Home /News /siliguri-wb /
Siliguri: জাতীয় পতাকা বানানোর চাহিদা প্রচুর, কিন্তু সঠিক পারিশ্রমিক নেই দর্জিদের!

Siliguri: জাতীয় পতাকা বানানোর চাহিদা প্রচুর, কিন্তু সঠিক পারিশ্রমিক নেই দর্জিদের!

সামনেই স্বাধীনতা দিবস। আর তা নিয়ে রীতিমত তোর জোর চলছে চারিদিকে।শুরু হয়েছে আজাদির অমৃত মহৎসব সমগ্র দেশ জুড়ে আর সেই সাথেই পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে পতাকা তৈরির কাজ।

  • Share this:

    #শিলিগুড়ি : সামনেই স্বাধীনতা দিবস। আর তা নিয়ে রীতিমত তোড়জোড় চলছে চারিদিকে। শুরু হয়েছে আজাদির অমৃত মহোৎসব সমগ্র দেশ জুড়ে আর সেই সাথেই পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে পতাকা তৈরির কাজ। কিন্তু যারা দেশের পতাকা তৈরি করছে তারাই রয়েছে অবহেলিত অবস্থায়। সভ্য সমাজে দর্জি ছাড়া যেন একেবারেই অচল। বস্ত্র ছাড়া মানুষ নিরুপায়। অথচ এই পরিধান করার বস্ত্র যারা তৈরি করে থাকেন এবং স্বাধীনতা দিবস বলে জাতীয় পতাকা নির্মাণ করছেন এই দর্জিরাই। তবুও যেন সেরকম ভাবে তাদের কদর নেই এই ব্যস্ততম সমাজে। দিন দিন বেড়েই চলেছে দ্রব্যমূল্য। সেই রাজস্ব বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যেন বেড়ে চলেছে পতাকা তৈরির সরঞ্জাম সমূহ। তবুও দেশের পতাকা হাসি মুখে তৈরি করে চলেছে কারিগরেরা। পরিশ্রম করেও সেই পরিমাণে পারিশ্রমিক পায় না তারা। পতাকা নির্মাণকারী দর্জি রুস্তম মন্ডল জানান, এবছর পতাকার চাহিদা প্রচুর তবে সময় খুব কম, কাজের চাপ অনেক বেশি, রোজ প্রায় ১২ ঘণ্টা কাজ করতে হয়

     

     

    কিন্তু পারিশ্রমিক গত -৫বছরের তুলনায় একেবারেই বাড়েনি। অথচ বাজারে কাপড় নেই, থাকলেও তা অনেক চড়া দাম দিয়ে কিনতে হচ্ছে। নানান রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাদের। তাই প্রশাসনের কাছে তাদের আর্জি যেন দর্জি ভাইদের দিকে একটু মুখ ফিরে তাকানোর হয়।

    আরও পড়ুনঃ বাড়ছে উৎকণ্ঠা! এখন‌ও নিখোঁজ তিস্তায় ঝাঁপ দেওয়া ডাক্তারি পড়ুয়া

     

     

    প্রসঙ্গত উল্লেখ করা যায়,বছরে তিন বার দেশের পতাকা তৈরি করেন শিলিগুড়ির চয়নপাড়ার দর্জিরা। এবার অমৃত মহৎসবের জন্য চাহিদা রয়েছে জাতীয় পতাকার। সারা বছর যেমন তেমন ভাবে চললেও। ২৩শে জানুয়ারি, ২৬শে জানুয়ারি ১৫ই অগাস্টের আগে চাহিদা বারে জাতীয় পতাকার।

    আরও পড়ুনঃ পুর নাগরিকদের আরও ভাল পরিষেবা দিতে চালু ৩ সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র

     

     

    কাপড়, সুতো করিগরদের মজুরি বৃদ্ধি পেলেও দেশের জন্য জাতীয় পতাকা তৈরি করতে চায় তারা। দেশের জন্য কাজ করে তারা আজ রাজ্য কেন্দ্র সরকারের কাছে বঞ্চিত। দেশের অমৃত মহোৎসব এবার হয়তো তাদের মুখে হাসি ফোটাবে।

     

     

     

    Anirban Roy

    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Siliguri

    পরবর্তী খবর