Home /News /south-bengal /
Temple Of Kalna: কালনার ১০৮ শিব মন্দিরের গঠনশৈলী আজও অবাক করে দর্শনার্থীদের 

Temple Of Kalna: কালনার ১০৮ শিব মন্দিরের গঠনশৈলী আজও অবাক করে দর্শনার্থীদের 

কালনার ১০৮ শিবমন্দির

কালনার ১০৮ শিবমন্দির

Temple Of Kalna: জানা যায়, এক সময় বারো জন ব্রাহ্মণ পূজার দায়িত্বে ছিলেন। প্রতি ব্রাহ্মণ ন’টি করে শিব পূজা করতেন।

  • Share this:

#কালনা: বর্ধমানের মতোই কালনাতেও (Temple Of Kalna) একশো আট শিব মন্দির তৈরি করেছিল বর্ধমান রাজ পরিবার। সেই মন্দিরের খ্যাতি এখন ভারতজোড়া। শিবরাত্রি (Mahashivaratri) উপলক্ষ্যে সেজে উঠেছে মন্দির চত্বর। অগণিত দর্শনার্থী ভিড় করেছেন মন্দিরে।

কালনার (Kalna) মন্দিরগুলি (Temple Of Kalna) বৃত্তাকারে সাজানো। এখানে কালোর পাশাপাশি সাদা রঙের শিবলিঙ্গ রয়েছে। কালনার এই মন্দিরকে ১০৮ শিবমন্দির বলা হলেও এর আসল নাম নবকৈলাস মন্দির। বর্ধমানের রাজা তেজচন্দ্র ১৮০৯ সালে এই মন্দির নির্মাণ করান। বিষ্ণুপুরে রাজকীয় সম্পত্তি স্থানান্তর উদ‌্‌যাপন উপলক্ষে এই মন্দির তৈরি করা হয়। এই মন্দিরের গঠনশৈলীতে বাংলার আটচালা শিল্পের ছাপ স্পষ্ট।

কালনা রাজবাড়ি চত্বরের কাছেই অবস্থিত ১০৮ শিবমন্দির (Temple Of Kalna)। এটি দু’টি বৃত্তকে কেন্দ্র করে নির্মিত। বাইরের বৃত্তে ৭৪টি মন্দির। সেগুলি পর্যায়ক্রমে একটি সাদা এবং একটি কালো শিবলিঙ্গে সজ্জিত। ভিতরের বৃত্তের ৩৪টি মন্দিরের সব ক’টিতেই সাদা শিবলিঙ্গ আছে। মোট ৭১টি সাদা ও ৩৭টি কালো শিবলিঙ্গ রয়েছে এখানে। দ্বিতীয় বৃত্তের শিবলিঙ্গগুলি প্রথম বৃত্তের থেকে অপেক্ষাকৃত ছোট। বৃত্তের মধ্যের মন্দিরগুলি আটচালা। উচ্চতা প্রায় কুড়ি ফুট এবং প্রস্থে সাড়ে ন’ফুট। প্রথম বৃত্তের ভিতর দিকের পরিধি প্রায় সাতশো ফুট এবং দ্বিতীয় বৃত্তের ভিতর দিকের পরিধি তিনশো ফুটের একটু বেশি।

আরও পড়ুন:  আলু ঢেলে জাতীয় সড়ক অবরোধ কৃষকদের, কেন?

ভিতরের বৃত্তের মাঝখানে রয়েছে একটি বিরাট কূপ। এখানে গর্ত করে একটি বড় কম্পাস বসিয়ে জ্যামিতিক ভাবে বৃত্ত মেপে মন্দিরগুলি নির্মাণ করা হয়েছিল বলে শোনা যায়। কারো মতে এই বৃহৎ কূপ শূন্য তথা নিরাকার ব্রহ্মস্বরূপ পরম শিবের প্রতীক।

আরও পড়ুন: দিনের আলোয় জঙ্গল থেকে বেরিয়ে আঁচড়ে, কামড়ে দিচ্ছে 'সে', খেজুরিতে প্রবল আতঙ্ক

 এখানে এক জায়গায় দাঁড়িয়ে এক সঙ্গে চারটির বেশি শিবলিঙ্গ দেখা যায় না। এই মন্দিরের (Temple Of Kalna) প্রতিটি বৃত্তের দু’টি করে দরজা। প্রথম বৃত্তের উত্তর দিকে একটি, একটি দক্ষিণে। ভিতরের বৃত্তে একটি পূর্বে, অন্যটি পশ্চিমে। জানা যায়, এক সময় বারো জন ব্রাহ্মণ পূজার দায়িত্বে ছিলেন। প্রতি ব্রাহ্মণ ন’টি করে শিব পূজা করতেন।

দু’শো বছর আগের এই মন্দিরের (Temple Of Kalna) গঠনশৈলী অবাক করার মতো। পুরাণ মতে, গৌরীর পিতৃগৃহ উত্তর দিকের কৈলাসে। বিয়ের পর যেমন মেয়েদের মন পিতৃগৃহের জন্য উতলা হয়ে থাকে, তেমন এই মন্দিরগুলিতে শিবলিঙ্গের উপরে থাকা গৌরীপট্টগুলি উত্তরমুখী। এক সময় মন্দিরগুলি ভগ্নপ্রায় হয়ে উঠলেও এখন অনেক সংস্কার হয়েছে। আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে মন্দির চত্বর।

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: Kalna

পরবর্তী খবর