• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • West Bengal Corona News|| উদ্বেগের সঙ্গে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, গোষ্ঠী সংক্রমণের আতঙ্কে কাঁটা প্রশাসন

West Bengal Corona News|| উদ্বেগের সঙ্গে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, গোষ্ঠী সংক্রমণের আতঙ্কে কাঁটা প্রশাসন

West Bengal Corona News, East BardhamanCovid-19 Updates: পূর্ব বর্ধমান জেলার শহর এলাকাগুলিতে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করেছে। এ ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে গোষ্ঠী সংক্রমণ আর বিশেষ দূরে নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

West Bengal Corona News, East BardhamanCovid-19 Updates: পূর্ব বর্ধমান জেলার শহর এলাকাগুলিতে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করেছে। এ ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে গোষ্ঠী সংক্রমণ আর বিশেষ দূরে নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

West Bengal Corona News, East BardhamanCovid-19 Updates: পূর্ব বর্ধমান জেলার শহর এলাকাগুলিতে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করেছে। এ ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে গোষ্ঠী সংক্রমণ আর বিশেষ দূরে নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

  • Share this:

#বর্ধমানঃ ফের পূর্ব বর্ধমান জেলার শহর এলাকাগুলিতে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করেছে। এ ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে গোষ্ঠী সংক্রমণ আর বিশেষ দূরে নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, গত কয়েক দিনে শহর এলাকায় যেভাবে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে তা যথেষ্টই উদ্বেগজনক। গত দু'বার জেলার সদর শহর বর্ধমানে ব্যাপকভাবে গোষ্ঠী সংক্রমণ লক্ষ্য করা গিয়েছিল। এ বারও এই শহরে ব্যাপকভাবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার তথ্য সামনে আসছে।

গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ২২১ জনের মধ্যে ৮৬ জনই বর্ধমান শহর এলাকার বাসিন্দা। গত দু-তিন দিন এই এই শহরে দেড়শোর কাছাকাছি বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। শহরের ৩৫ ওয়ার্ডের প্রায় সব জায়গাতেই ফের নতুন করে সংক্রমণ  ছড়ানোর বিষয়টি সামনে আসছে। মেমারি পুরসভা এলাকাতেও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন সাত জন। কাটোয়া পৌরসভা এলাকায় ৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। কালনা পুরসভা এলাকাতেও ৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গুসকরা পৌরসভা এলাকায় আক্রান্ত হয়েছেন দু'জন। এ ছাড়া দাঁইহাট পৌরসভা এলাকায় একজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

আরও পড়ুন: ২ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী মেধাবী ছাত্র, আজ সকালে পরিণতি হল মারাত্বক...

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত কয়েক মাসে সংক্রমণ একেবারেই কমে গিয়েছিল। শহরের বাসিন্দাদের মধ্যে ১৮ বছর বয়সের বেশি অনেকেই করোনার দুটি ডোজ নিয়ে নিয়েছেন। এই দুই কারণে বাসিন্দারা করোনাকে বিশেষ পাত্তা দিচ্ছিলেন না। মাস্কে মুখ না ঢেকে, শারীরিক দূরত্ব বজায় না রেখেই মেলামেশা করেছেন অনেকেই। তার ওপর বড়দিন সহ উৎসবের দিনগুলিতে বিভিন্ন পিকনিক স্পট, পার্ক, চিড়িয়াখানায় ব্যাপক ভিড় হয়েছিল। বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক জমায়েতও হয়েছে। এসব কারণেই সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: সেরার সেরা বীরভূম! জেলাশাসক নিজেই মাটি কাটলেন কোদাল দিয়ে,  কিন্তু কেন?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার দুটি ডোজ নিলেও সংক্রমণ হবে না এমন কোনও নিশ্চয়তা নেই। তা ছাড়া ভ্যাকসিন নিয়েছেন এমন পুরুষ মহিলাদের মাধ্যমে আক্রান্ত হতে পারেন শিশুরা, ১৮ বছরের কম বয়সীরা। কারণ তারা এখনও করোনার ভ্যাকসিন নেয়নি। এই শীতে বয়স্করা করোনায় আক্রান্ত হলে তা জটিল আকার ধারণ করতে পারে। তাই বাসিন্দাদের এখন আরও সতর্ক হওয়া জরুরি।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: