হায় রে কুসংস্কার! গ্রামে ডাইনি, সন্দেহের বশে ব্যাপক মার মহিলাকে, বয়কটও

হায় রে কুসংস্কার! গ্রামে ডাইনি, সন্দেহের বশে ব্যাপক মার মহিলাকে, বয়কটও
প্রতীকী

জান গুরুর নির্দেশে গ্রামে রয়েছে ডাইন তাই বেদম প্রহার করে বয়কট করা হয় গ্রামেরই বাসিন্দা লক্ষ্মী হাঁসদাকে, করা হয় মোটা অঙ্কের জরিমানাও।

  • Share this:

#পশ্চিম মেদিনীপুর: ফের মধ্যযুগীয় বর্বরতা। ডাইনি সন্দেহে মারধর, জরিমানা, বয়কট। গ্রামবাসীদের বোঝাতে ব্যর্থ প্রশাসনিক আধিকারিকরাও। ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল গ্রামে। প্রসঙ্গত মাসখানেক ধরেই চন্দ্রকোনা ২নম্বর ব্লকের বাসনছোড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত নীলগঞ্জ গ্রামে শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন মাতি সরেন। চিকিৎসক দেখিয়ে সুরাহা না মেলায় জানগুরুর দ্বারস্থ হন রোগীর পরিজনেরা। জান গুরুর নির্দেশে গ্রামে রয়েছে ডাইন তাই বেদম প্রহার করে বয়কট করা হয় গ্রামেরই বাসিন্দা লক্ষ্মী হাঁসদাকে, করা হয় মোটা অঙ্কের জরিমানাও।

আরও পড়ুনবাবা অন্য পুরুষে আসক্ত! শুনে ৮ বছরের ছেলে বলল 'its ok'!মায়ের চোখে জল, দেখুন ভিডিও

একমাস ধরে অত্যাচার সহ্য করার পর ধৈর্যের বাঁধ ভাঙ্গে লক্ষী হাঁসদার। সোমবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয় সে। মঙ্গলবার গ্রামে যায় পুলিশসহ প্রশাসনিক আধিকারিকরা। প্রশাসনিক আধিকারিকদের বোঝানোর পরেও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় গ্রামবাসীরা। ব্লক প্রশাসনের আধিকারিকদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে গ্রামবাসীরা।পরিস্থিতি এতটাই গোটা ঘটনা ঘিরে প্রশ্ন উঠছে জনসচেতনতা নিয়ে। লক্ষ্মী হাঁসদাকে গ্রাম থেকে তুলে নিয়ে এসেছেন প্রশাসনিক আধিকারিকেরা।

First published: January 28, 2020, 6:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर