Home /News /south-bengal /
Pandua: 'আমাদের ছেড়ে যাবেন না স্যার'... প্রিয় পুলিশের বদলিতে কেঁদে পড়ল গোটা পান্ডুয়া

Pandua: 'আমাদের ছেড়ে যাবেন না স্যার'... প্রিয় পুলিশের বদলিতে কেঁদে পড়ল গোটা পান্ডুয়া

থানার প্রিয় অফিসারের বদলি রুখতে থানা ঘেরাও করলেন গ্রামবাসীরা, হুগলির পান্ডুয়া থানা এলাকা সাক্ষী থাকল এই অনন্য দৃশ্যের

  • Share this:

    #পান্ডুয়া: থানার প্রিয় অফিসারের বদলি রুখতে থানা ঘেরাও করলেন গ্রামবাসীরা, হুগলির পান্ডুয়া থানা এলাকা সাক্ষী থাকল এই অনন্য দৃশ্যের।পান্ডুয়া থানার এএসআই রোনাল্ডো এঞ্জেল লেপার্ড, সম্প্রতি তাঁকে বদলি করা হয়েছে মগরা থানায় যা রুটিন বদলি হিসাবেই দেখা হয়। কিন্তু প্রিয় অফিসারের বদলিতে মন খারাপ গ্রামবাসীদের! আর তাই, অফিসারের বদলি রুখতে বৃহস্পতিবার পান্ডুয়া থানার দ্বারস্থ হল পান্ডুয়ার বিভিন্ন গ্রামের গ্রামবাসীরা।

    আরও পড়ুন: আপনি কি 'এই' পৌরসভার বাসিন্দা? ভ্যাকসিনের দুটো ডোজই নেওয়া? বিরাট ছাড় পাবেন...

    তাঁদের বক্তব্য, দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় দক্ষতার সঙ্গে কাজ করেছেন এএসআই রোনাল্ডো এঞ্জেল লেপার্ড, আপদে-বিপদে তাঁকে সবসময় পাশে পেয়েছে পান্ডুয়া! প্রিয় পুলিশ অফিসারকে তাঁরা কিছুতেই ছাড়বেন না, পান্ডুয়া থানা থেকে অন্যত্র বদলি হতে দেবেন না, এই দাবি জানিয়ে বহুক্ষণ থানার সামনে জড়ো হয়ে থাকেন গ্রামবাসীরা।

    শেষমেশ, তাঁদের শান্ত করেন এএসআই রোনাল্ডো নিজেই! তিনি গ্রামবাসীদের উদ্দেশ্যে জানান, অবশেষে রোনাল্ডো বাবু সকলের উদ্দেশ্যে জানান, এটি সরকারি নিয়ম এবং তিনি সরকারি চাকুরিজিবি, তাই তাঁকে এই নিয়ম মেনেই চলতে হবে। রোনাল্ডো এঞ্জেল লেপার্ড পান্ডুয়া থানা থেকে বদলি হচ্ছেন মগরা থানায়! তিনি গ্রামবাসীদের আস্বস্ত করেন, থানা বদলি হলেও পান্ডুয়ার প্রতিটি বাসিন্দার সঙ্গে তিনি যোগাযোগ রাখবেন, যে-কোনও প্রয়োজনে তিনি তাঁদের পাশে ছিলেন, আছেন, থাকবেন!

    আরও পড়ুন: নতুন নিয়মে দিঘা ভ্রমণের বড় আকর্ষণই মাটি!

    একদিকে যেমন প্রিয় পুলিশ অফিসারের জয়গান করছে মনুষ, অন্যদিকে সামনে এল 'রক্ষক-ই ভক্ষক'-এর চিত্র! ট্রাক চালককে ভয় দেখিয়ে টাকা-পয়সা, সোনার চেন লুঠ করার অভিযোগে পার্ক সার্কাস ট্রাফিক গার্ডের দুই কর্মীকে আজ, বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করল বড়বাজার থানার পুলিশ। ধৃতদের নাম শেখ আকবর এবং শেখ জামির মণ্ডল। পুলিশ সূত্রে খবর, আকবর সিভিক ভলান্টিয়ারের কাজ করেন। আর জামির ট্রাফিক গার্ডের গাড়িচালক। অভিযোগ, পুলিশের গাড়ি নিয়ে দু’জন পোস্তায় আসেন। সেখানে লরি এবং ট্রাক দাঁড় করিয়ে চালক এবং গাড়ির নথিপত্র পরীক্ষা করছিলেন। অনেক চালককে মিথ্যা মামলা দেওয়ার হুমকি দেন তাঁরা। অনেকের কাছ থেকে জোর করে টাকা আদায় করেন বলেও অভিযোগ। তাঁদের মধ্যে এক ট্রাক চালকের আধার কার্ড, লাইসেন্স-সহ গুরুত্বপূর্ণ নথি কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে আকবর এবং জামিরের বিরুদ্ধে। এমনকি ওই চালকের সঙ্গে থাকা ৫ হাজার টাকা এবং গলার সোনার চেনও ছিনিয়ে নেন বলে অভিযোগ।

    Saikat Biswas

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    Tags: Pandua

    পরবর্তী খবর