• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN BURDWAN RAPE AND MURDER CASE OF A WOMAN NO IDENTITY FOUND TILL NOW SS

Burdwan Rape and Murder Case: ধর্ষণ করে খুন? মহিলার মৃতদেহকে ঘিরে চাঞ্চল্য বর্ধমানে ! 

ওই মহিলা গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হলেন নাকি কেউ বা কারা তাকে খূন করেছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে।

ওই মহিলা গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হলেন নাকি কেউ বা কারা তাকে খূন করেছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে।

  • Share this:

বর্ধমান: অর্ধদগ্ধ অবস্থায় একজন অজ্ঞাত পরিচয় মহিলার মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল বর্ধমানে! বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় বাসিন্দারা মৃতদেহটি দেখতে পান। মৃতদেহটি অল্প বয়সী একটি মেয়ের বলে অনুমান স্থানীয়দের। খবর পেয়ে বর্ধমান থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠায়। বর্ধমানের কাঞ্চনগরের মালিপাড়া এলাকায় নদীর বাঁধে এই ঘটনা ঘটেছে। মৃতার পরিচয় ও ঠিক কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে জোরদার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় ডি এস পি হেডকোয়ার্টার সৌভিক পাত্র ,এসডিপিও আমিনুল ইসলাম,ব র্ধমান থানার আইসি পিন্টু সাহা-সহ অনান‍্য পুলিশ আধিকারিকরা। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য  নিয়ে যাওয়া হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। মৃতদেহের আশপাশ থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা।

স্থানীয় সূত্রে  জানা গিয়েছে, স্থানীয় বাসিন্দারা সকালে মাঠে কাজ করতে যাওয়ার সময় দেখেন বাঁধের ধারে জমির আলে অর্ধদগ্ধ এক মহিলা মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। মৃতদেহটি নগ্ন অবস্থায় থাকার জন্য তাদের অনুমান ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে।

মৃতদেহের পাশ থেকে দেশলাই ও একটি পোড়া প্লাস্টিকের বোতল পাওয়া গিয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। জেলা পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, মৃতদেহটি এলাকার বাইরের কোন মহিলার বলেই মনে করা হচ্ছে। সবার আগে তার পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। সেই সঙ্গে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ কি তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশপাশের থানা এলাকায় বা জেলার কোথাও কোনও মহিলা নিখোঁজ রয়েছেন কিনা সেই তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। মহিলার পরিচয় জানা গেলে তাঁর মৃত্যুর কারণ জানা অনেকটাই সহজ হবে বলে মনে করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ময়না তদন্তের রিপোর্টে খতিয়ে দেখা হবে। ওই মহিলা গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হলেন নাকি কেউ বা কারা তাকে খূন করেছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: