Home /News /south-bengal /
Bomb, Fire Arms Recover|| জেলাজুড়ে উদ্ধার প্রচুর বোমা-আগ্নেয়াস্ত্র! রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে

Bomb, Fire Arms Recover|| জেলাজুড়ে উদ্ধার প্রচুর বোমা-আগ্নেয়াস্ত্র! রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে

শরদিন্দু ঘোষ Huge amount of bomb fire arms recovered: জেলায় গত কয়েকদিনেই উদ্ধার হয়েছে ৫৩০ বোমা, ৪৯টি বন্দুক ও ৮১ রাউন্ড গুলি। গ্রেফতার করা হয়েছে ৪৯ জনকে।

  • Share this:

#বর্ধমান: রামপুরহাট কাণ্ডের পরই মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে গোটা রাজ্য জুড়ে বোমা, বন্দুক ও গুলি উদ্ধার করতে শুরু করেছে পুলিশ। পিছিয়ে নেই পূর্ব বর্ধমান জেলাও। জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলায় গত কয়েকদিনেই উদ্ধার হয়েছে ৫৩০ বোমা, ৪৯টি বন্দুক ও ৮১ রাউন্ড গুলি। গ্রেফতার করা হয়েছে ৪৯ জনকে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরই অভিযানে নামে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে অভিযান চালিয়ে কখনও বাঁশবাগান, শ্মশানের প্রতীক্ষালয়, স্কুল সংলগ্ন মাঠ, নির্জন এলাকার ঝোপ, তো কখনও পরিত্যক্ত রাইসমিলের পাশ থেকে উদ্ধার হয় এই বিপুল পরিমাণে বোমা, বন্দুক ও গুলি।

এ দিকে এই বিপুল পরিমাণে বোমা, বন্দুক ও গুলি উদ্ধার হওয়ায় রাজ্যের নিরাপত্তা নিয়েই কটাক্ষ করে বিজেপি বর্ধমান সদর সাংগঠনিক জেলার অন্যতম সাধারণ সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় চন্দ্রের অভিযোগ, সামান্য কটা বোমা উদ্ধার করে সাধারন মানুষকে আই ওয়াশ করছে। এখনও অনেক বোমা আছে রাজ্যে। পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, "পুলিশ যে পরিমাণ বোমা, বন্দুক ও গুলি উদ্ধার করেছে সেটা হাস্যকর। কিন্তু প্রশ্ন এ গুলো জেলায় ঢুকল কী করে? পুলিশ সচেতন থাকলে বোমা, বন্দুক ঢুকতো না। আমাদের কর্মীরাও মরতো না।" তাঁর দাবি, যদি কেন্দ্রীয় সংস্থা দিয়ে চিরুনি তল্লাশি চালানো যায় তাহলে বিপুল পরিমাণে অস্ত্র পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুনঃ গভীর রাত পর্যন্ত চেঁচামেচি, তারপর সব চুপ! অশোকনগরে কী ঘটে গেল?

মুখ্যমন্ত্রী বলার পরই প্রতিদিনই বিভিন্ন থানা এলাকায় জারিকেন ভর্তি ভর্তি বোমা উদ্ধার হওয়ায় বিজেপির কটাক্ষ, মুখ্যমন্ত্রী বলল আর অস্ত্র উদ্ধার শুরু করল পুলিশ। এতদিন করেননি কেন? এর থেকেই প্রমাণিত হয় পুলিশ দলদাসে পরিনত হয়েছে। এরা ১% বোমা উদ্ধার করেছে এখনও ৯৯ % বোমা আছে। যদিও তৃণমূলের জেলা মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাসের দাবি, বিজেপির কথার কোনও ভিত্তি নেই। ভোটের আগে ওরাই দুষ্কৃতী, বোমা বন্দুক মজুত করেছিল। পুলিশ তাঁদের কাজ করছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Crime News, East Bardhaman

পরবর্তী খবর