Mamata on Suvendu: 'চোর চিরকাল চোর, না ঘরকা না ঘাটকা! এরা এখন ভারতীয় জঘন্য পার্টির ওস্তাদ হয়েছে'

Mamata on Suvendu: 'চোর চিরকাল চোর, না ঘরকা না ঘাটকা! এরা এখন ভারতীয় জঘন্য পার্টির ওস্তাদ হয়েছে'

মেদিনীপুরে ভোট প্রচারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন ফের একবার নাম না করে তৃণমূলত্যাগীদের কটাক্ষ করেন মমতা। অধিকারী পরিবার ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের নাম না করলেও তাঁদের 'গদ্দার' ও 'মীরজাফর' বলে কটাক্ষ করেন তিনি।

  • Share this:

    #মেদিনীপুর: প্রথম দফা ভোটের আগে বৃহস্পতিবারই প্রচারের শেষ দিন। শেষবেলার প্রচারকে কাজ লাগাতে চারটি সভার কর্মসূচির পরিকল্পনা নিয়ে ম্যারাথন প্রচারে নেমেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন ভোটপ্রচারে মেদিনীপুর বিধানসভায় গিয়েছিলেন মমতা। আর সেখানে বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বিজেপিকে বহিরাগত দল বলে কটাক্ষ করে মমতার আক্রমণ, '৭৫ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুৎ ফ্রি করে দিয়েছি। এটা আমরা করবই। এটা দিল্লির সরকার নয়, এটা গোঁজাখুরি সরকার নয়, এটা নোটবন্দির সরকার নয়। সবাইকে ধমকে রেখে দিয়েছে।'

    সরাসরি নরেন্দ্র মোদিকে এদিন কটাক্ষ করেন মমতা। ভোটের সময় রাজ্যে এসে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দেন মোদি, দাবি করেন মমতা। তাঁর কথায়, 'এরকম প্রধানমন্ত্রী যেন সারা পৃথিবীতে আর না জন্মায়। গুন্ডাগিরি, দাঙ্গাগিরি, চোখ দেখলে মনে হয় ঠুকরে খেতে আসছে। আমাকে বলে তোমাকে দেখাবো। কী দেখাবে? বহিরাগত গুন্ডাদের সঙ্গে কোনও সমঝোতা হবে না। আমার যতক্ষণ শ্বাস চলবে ততক্ষণ মানুষের জন্য কাজ করে যাব। কেই আটকাতে পারবে না।'

    এর আগেও মমতা পুলিশের বিজেপির হয়ে কাজ করার অভিযোগ করেছেন। এদিন ফের মেদিনীপুরের সভা থেকে একই অভিযোগ করেন তিনি। মমতার সাবধানবানী, 'উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট থেকে পুলিশ পাঠাচ্ছে বিজেপি। ভয় পাবেন না। মা-বোনেরা হাতা খুন্তি নিয়ে এগিয়ে যাবেন। ভোটার মেশিন পাহাড়া দেবে যারা, তাদের জন্য কিছু করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছি। এই ধান্দাবাজ-মিথ্যেবাদী রাজনৈতিক দল কেউ দেখেনি। এটা দেশের সবচেয়ে জঘন্য দল। সবাইকে বলে চোর আর নিজেরা সাধু। বিজেপি মানে ভারতীয় জঘন্য পার্টি।'

    পাশাপাশি, সিপিএমের বিরুদ্ধে ফের বিষোদগার করেন মমতা। তাঁর কথায়, 'সিপিএমের হার্দাম, এখন বিজেপির ওস্তাদ।' এদিন ফের একবার নাম না করে তৃণমূলত্যাগীদের কটাক্ষ করেন মমতা। অধিকারী পরিবার ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের নাম না করলেও তাঁদের 'গদ্দার' ও 'মীরজাফর' বলে কটাক্ষ করেন তিনি। তাঁর কথায়, 'আমাদের দলে কিছু গদ্দার, কিছু মীরজাফর ছিল। যারা মেদিনীপুরকে দেখিয়ে ঘুরে বেড়াত। হাজার হাজার কোটি টাকা কামিয়েছে। এখন তাঁরা বিজেপির ওস্তাদ। টাকা লুকোতে হবে তো। কত ব্যাঙ্ক, কত ট্যাঙ্ক, কত জাহাজ, কত তেলের কারখানা, কত জলের কারখানা। এখন গিয়ে মোদির পা ধরছে। ২ তারিখের পর এদের হাতে একটা শালপাতার ভিক্ষের থালা দিয়ে দেবেন। চোর চিরকালই চোর হয়। মনে রাখবেন এরা ঘরকা না ঘাটকা। কেউ বিশ্বাস করে না।'

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: