• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Bengal News: Earthen Lamp: মৃৎপ্রদীপে উদ্ভাসিত হওয়ার আশায় বছরভর অন্ধকারে থাকা হাতগুলোই গড়ছে আলোর ঠিকানা

Bengal News: Earthen Lamp: মৃৎপ্রদীপে উদ্ভাসিত হওয়ার আশায় বছরভর অন্ধকারে থাকা হাতগুলোই গড়ছে আলোর ঠিকানা

আর কয়েকদিন পরেই আলোর উৎসব অর্থাৎ দীপাবলি

আর কয়েকদিন পরেই আলোর উৎসব অর্থাৎ দীপাবলি

Diwali 2021: Earthen Lamp: বছরভর কেউ খবর রাখে না এই প্রদীপশিল্পীদের ৷ শুধু দীপাবলির আগে এই সময়ে বাড়ে তাঁদের কদর ৷ কারণ প্রদীপের নীচেই তো অন্ধকার হয় ।

  • Share this:

দুবরাজপুর: বীরভূমের (Birbhum) দুবরাজপুরের (Dubrajpur) মৃৎশিল্পীরা এখন ব্যস্ত মাটির প্রদীপ বানাতে । শহরের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে তৈরি হচ্ছে মাটির প্রদীপ ।আর কয়েকদিন পরেই আলোর উৎসব অর্থাৎ দীপাবলি (Diwali 2021)। বর্তমান যুগে নানা ধরনের আলো ও মোমবাতির প্রভাবে প্রদীপের চাহিদা দিন দিন কমছে । তাছাড়াও প্রদীপ তৈরিতে বেড়েছে খরচ , ফলে লাভের গুণ অনেকটাই কমেছে । ১০০ প্রদীপ বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা বা ৮০ টাকায় ।

বছরভর কেউ খবর রাখে না এই প্রদীপশিল্পীদের ৷  শুধু দীপাবলির আগে এই সময়ে বাড়ে তাঁদের কদর ৷ কারণ প্রদীপের নীচেই তো অন্ধকার হয় । আলোর উৎসব বা দীপাবলিতে  অন্যের মুখে হাসি ফোটাতে বছরভর অপেক্ষায় থাকেন প্রদীপশিল্পীরা । শিল্পী জিতেন্দ্র পণ্ডিত বলেন, "সারা বছর আমরা অপেক্ষা করি দীপাবলির জন্য। যাতে এই ক’দিন একটু হলেও আমাদের কদর বাড়ে । যদিও এখনও টুনি আলো , মোমবাতি ইত্যাদি অনেক কিছু আসায় দর কমেছে আমাদের । তবুও আমরা বড়, ছোট সব রকমেরই প্রদীপ বানাই ও প্রদীপের আকার অনুযায়ী একশোটা প্রদীপ কোনওটা ৭০ টাকা তো আবার কোনওটা ৮০ টাকা দরে বিক্রি করি ।’’

আরও পড়ুন:বিধ্বস্ত সুন্দরপুরকে ছন্দে ফেরাতে প্রশাসনিক পদক্ষেপ, কালীপুজোর পরই শুরু হবে অজয় নদের বাঁধ-পুনর্নির্মাণ

আরও পড়ুন: ১ মাসেরও বেশি সময় ধরে চিকিৎসায় নতুন জীবন, ৭০০ গ্রাম ওজনের নবজাতককে সুস্থ করে তুললেন চিকিৎসক

এমনিতেও এখন সব জিনিসের দাম বাড়ায় সঙ্গে সঙ্গে দাম বেড়েছে মাটিরও । তাই ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখেই নির্দিষ্ট মূল্য রেখে এই মাটির প্রদীপ বিক্রি করতে হয় তাঁদের । তিনি আরও বলেন, ‘‘টুনি লাইট , মোমবাতির মতোই যদি চাহিদা থাকত মাটির প্রদীপের, তবে একটু হলেও লাভ হত আমাদের ।’’

আরও পড়ুন: নীচের তলায় খুন হলে সিঁড়ির বাঁদিকের রেলিংয়ে রক্তের দাগ কেন? ব্যবসায়ী-খুনে এখনও একাধিক ধোঁয়াশা

এই প্রসঙ্গে দুবরাজপুরবাসী শ্রীতমা মুখোপাধ্যায় বলেন, " দীপাবলির মধ্যেই আছে দীপের অস্তিত্ব । তাই দীপাবলিতে যতই টুনি লাইট অথবা মোমবাতি দিয়ে ঘর সাজাই না কেন, মাটির প্রদীপের  আলোয় সব থেকে সুন্দর লাগে মায়ের মুখ । টুনি লাইটের পাশাপাশি যেন হারিয়ে না যায় এই মৃৎপ্রদীপ ।"

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: