'আপনি দুমিনিট কাগজ ছাড়া বাংলা বলুন', প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চ্যালেঞ্জ অভিষেকের

'আপনি দুমিনিট কাগজ ছাড়া বাংলা বলুন', প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চ্যালেঞ্জ অভিষেকের

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বারবার বাংলার বিভিন্ন জায়গায় দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহদের।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বারবার বাংলার বিভিন্ন জায়গায় দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহদের।

  • Share this:

    #দাসপুর: লক্ষ্য বাংলা দখল। বিজেপি তাতে চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখছে না। ২৯ সিটে প্রার্থী দিতে হিমশিম খাচ্ছে গেরুয়া শিবির। বাংলায় তাদের সংগঠন যে এখনও সেভাবে মজবুত নয়, তা যেন বিধানসভা নির্বাচনের আগে বারবার স্পষ্ট হয়ে উঠছে। তবুও ভোট বড় বালাই! যেভাবেই হোক বাংলার মসনদে বসতে মরিয়া বিজেপি। আর তাই বিধানসভা নির্বাচনের আগে বারবার বাংলার বিভিন্ন জায়গায় দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহদের। বাংলার মানুষকে বোঝাতে চাইছেন, তাঁরা আসলে বাঙালির একজন। ভাষা, সংস্কৃতি আলাদা হলেও বাংলার সঙ্গে তাঁদের যোগাযোগ গড়ে উঠতে পারে অদূর ভবিষ্যতেই। শুধুমাত্র বাংলার মানুষ একবার সুযোগ দিলেই।

    বহু মঞ্চেই বাংলা ভাষায় কিছুক্ষণ কথা বলতে শোনা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীকে। কখনও ভাঙা, কখনও ভুল বাংলা বলছেন তিনি। তবুও তিনি চেষ্টা করছেন। যাতে বাঙালির আবেগ স্পর্শ করা যায়। বাংলা ভাষা, সংস্কৃতিকে আপন করে নিতে চান এমন দাবি বহু মঞ্চ থেকেই প্রধানমন্ত্রী করেছেন। তবে সেই দাবি মিথ্যে বলে দাবি করলেন তৃণমূলের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন প্রধানমন্ত্রীকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ করে বসলেন। মেদিনীপুরে দাসপুরের সভা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ''আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে খোলা চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি। আপনি আর আমি মুখোমুখি দাঁড়াব। বাংলার যে কোনও জায়গায়, যেখানে আপনি বলবেন, যে কোনও ব্লকে, যে কোনও গ্রামে, যে কোনও মঞ্চে। আপনার বা আমার হাতে কোনও কাগজ থাকবে না। আপনি মাত্র দুমিনিট কাগজ ছাড়া বাংলা বলে দেখান। আপনি দুমিনিট বাংলা বললে আমি কুড়ি মিনিট হিন্দি বলব। আমার বয়স ৩৩। আপনার ৬৮। বেশি কিছু চাইছি না। এটুকুই চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি। দুমিনিট হাতে কাগজ ছাড়া বাংলা বলুন। বাংলা দখলের স্বপ্ন যখন দেখছেন তখন এটুকু চ্যালেঞ্জ তো সামলাতেই হবে।''

    প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বারবার ভাইপো বলে আক্রমণ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এমনকী শুভেন্দ্র অধিকারী বারবার পিসি-ভাইপো প্রসঙ্গ তুলে আক্রমণ শানিয়েছেন। এদিন বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রী দু'পক্ষকেই সমান তালে আক্রমণ করলেন অভিষেক। বললেন, ''গতকাল হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক বন্ধ হয়েছিল ৪০ মিনিটের জন্য। সেই খবর প্রধানমন্ত্রী রাখেন। কিন্তু কেউ অনাহারে মরলে প্রধানমন্ত্রী খবর রাখেন না। উত্তরপ্রদেশের কোনও মেয়ে গণধর্ষিতা হলে প্রধানমন্ত্রী খবর রাখেন না। আসলে বিজেপির লড়াই ফেসবুক আর হোয়াটসঅ্যাপে। আমাদের মাঠে। এখন তো বিজেপির নেতারা ডেলিপ্যাসেঞ্জারি করছে। দিল্লি থেকে কলকাতা। ডাবল ইঞ্জিন সরকার হলে ডবল চুরি হবে। কিন্তু বিজেপি মনে রেখো, মমতাকে বাংলা ছাড়া করতে গিয়ে তোমরাই দিল্লি ছাড়া হবে।''

    Published by:Suman Majumder
    First published: