন। কোল্ড ড্রিঙ্ক নয়।

ভরা সাংবাদিক বৈঠকে সবাইকে বললেন, জল পান করুন। কোল্ড ড্রিঙ্ক নয়।

  • Share this:

    #মাদ্রিদ:

    ৩৬ বছর বয়স তাঁর। কিন্তু এখনও ফিটনেসে ২৫-২৬ বছরের ফুটবলারকে টেক্কা দিতে পারেন। কোন উপায়ে এমন ফিটনেস ধরে রাখেন রোনাল্ডো। সংযম। এটাই আসলে পর্তুগিজ তারকার মূলমন্ত্র। আর সেটা এদিন প্রমাণ হল আরেকবার। রোজকার জীবন থেকে কয়েকটি জিনিস বাদ দিতে হবে। সেগুলো বাদ দেওয়া কঠিন। কারণ ওই অপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলোই এখন আমাদের জীবনে জড়িয়ে গিয়েছে। ফিটনেস বা সুস্থতা ধরে রাখতে ওই জিনিসগুলির বাদ পড়া প্রয়োজন। রোনাল্ডো সেটাই করেছেন। সঠিক উপায়ে ডায়েট প্ল্যান মেনে চলেন। আর জীবন থেকে কয়েকটি অপ্রয়োজনীয় জিনিস বাদ দিয়েছেন। আর সেই অপ্রয়োজনীয় জিনিসটির একটি হল কোল্ড ড্রিংক। রোনাল্ডো তাই এদিন সাংবাদিক বৈঠকে এসে কোল্ড ড্রিঙ্কের বোতল দেখেই রেগে গেলেন। সরিয়ে দিলেন বোতলগুলি। তার পরই ভরা সাংবাদিক বৈঠকে সবাইকে বললেন, জল পান করুন। কোল্ড ড্রিঙ্ক নয়।

    হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে খেলতে নামবে পর্তুগাল। গতবারের চ্যাম্পিনরা এবারও হট ফেভারিট। আর এবার তো রোনাল্ডো আরও বেশি ক্ষুধার্ত যেন! একে তো এটাই সম্ভবত তাঁর শেষ ইউরো কাপ। তার উপর একের পর এক রেকর্ডের মুখে দাঁড়িয়ে সিআরসেভেন। ফলে তাঁকে ঘিরে এবার আশা-প্রত্যাশাও অনেক বেশি। এদিন পর্তুগালের কোচ স্য়ান্টোসকে সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে এসেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো। তখন তাঁর টেবিলের উপর রাখা দুটি কোল্ড ড্রিঙ্কের বোতল। সেই দুটি বোতলে চোখ পড়তেই রেগে গেলেন তিনি। হঠাত্ করেই তাঁর মুখ-চোখ পাল্টে গেল। তার পর সেই দুটি কোল্ড ড্রিঙ্কের বোতল সরিয়ে দিলেন। আর মাইক মুখের সামনে টেনে বললেন, জল পান করুন।

    রোনাল্ডোর এমন প্রতিক্রিয়া দেখে কোচ স্যান্টোসও অবাক হয়ে যান। ফুটবল কেরিয়ার লম্বা করতে হলে অনেক কিছু করতে হয়। অনেক স্বার্থত্যাগ ও লোভ সংবরণের পর দীর্ঘদিন খেলা যায়। তার জলজ্যান্ত উদাহরণ রোনাল্ডো। অ্যালকোহল, ফাস্ট ফুড খান না বহু বছর। স্বাস্থ্যের অল্পবিস্তর ক্ষতি করতে পারে এমন জিনিসও ত্যাগ করেছেন। আর তাই তাঁকে এখন বিশ্বের সব থেকে ফিট ফুটবলার বলা যায়। কয়েক ফিট লাফিয় হেড হোক বা বলসমেত দ্রুত গতি, তিনি সবেতেই যে কোনও ফুটবলারকে হারিয়ে দিতে পারেন। রোনাল্ডো কিন্তু নিজের ছেলের খাবারের দিকেও বিশেষ নজর রাখেন। কিছুদিন আগে এক সাক্ষাত্কারে রোনাল্ডো বলেছিলেন, ''আমি আমার ছেলের খাদ্যাভাসের ব্যাপারেও ভীষণ কড়া। মাঝেমধ্যে ও চিপস, কোল্ড ড্রিঙ্কস খায়। আমি যে সেটা অপছন্দ করি, ও সেটাও জানে। তাই আবদার করে না।''

    Published by:Suman Majumder
    First published: