Narendra Modi: প্রথম দু'দফাতেই 'খেলা শেষ', বাংলায় 'আসল পরিবর্তন' দেখতে পাচ্ছেন মোদি!

Narendra Modi: প্রথম দু'দফাতেই 'খেলা শেষ', বাংলায় 'আসল পরিবর্তন' দেখতে পাচ্ছেন মোদি!

আত্মবিশ্বাসী মোদি

নন্দীগ্রামে ভোট লুঠের অভিযোগ তুলে মমতা যখন আদালতে যাওয়ার কথা বলছেন, তখন মোদি বললেন, 'দিদির তৃণমূল কুল নয়, বাংলার মানুষের জন্য শূল তৃণমূল। আমি বলে রাখছি, বাংলায় বিজেপি ২০০-র বেশি আসনে জিতবে।'

  • Share this:

    #জয়নগর: নন্দীগ্রামে যখন নিজের আসনে ভোট 'করাচ্ছেন' মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তখন দক্ষিণ ২৪ পরগনার জয়নগর থেকে মমতাকে তুমুল আক্রমণ শানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাজ্যে দ্বিতীয় দফার ভোটের দিনই রাজ্যে এসে মোদি দাবি করলেন, 'আমি বাংলায় আসল পরিবর্তন দেখতে পাচ্ছি। যেদিকেই তাকাচ্ছি, চারদিকে খালি বিজেপিই দেখতে পাচ্ছি। বিজেপির ঝড় চলছে বাংলার পূণ্যভূমিতে।' নন্দীগ্রামে ভোট লুঠের অভিযোগ তুলে মমতা যখন আদালতে যাওয়ার কথা বলছেন, তখন মোদি বললেন, 'দিদির তৃণমূল কুল নয়, বাংলার মানুষের জন্য শূল তৃণমূল। আমি বলে রাখছি, বাংলায় বিজেপি ২০০-র বেশি আসনে জিতবে।'

    এদিন ভাষণের মাঝে বারবার বাংলা বলতে শোনা গিয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে। বলেন, 'দ্বিতীয় দফায় প্রচুর মানুষ ভোট দিচ্ছেন। চার দিকে বিজেপি-র ঢেউ। তাই বলে দিচ্ছি, বাংলায় আর রক্তের খেলা চলবে না। অত্যাচারের খেলা চলবে না, ভ্রষ্টাচারের খেলা চলবে না।' বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার ভোট চলছে রাজ্যের চার জেলার ৩০টি আসনে। যার মধ্যে হেভিওয়েট নন্দীগ্রামও। সকাল থেকেই দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়েছে নন্দীগ্রামের পরিস্থিতি।

    মমতার নিজের ভোটের দিনই তাঁর আসন নির্বাচন নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মোদি। রীতিমতো কটাক্ষের সুরে মোদি বলেন, 'দিদি ভবানীপুর ছেড়ে নন্দীগ্রাম চলে গিয়েছেন। নন্দীগ্রামে গিয়ে মনে হল ভুল করে ফেলেছেন। এখনও পর্যন্ত ভোটদানের গতিপ্রকৃতিতে স্পষ্ট, বাংলার হয়ে কাজ করে দিচ্ছে নন্দীগ্রাম।' প্রসঙ্গত, এদিন সকাল-সকালই ভোট দিয়ে নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেন, 'বেগম হারছেন, বিকাশ জিতছে। যা বলেছিলাম, তাই হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নন্দীগ্রাম থেকে হেরে ফিরতে হবে।'

    বুধবারই দেশের বিজেপি বিরোধী নেতাদের একজোট হয়ে লড়ার বার্তা দিয়েছেন মমতা। এদিন তা নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি প্রধানমন্ত্রী। মোদির কথায়, 'গতকাল দিদি দেশের অনেক নেতার থেকে সাহায্য চেয়ে অনুরোধ করেছেন। এতদিন যাঁরা দিদির চোখে পর্যটক ছিল, বহিরাগত ছিল, যাঁদের সঙ্গে দেখাও করতেন না তিনি, আজ তাঁদের কাছ থেকে সমর্থন চাইছেন! এই বিশ্বাসঘাতকতা বাংলার মানুষ মেনে নেবে না।'

    Published by:Suman Biswas
    First published:
    0