• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL BABUL SUORIYO TROLLED AFTER CRITICIZES KYLIAN EMBAPPE ON FACEBOOK SMJ

Euro 2020: এমবাপের সমালোচনায় বাবুল সুপ্রিয়! হজম করতে হল তীব্র কটাক্ষ

এমবাপেকে নিয়ে কী এমন লিখেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়!

এমবাপেকে নিয়ে কী এমন লিখেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়!

  • Share this:

    #কলকাতা:

    সব খেলার সেরা বাঙালির তুমি ফুটবল। বাংলায় ফুটবল না থাকলেও এই স্লোগান এখনও রয়েছে। এখন ইউরো, কোপার জোড়া আসর। আর এমন সময় বাঙালি একটু ফুটবল নিয়ে তর্কাতর্কি করবে না, তা কী হয়! কিন্তু ভার্চুয়াল বটতলায় আবার যে কোনও ব্যাপারেই তর্ক গিয়ে শেষ হয় ট্রোল-এর বন্য়ায়। এ এক অদ্ভুত বিচার! ফেসবুক হোক বা টুইটার বা ইনস্টা, আপনার মতামত দশের পছন্দ না হলেই জুটবে তিরস্কার, ব্যক্তিগত আক্রমণ, তীব্র কটাক্ষ। সেটা এর আগেও বুঝেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। ভারতীয় দলের ক্রিকেটার হনুমা বিহারীকে নি.য়ে তিনি দু-চার কথা লিখেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তা নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। জড়িয়ে গিয়েছিলেন খোদ হনুমাও। আর এবার সোজা ফরাসী তারকা কিলিয়ান এমবাপেকে নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। ব্যস্, ফুটবল নিয়ে এক থেকে একশো বোঝা ইউজাররা আর তাঁকে ছেড়ে কথা বললেন না।

    বাবুল সুপ্রিয় লিখেছিলেন, কিলিয়ান এমবাপে (Kylian Mbappé) একজন ওভাররেটেড ফুটবলার। তাতেই তাঁকে প্রচুর সমালোচনা হজম করতে হল। চলল ব্যক্তিগত আক্রমণও। তবে কমেন্ট বক্সে গিয়ে একবারও মাথা গরম করলেন না তিনি। বরং বাঁকা কথারও সোজা উত্তরই দিলেন। সুস্থ সমালোচনা হল কম। সেই পোস্টের কমেন্ট বক্স ভরল মূলত অকারণ আক্রমণে। তবে বাবুল সুপ্রিয় নিজের যুক্তি ও দাবি থেকে সরলেন না। প্রসঙ্গত, ইউরো কাপে সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে পেনাল্টি মিস করে এখন সারা বিশ্বে কথা হচ্ছে এমবাপেকে নিয়ে। ফুটবল সম্রাট পেলে পর্যন্ত একটা সময় তাঁকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিলেন। মনে করেছিলেন এমবাপে প্রতিভাবান। সময়ের সঙ্গে সেই প্রতিভার বিকাশ হবে। কিন্তু এবার ইউরোতে এমবাপে আহামরি কিছুই করতে পারলেন না। উইথ দ্য বল ছুটলেন ভাল। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ফিনিশ করতে পারেননি।

    কেউ লেখেন, আপনি হয়তে আর আগে কখনও এমবাপেকে খেলতে দেখেননি। কেউ আবার, হনুমার কেরিয়ার শেষ করার পরর বাবুলদা এবার এমবাপের পিছনে পড়েছেন। কেউ আবার লিখেছেন, দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করেছেন বিজেপি সাংসদ। খেলার মাঠে স্পোর্টসম্য়ান স্পিরিট শেষ কথা। কিন্তু এমন কী হতে পারে না যে খেলার আলোচনাতেও এই স্পোর্টসম্যান স্পিরিট বজায় রাখতে হবে! তা হলেই তো ব্যক্তিগত আক্রমণের পরিসর ছোট হতে থাকে। বরং সুস্থ, স্বাভাবিক আলোচনা নতুন সম্ভাবনারও জন্ম দিতে পারে! তবে এসব কী আর ভার্চুয়াল বটতলায় সম্ভব! যেখানে নিজের মনের কথা লিখলেই বিপদে পড়তে হয়! তার থেকে মতামত রাখার নতুন জায়গা খুঁজে নেওয়াই তো ভাল! এবার হয়তো বাবুল সুপ্রিয় বুঝেছেন!

    Published by:Suman Majumder
    First published: