দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘তোলাবাজ ভাইপো হঠাও’, জার্সি বদলেই শুভেন্দুর গলায় তৃণমূল বিরোধী হুঙ্কার

‘তোলাবাজ ভাইপো হঠাও’, জার্সি বদলেই শুভেন্দুর গলায় তৃণমূল বিরোধী হুঙ্কার
রাজনীতিতে নতুন ইনিংসের সূচনায় পরনের পোষাকে কোন বদল নেই শুভেন্দু অধিকারীর। ঘাসফুল শিবির ছেড়ে পদ্মফুলে যোগদান করতে যাওয়ার পথে নন্দীগ্রাম আন্দোলনের নেতা শুভেন্দু অধিকারী নিজের চেনা রাস্তা কাঁথি- এগরা-বেলদা-খড়্গপুরের রাস্তা ধরেই মেদিনীপুর আসেন।

আমার ২১ বছরের পুরনো দল, যাঁদের জন্য এত করেছি, বিয়ে পর্যন্ত করিনি, তাঁরা আমার খোঁজ পর্যন্ত নেননি ৷ শুভেন্দুর ক্ষোভ

  • Share this:

#মেদিনীপুর: কাল ছিল আপনজন আজ সে পর ৷ সরকারিভাবে গেরুয়া ছোঁয়া লাগতেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় জননেতা শুভেন্দু অধিকারী ৷ মেদিনীপুরের সভামঞ্চে অমিত শাহের হাত থেকে বিজেপির পতাকা তুলে নিতেই শাসকদলের বিরুদ্ধে হুঙ্কার শুভেন্দুর ৷ সরব হন খোদ তৃণমূল সু্প্রিমোর বিরুদ্ধে ৷ আক্রমণ করে যুবমোর্চার নেতা ও ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ৷ পদ্মাসনে বসতে না বসতেই আওয়াজ তুললেন, ‘তোলাবাজ ভাইপো হঠাও ৷’

এখানেই শেষ নয়, পুরনো দলের জন্য শুভেন্দুর গলায় প্রতি কথায় ফুটে ওঠে উষ্মা ৷ বলেন, ‘অমিত শাহ আমার বড় দাদা ৷ অমিতজির সঙ্গে আমার বহুদিনের সম্পর্ক ৷ কোভিডের সময় অমিত শাহ আমার খোঁজ নেন ৷ অথচ আমার ২১ বছরের পুরনো দল, যাঁদের জন্য এত করেছি, বিয়ে পর্যন্ত করিনি, তাঁরা আমার খোঁজ পর্যন্ত নেননি ৷’

দলনেত্রীর সঙ্গে সঙ্গে তৃণমূল দলের উদ্দেশে প্রবল আক্রমণ শানান বিজেপি নেতা শুভেন্দু ৷ বলেন, ‘তৃণমূলে আত্মসম্মান নিয়ে কেউ থাকতে পারে না ৷ আমাকে বিশ্বাসঘাতক বলছে ৷ আমি সিঁড়ি দিয়ে উঠে এসেছি ৷ আমি যখন যেখানে থাকি নিষ্ঠার সঙ্গে থাকি ৷ তৃণমূল এবার দ্বিতীয় হবে, প্রথম হবে বিজেপি ৷’

এবার মুখোমুখি লড়াই। এবার লড়াই রাজনীতির মঞ্চে। শুভেন্দু অধিকারী নিজের বক্তব্যে যা বলেছিলেন তাই করে দেখালেন ৷শনিবার, মেদিনীপুরের সভা থেকে শুরু থেকেই তিনি আক্রমণাত্মক। দলছাড়ার পর থেকে আক্রমণাত্মক তৃণমূল ৷ বারবার বলেছে পদের লোভে দল ছেড়ে গিয়েছে ৷ এমনকী বিশ্বাসঘাতকও বলা হয়েছে শুভেন্দুকে ৷  জবাবে এদিন শুভেন্দু বলেন, ‘আমাকে বলছে মায়ের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা। আমার মা গায়ত্রী দেবী। আর কেউ মা নন। যদি মা বলতে হয়, তা হলে ভারতা মাতাকে বলব। আর কাউকে বলব না ৷’

শুভেন্দু অধিকারী কারও নাম করেননি। তবে পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, শুভেন্দুর মন্তব্যে স্পষ্ট, তিনি নিশানা করেছেন তৃণমূলনেত্রীকে। বললেন মিনিট দশেক। তাতেই ঝাঁঝালো আক্রমণ।

Published by: Elina Datta
First published: December 19, 2020, 6:15 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर