Home /News /south-bengal /
Arjun Singh: অর্জুনের বিজেপি ত্যাগ কি ব্যারাকপুরে বিপাকে ফেলবে বিজেপিকে? 

Arjun Singh: অর্জুনের বিজেপি ত্যাগ কি ব্যারাকপুরে বিপাকে ফেলবে বিজেপিকে? 

অর্জুনের বিজেপি ত্যাগ কি ব্যারাকপুরে বিপাকে ফেলবে বিজেপিকে?

অর্জুনের বিজেপি ত্যাগ কি ব্যারাকপুরে বিপাকে ফেলবে বিজেপিকে?

পরিসংখ্যান দিয়ে তৃণমূলের বক্তব্য, ক্রমশ কমছে বিজেপির ভোট শতাংশ ৷ 

  • Share this:

আবীর ঘোষাল, কলকাতা: ব্যারাকপুর লোকসভায় শিল্পাঞ্চলের সাত বিধানসভায় ২০১৯ সালে অর্জুন সিং বিধানসভা ভিত্তিক ফল বিশ্লেষণে বিজেপি এগিয়ে ছিল ৫-২ ফলে। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের ফল বিশ্লেষণে দেখা গেল ৬-১ আসনে পিছিয়ে গিয়েছেন অর্জুন সিং (Arjun Singh)।

শতাংশের বিচারে পদ্ম ফুল শিবিরের ভোট কমেছে অনেকটাই। রাজনৈতিক মহলের জল্পনা, তৃণমূল কংগ্রেস বিভিন্ন বিধানসভা ভিত্তিক যে শক্তপোক্ত সংগঠন তৈরি করেছে তাতে ২০২৪-এর ভোটে বিজেপির রাজনৈতিক চাপ বাড়ছে। আর সে কারণেই রাজনৈতিক সমীকরণ বদলে ফেললেন ব্যারাকপুর লোকসভার বিজেপি সাংসদ। পরিসংখ্যান দিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস বলছে শতাংশের বিচারে ভোট বেড়েছে তাদের অনেকটাই।

আরও পড়ুন-স্বাস্থ্য বিমা রিনিউ করার আগে এই ৫ বিষয় পর্যালোচনা করে নিন; অন্যথায় ঠকতে হবে

ব্যারাকপুর বিধানসভায় ২০১৯ সালের ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছিল ৬০৫২৭ ভোট। শতাংশের বিচারে ৪১.২%। বিজেপি পেয়েছিল ৬৪০৪৬ ভোট। শতাংশের বিচারে যা প্রায় ৪৩.৬% ভোট ৷ ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস শতাংশের বিচারে সেখানে এগিয়ে যায় ৪৬% ভোটে। তৃণমূল কংগ্রেস পায় ৬৮৮৮৭ ভোট। বিজেপির ভোট আরও কমে হয় ৫৯৬৬৫ অর্থাৎ ৪০% ভোট।

নোয়াপাড়া বিধানসভা আসনে ২০১৯ সালেও এগিয়ে ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তারা পেয়েছিল ৭৮৯৫৭ ভোট। ২০২১ সালে সেই ভোট শতাংশ বেড়ে হয় ৪৯% যা ৯৪২০৩ ভোট। নোয়াপাড়ায় বিজেপি পেয়েছিল ২০১৯ সালে ৭৮৪৩১ অর্থাৎ ৪১.২%। ২০২১ সালে তা কমে যায় ৩৫% বা ৬৭৪৯৩ ভোট।

আরও পড়ুন-রাতে দুধের সঙ্গে এক চামচ ঘি মিশিয়ে খেলেই কেল্লা ফতে! বাড়বে যৌন ক্ষমতা

জগদ্দল বিধানসভা আসন। এই আসনকে কার্যত বলা হয় অর্জূনের গড়। ২০১৯ সালে এখানে বিজেপি পায় ৭৭৭৩৩ ভোট যা শতাংশের বিচারে ৪৫.১%। তৃণমূল কংগ্রেস সেখানে পেয়েছিল ৬৯৩৬৯ ভোট যা ৪০.৩%। ২০২১ সালে ফল বদলে তৃণমূল পায় ৪৮% ভোট যা ৮৭০৩০ ভোট। বিজেপির ভোট শতাংশ কমে হয় ৬৮৬৬৬ যা ৩৮% ভোট। একমাত্র ভাটপাড়া আসন ধরে রাখতে পেরেছে বিজেপি। যদিও বাবার পথ ধরে তৃণমূলে ফিরছেন বিজেপি বিধায়ক। ২০১৯ সালে বিজেপি পেয়েছিল এই আসনে ৬৪৬৮০ ভোট যা ৬০.৩%। তৃণমূল কংগ্রেস পায় ৩৪৯৭৩ ভোট যা শতাংশের বিচারে ৩২.৬%।

২০২১-এর বিধানসভায় তৃণমূল এই আসন হারলেও ভোট বাড়ে ১১%, বিজেপির ভোট কমে যায় প্রায় ৭%। যার ফলে তৃণমূল পায় ৪৩৫৫৭ ভোট, বিজেপি পায় ৫৭২৪৪ ভোট।বীজপুর বিধানসভায় বিজেপি লোকসভায় ভোট পেয়েছিল ৪৫.৩% যা ৫৮৯১২, তৃণমূল কংগ্রেস পায় ৩৯.২% যা ৫১০১৬ ভোট। বিধানসভা ভোটে তৃণমূলের ভোট বাড়ে ৯%, যার ফলে জোড়া ফুল শিবির পায় ৬৬৬২৫ ভোট। পদ্ম শিবিরের ভোট কমে হয় ৭.৩%, প্রাপ্ত ভোট হয় ৫৩২৭৮।

নৈহাটি বিধানসভা আসনে লোকসভায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় ৷ তৃণমূল পায় ৬৪৩৭৫ বা ৪৩.১% ভোট। বিজেপি পায় ৬৫৬০১ বা ৪৩.৯% ভোট৷ বিধানসভায় তৃণমূল সেখানে এগিয়ে যায় বহু ভোটে। তারা ৫০% ভোট পেয়ে যায় যা সংখ্যার বিচারে ৭৭৭৫৩ ভোট। বিজেপি পায় সংখ্যার বিচারে ৫৩২৭৮ ভোট যা ৩৮%। আমডাঙা বিধানসভা আসন বরাবরই তৃণমূল কংগ্রেস প্রাধান্য পেয়েছে। লোকসভায় তৃণমূল পেয়েছিল এই আসনে ৯৮৬৫৩ ভোট যা ৫০.৩%। বিধানসভায় এই আসন ধরে রাখলেও তৃণমূলের ভোট কমে ৪২% যা ৮৮৯৩৫ ভোট। বিজেপির ভোট গিয়ে দাঁড়ায় ৩০% পেয়ে ৬৩৪৫৫ ভোট যা লোকসভায় ছিল ৬২০৮৭ যা ৩২%।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: AITMC, Arjun singh

পরবর্তী খবর