Jitendra Tiwari: 'ভোটে জিতলেই রাম মন্দির দর্শন', বাংলায় বিহার 'ফেরালেন' জিতেন্দ্র

Jitendra Tiwari: 'ভোটে জিতলেই রাম মন্দির দর্শন', বাংলায় বিহার 'ফেরালেন' জিতেন্দ্র

জিতেন্দ্রর 'অস্ত্র' রাম মন্দির

একই সুর শোনা গেল জিতেন্দ্রর গলায়। ভোটে জেতালেই নিয়ে যাওয়া হবে অযোধ্যায় রাম মন্দির ঘোরাতে, জিতেন্দ্রের এই দাবিতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

  • Share this:

    #আসানসোল: বিহারের বিধানসভা ভোটের 'ছায়া' বাংলায়। যোগী আদিত্যনাথ থেকে নরেন্দ্র মোদি, বিজেপি নেতারা এ রাজ্যে এসে 'রাম' নিয়ে রাজনৈতিক চাল দেবেন, তাতে আশ্চর্যের কিছু নেই। কিন্তু সদ্য তৃণমূলত্যাগী, পাণ্ডবেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী জিতেন্দ্র তিওয়ারি যা করলেন, তাতে অনেকের মনেই উঠে আসছে বিহার বিধানসভার প্রচারপর্ব। বিহারে নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে রাম মন্দির ইস্যুকেই হাতিয়ার করেছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি বলেছিলেন, 'আপনারা যদি বিজেপি প্রার্থীকে জেতান, আর সে যদি বিধায়ক হয়, তাহলে তিনিই আপনাদের রাম মন্দির দর্শন করতে নিয়ে যাবেন।' কার্যত সেই একই সুর শোনা গেল জিতেন্দ্রর গলায়। ভোটে জেতালেই নিয়ে যাওয়া হবে অযোধ্যায় রাম মন্দির ঘোরাতে, জিতেন্দ্রের এই দাবিতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

    জিতেন্দ্র তিওয়ারির সেই প্রতিশ্রুতি নিয়ে সরব হয়েছে বিরোধীরা। এমনকী আসরে নামতে হয়েছে নির্বাচন কমিশনকেও। নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগ জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে শোকজ করল কমিশন।

    কেন হঠাৎ রামমন্দিরের প্রসঙ্গে টেনে আনলেন জিতেন্দ্র? ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্টের মাধ্যমে জিতেন্দ্র দাবি করেন, 'পাণ্ডবশ্বরের তৃণমূল প্রার্থী ভোট প্রচারে বেরিয়ে হুমকি দিচ্ছেন। পাণ্ডবেশ্বরের বাসিন্দাদের রাম নাম করতে বা অযোধ্যায় যেতে বারণ করা হয়েছে। কথা না শুনলে নাকি পা ভেঙে দেওয়া হবে।' জিতেন্দ্রর কথায়, 'ফের একবার নির্বাচিত হলে সবাইকে অযোধ্যায় রামলালার দর্শনে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেছি।'

    এরপরই জিতেন্দ্রর বিরুদ্ধে কমিশনে অভিযোগ করে তৃণমূল। এরপরই জিতেন্দ্রকে শোকজ করে নির্বাচন কমিশন। অপরদিকে, ‘ইচ্ছাকৃতভাবে’ একের পর এক দলীয় নেতাদের তলব, প্রশাসনের ‘অপব্যবহার’, নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘনের মতো একগুচ্ছ অভিযোগ নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল। বুধবার দলের পক্ষ থেকে কমিশনকে চিঠি দিয়েছেন সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, গত পাঁচ বছর ধরে বিচারাধীন মামলায় তৃণমূলের দলীয় নেতাদের "ইচ্ছাকৃতভাবে" হেনস্থা করতে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থাগুলির অপব্যবহার করে চলেছে বিজেপি। ভোটের মুখে মদন মিত্র, কুণাল ঘোষ, বিবেক গুপ্ত-সহ তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতাকে তলব করেছে ইডি, সিবিআই-এর মতো সংস্থা। তা নিয়েই এবার নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল।

    Published by:Suman Biswas
    First published:

    লেটেস্ট খবর