অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীদের তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ, উত্তাল ডোমকল, উদ্ধার করল পুলিশ

অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীদের তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ, উত্তাল ডোমকল, উদ্ধার করল পুলিশ

এনআরসি আতঙ্কে দুই অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীকে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা।

  • Share this:

Pranab Kumar Banerjee #ডোমকল: এনআরসি আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে। সেই আতঙ্কে কখনও স্বাস্থ্যকর্মী, কখনো আশা কর্মীদের বাড়িতে চড়াও হচ্ছে গ্রামবাসীরা। এনআরসি আতঙ্কে দুই অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীকে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা। মঙ্গলবার ডোমকলের কুঠি সাতবাড়িয়া গ্রামের ঘটনা। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা ধরে তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখানোর পর ডোমকল থানা থেকে বিশাল পুলিশবাহিনী এসে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এর আগে হরিহরপাড়া, নওদা দৌলতাবাদ এর পর মঙ্গলবার ডোমকল বিক্ষোভের মধ্যে পড়লেন অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীরা। মঙ্গলবার যখন কুঠি সাতবাড়িয়া এলাকায় অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে শিশুদের পড়াচ্ছিলেন সেই সময় প্রচুর গ্রামবাসী এসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তারা তালা বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখায়। অভিযোগ অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী মরিয়ম বেগম কয়েকদিন আগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য তুলে নিয়ে এসেছেন। সমস্ত তথ্য নাগরিকত্ব আইন এর জন্য নিয়ে আসা হয়েছে বলে গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন। গ্রামবাসী সানপূজা মন্ডল বলেন, ওই কর্মী মেয়েদের ছবি তুলেছে। আমাদের ধারণা নাগরিকত্ব বিল এর জন্যই এই সমস্ত তথ্য তোলা হয়েছে। আমাদেরকে ওই খাতা ফেরত দিতে হবে। স্কুল ছাত্রী হালিমা খাতুন বলেন, আমার ছবি তুলেছে ওই দিদি। কোথায় লাগবে তা বলেনি। সেই কারণেই আমরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছি।

2719_5e148e9f593d0_1 (2)

যদিও ওই আইসিডিএস কর্মী মরিয়ম বেগম বলেন, কন্যাশ্রী প্রকল্পের জন্য গ্রামে গ্রামে সার্ভে করার নির্দেশ দিয়েছিলেন ব্লক অফিস থেকে। সেই কাজ আমি করেছি। মেয়েদের ছবি উতলা হয়েছে ব্লক প্রশাসনের নির্দেশে। অন্যদিকে ডোমকলের সাহাদিয়ার এলাকায় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যর বাড়িতে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা। গ্রামবাসীদের অভিযোগ সাত্তার শেখ নামে এক যুবক ইন্টারনেট শেখানোর নাম করে তাদের ছবি তুলেছে ও তথ্য সংগ্রহ করেছে। ডোমকল থানার পুলিশ গিয়ে ওই যুবককে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। যদিও সাত্তার শেখ বলেন, আমরা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কাজ করি। মোবাইল ফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয় ও ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হয় সেই প্রকল্পে কাজ করি। সেই কাজই নিয়ে গ্রামের মহিলাদের কাছে গিয়েছিলাম। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে আমরা এই কাজ করি।জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রশান্ত বিশ্বাস বলেন, এই ঘটনা কাঙ্ক্ষিত নয়। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কিছুদিনের জন্য সার্ভের কাজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

First published: January 9, 2020, 1:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर