• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN AFGHANISTAN AFGHAN PEOPLE WHO STAY HERE IN BARDHAMAN ARE WORRIED ABOUT THEIR FAMILY IN AFGHANISTAN SWD

Afghanistan: দেশ তালিবানদের দখলে! এ রাজ্যের কাবুলিওয়ালারা কতটা উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছেন

Afghanistan: এখানে সেখানে আগুন, বোমা, হত্যার ছবি দেখে আগেই ঘুম উড়েছিল এ রাজ্যে বসবাসকারী কাবুলিওয়ালাদের।

Afghanistan: এখানে সেখানে আগুন, বোমা, হত্যার ছবি দেখে আগেই ঘুম উড়েছিল এ রাজ্যে বসবাসকারী কাবুলিওয়ালাদের।

  • Share this:

#বর্ধমান: দেশ তালিবানদের দখলে, উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছেন এ রাজ্যের কাবুলিওয়ালারা। এখানে সেখানে আগুন, বোমা, হত্যার ছবি দেখে আগেই ঘুম উড়েছিল এ রাজ্যে বসবাসকারী কাবুলিওয়ালাদের। এখন পরিবার পরিজনদের কথা ভেবে উৎকন্ঠার প্রহর কাটাচ্ছেন তাঁরা। পেটের তাগিদে দেশ ছেড়ে এখন তাঁরা এ রাজ্যে। কিন্তু মন পড়ে রয়েছে অশান্ত আফগানিস্তানে।

বর্ধমান শহরের কুন্ডু পুকুর পাড় যেন এক টুকরো আফগানিস্তান।কাছাকাছির মধ্যে কয়েকটা ঘরে বসবাস করেন কাবুলিওয়ালারা। ব্যবসার কাজে পরিশ্রম চলে দিনভর। কেউ আছেন ১০ বছর, কেউ ২০ বছর। এখানেই সংসার। তবে আত্মীয় পরিজনরা বেশিরভাগই আফগানিস্তানে। সেই আফগানিস্তান এখন তালিবানি কব্জায়। শহর কাবুলও তাদের দখলে, যা নিয়ে উদ্বিগ্ন আফগানিস্তানের মানুষ সহ গোটা বিশ্ব। বর্ধমানে ব্যবসা সূত্রে থাকা আফগানীদেরও চোখে মুখেও উদ্বেগ।

পরিবার পরিজনদের কথা ভেবে রাতের ঘুম উধাও হয়ে গিয়েছে তাঁদের। তালিবানরা দেশে সরকার গড়ার পরে সেই সরকার দেশবাসীদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করবে, মহিলাদের প্রতি তাদের আচার আচরণ কী হবে তা নিয়েই চরম চিন্তায় দিন কাটছে তাঁদের। বললেন, অনেকেই কর্মস্থলে আগের মতো যেতে পারছেন না, এখানে সেখানে অনেককে প্রকাশ্যে খুন করা হচ্ছে, মারাত্মক সব আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তালিবানরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এসব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত ছড়িয়ে পড়ছে। তার কোনটা আসল, কোনটা মিথ্যা বোঝার উপায় নেই। তবে এসব দেখে আত্মীয় পরিজনদের কথা ভেবে আতঙ্কে দু চোখের পাতা এক করা যাচ্ছে না।

বর্ধমানে ব্যবসা সূত্রে আফগানিস্তান থেকে আসা জরিফ খান ও আভি খান জানান, দেশের অবস্থা স্পর্শকাতর। সম্পূর্ণ দেশ এখন তালিবানদের কব্জায়। সাধারণ দেশবাসী এখন চরম সমস্যায়। তারা আতঙ্কিত। জরিফ খান বলছেন, "আমারও পরিবার থাকে পতরিয়ায়। সেখানেই বাবা,মা সহ পরিবারের সবাই থাকে। তাঁদের জন্য চিন্তা হচ্ছে। রাতের ঘুম উধাও হয়ে গিয়েছে। সরকারে যাঁরা এসেছে, তাঁরা দেশবাসীদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করবেন এই নিয়েই চিন্তায় আছে পরিবার। নেট ও ফোনেও সবসময় যোগাযোগ হয়ে উঠেছে না। সেই সময়ে চিন্তা আরও বাড়ছে। আশা করি এই সমস্যা খুব তাড়াতাড়ি কেটে যাবে।

শরদিন্দু ঘোষ

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: