Nandigram: রাত পোহালেই দ্বিতীয় দফার ভোট! নন্দীগ্রাম নিয়ে কমিশনের কাছে একাধিক অভিযোগ তৃণমূলের

Nandigram: রাত পোহালেই দ্বিতীয় দফার ভোট! নন্দীগ্রাম নিয়ে কমিশনের কাছে একাধিক অভিযোগ তৃণমূলের

নন্দীগ্রাম নিয়ে কমিশনের কাছে একাধিক অভিযোগ তৃণমূলের 

নন্দীগ্রাম বিধানসভার জন্যে মোতায়েন করা হয়েছে ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। তারই মধ্যে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অভিযোগ নন্দীগ্রামের একাধিক জায়গায় বহিরাগতরা প্রবেশ করছে।

  • Share this:

#নন্দীগ্রাম: ভোটের আগের দিন নন্দীগ্রামের একাধিক জায়গা থেকে বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর এসেছে। এখনও পর্যন্ত রাজ্যের একমাত্র বিধানসভা কেন্দ্র যেখানে সমস্ত বুথকে স্পর্শকাতর বলে ঘোষণা করা হয়েছে। নন্দীগ্রাম বিধানসভার জন্যে মোতায়েন করা হয়েছে ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। তারই মধ্যে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অভিযোগ নন্দীগ্রামের একাধিক জায়গায় বহিরাগতরা প্রবেশ করছে।

এরই মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেছে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে। চিঠিতে অভিযোগ জানানো হয়েছে, নন্দীগ্রামের ৭ জায়গায় বহিরাগত দুষ্কৃতীদের রাখা হয়েছে। যে সাত জায়গা উল্লেখ করা হয়েছে তার মধ্যে আছে, রেয়াপাড়ায় AEON পাবলিক স্কুল, বয়ালের পবিত্র করের বাড়ি, হরিপুরে মেঘনাদ পালের বাড়ি, গোকুলনগর ক্যাম্প, বিরুলিয়া ক্যাম্প, আমগেছিয়ার চৈতন্য বাজার। এই সব জায়গায় বহিরাগতদের ক্যাম্প চলছে বলে চিঠি দিয়ে অভিযোগ জানাল তৃণমূল কংগ্রেস।

শাসক দলের অভিযোগ স্থানীয় পুলিশকে জানানো হলেও তারা কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। ভোটের ১২ ঘণ্টা আগে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ জানানোর ফলে নির্বাচন ঘিরে নন্দীগ্রাম সরগরম। এদিন সকাল সাড়ে ১১টা অবধি নন্দীগ্রামে নিজের অস্থায়ী বাসভবনে ছিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ তিনি সভা করতে যান হুগলি ও হাওড়া জেলায়। বিকেল ৪টে নাগাদ তিনি ফিরে আসেন ফের নন্দীগ্রামে। মমতা বন্দোপাধ্যায় এদিন জানিয়েছেন,"বহিরাগতরা নন্দীগ্রামে ঢুকছে। নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ তারা হিংসা মুক্ত নির্বাচন করাক। গোকুলনগর, বয়াল, বলরামপুর এলাকা দিয়ে বহিরাগতরা ঢুকছে। বহিরাগত দুষ্কৃতীরা ঢুকে অশান্তি করেছে। নির্বাচন কমিশনের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।"

এদিন নন্দীগ্রামের বেশ কয়েকটি জায়গায় তৃণমূলের কর্মীদের বাড়ি, দোকান ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অভিযোগ, গুন্ডারা গুন্ডামি করে বেড়াচ্ছে। বিজেপি যা বলছে নির্বাচন কমিশন তাই করে চলেছে। তবে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের বক্তব্য, "আমি তো সব নিয়ম মেনে চলছি। আমরা নির্বাচন কমিশনের থেকেও কোনও ফেভার চাইনি। আমরা শুধু হিংসা মুক্ত ভোট চাইছি।" তবে যে সব জায়গায় হিংসার অভিযোগ আসছে। সে সব জায়গায় ভোট দিতে কি মানুষ বেরোবে? মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উত্তর, "মানুষ ভোট দিতে বেরোবে। মানুষ নিজের ভোট নিজে বুঝে নেবে।" অভিযোগ একাধিক আসলেও, আত্মবিশ্বাসী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

আবির ঘোষাল

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

লেটেস্ট খবর