WB Weather Update : বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের জের! বৃহস্পতিবার থেকে টানা ৪ দিন বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গে

ফের নিম্নচাপ বঙ্গোপসাগরে

বৃহস্পতি থেকে রবিবার প্রবল বৃষ্টির সতর্কতা (Weathe Update) জারি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। এরইমধ্যে সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যে বজ্র বিদ্যুৎসহ বৃষ্টিপাত হয় দক্ষিণবঙ্গের (South Bengal) বিভিন্ন জেলায়। বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয় কমপক্ষে ২৭ জনের।

  • Share this:

    #কলকাতা : সোমবারের দুর্যোগের পর এরইমধ্যে বাংলার আকাশে নতুন করে দেখা দিচ্ছে নিম্নচাপ (Depression)। আগামী কয়েকদিন বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের জেরে দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির স্বভাবনার কথা জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর (Weather Office)। বৃহস্পতি থেকে রবিবার প্রবল বৃষ্টির সতর্কতা জারি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। এরইমধ্যে সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যে বজ্র বিদ্যুৎসহ বৃষ্টিপাত হয় দক্ষিণবঙ্গের (South Bengal) বিভিন্ন জেলায়। হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদ ও নদীয়া জেলায়  বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয় কমপক্ষে ২৭ জনের।

    এরইমধ্যে নতুন করে নিম্নচাপের আশংকায় অশনি সংকেত দেখছে দক্ষিণবঙ্গ। ইয়াস পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতি এখনও পুরোপুরি কাটিয়ে উঠতে পারেনি দক্ষিণের জেলাগুলি। নতুন করে টানা চারদিনের বৃষ্টির পূর্বাভাস তাই ভয় দেখাচ্ছে এলাকার মানুষকে। এই পরিস্থিতিতে সম্ভাব্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের মোকাবিলায় সোমবার রাতে কলকাতার পুর কমিশনার এবং রাজ্যের সব জেলাশাসকদের উদ্দেশে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে নবান্ন থেকে।

    মৌসম ভবন থেকে জানানো হয়েছে আগামী ১০ জুন থেকে শুরু হবে বৃষ্টি। চলবে ১৪ জুন পর্যন্ত। সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় ঢেউয়ের উচ্চতা বাড়বে বলেও সতর্ক করেছে আবহাওয়া দফতর। এই চারদিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে নাগাড়ে চলবে বৃষ্টি। বাড়বে জোয়ারের জলস্ফীতিও। বর্ষা আসার আগেই এই প্রাক বর্ষা মরশুমে বঙ্গোপসাগরে একের পর এক নিম্নচাপের ফলেই এমন বৃষ্টির সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

    আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা এবং অসামরিক প্রতিরক্ষা দফতরের জারি করা সতর্কবার্তায় মৌসম ভবনের দেওয়া তথ্য উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, ইতিমধ্যেই বঙ্গোপসাগরের উপর একটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হয়েছে। পরবর্তী সময়ে তা আরও প্রবল হওয়ার আশঙ্কা। এর জেরে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে পরবর্তী ৩ দিন প্রবল ঝড়, বৃষ্টি ও বজ্রপাত হতে পারে। এর ফলে ইয়াস ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

    দুর্যোগের মোকাবিলায় উপকূলবর্তী এলাকায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় নদী ও সমুদ্রবাঁধ মেরামতির কাজ চালিয়ে যেতে বলা হয়েছে নবান্নের নির্দেশিকায়। পাশাপাশি, সমুদ্রে যাওয়া মৎস্যজীবীদের ফিরিয়ে আনা এবং উপকূলবর্তী এলাকায় বিশেষত কাঁচা বাড়িগুলির বাসিন্দাদের সরিয়ে এনে নিরাপদ স্থানে রাখার ব্যবস্থাও করতে বলা হয়েছে জেলাশাসকদের। সেই সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টিও নজর দিতে বলেছে নবান্ন।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: