Home /News /purba-medinipur /
Purba Medinipur: শিশুদের দেহে অপুষ্টি মেটাতে ৫৪৫টি পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হল মুরগির বাচ্চা

Purba Medinipur: শিশুদের দেহে অপুষ্টি মেটাতে ৫৪৫টি পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হল মুরগির বাচ্চা

বিধায়ক এবং বিডিও এর উপস্থিতিতে তুলে দেওয়া হচ্ছে মুরগির ছানা। 

বিধায়ক এবং বিডিও এর উপস্থিতিতে তুলে দেওয়া হচ্ছে মুরগির ছানা। 

শিশুদের পুষ্টি ঘাটতি মেটাতে ও ডিম উৎপাদন বাড়াতে প্রায় সাড়ে পাঁচশো পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হল প্রাণী সম্পদ দফতর থেকে মুরগির বাচ্চা।

  • Share this:

    #পূর্ব মেদিনীপুর: শিশুদের পুষ্টি ঘাটতি মেটাতে ও ডিম উৎপাদন বাড়াতে প্রায় সাড়ে পাঁচশো পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হল প্রাণী সম্পদ দফতর থেকে মুরগির বাচ্চা। শিশুদের দেহে প্রয়োজনীয় পুষ্টি ঘাটতি মেটাতে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার বেশ কয়েকটি ব্লকে প্রাণী সম্পদ দফতর থেকে মুরগির ছানা। শিশুদের পুষ্টির ঘাটতি থাকা পরিবার চিহ্নিত করে, দেওয়া হচ্ছে দশটি করে মুরগির ছানা। বর্তমানে বাজারে অন্যান্য জিনিসের মত দাম বেড়েছে ডিমের। তাই শিশুদের পুষ্টির ঘাটতি মেটানোর পাশাপাশি ডিমের উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ বলে জানা যায় প্রশাসন সূত্রে। মহিষাদল ব্লকের প্রাণী সম্পদ দপ্তরের উদ্যোগে ৬টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট ৫৪৫টি পরিবারকে ১০টি করে মুরগি বাচ্চা বিতরণ করা হল। ৬ টি গ্রাম পঞ্চায়েত হল কিসমৎ নাইকুন্ডি, গড় কমলপুর, অমৃতবেড়িয়া, নাটশাল -২, ইটামগরা -১ ও রমণী মোহন গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন গ্রামের মধ্যে ৫৪৫টি পরিবারকে চিহ্নিত করে তুলে দেওয়া হয় মুরগির ছানা। মুরগির ছানা বিতরণ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন মহিষাদল এর ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক যোগেশ চন্দ্র মন্ডল ও মহিষাদল এর বিধায়ক তিলক চক্রবর্তীর সহ প্রমুখ।

    মহিষাদল ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক জানান, শিশুদের পুষ্টি ঘাটতি দূর করতে ও ডিম উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে এই মুরগী বাচ্চা ৫৪৫টি পরিবারকে দেওয়া হল। কারণ ব্লকের বিভিন্ন শিশুআলয় বা অঙ্গনওয়াড়ী কেন্দ্রগুলিতে বাহির থেকে ডিম আনতে হয়। এই পরিবারগুলি যদি ঠিক মত ভাবে মুরগীর বাচ্চাগুলিকে পালন করে বড় করে তুলে। তাহলে মুরগি ডিমের উৎপাদন বাড়বে। তাতে বাড়ির বাচ্চারা খেয়েও বাজারে অনেক বিক্রি হবে, ফলে আর্থিক দিক থেকে লাভবান হবে ওই পরিবার।'

    আরও পড়ুনঃ ট্রাকে করে পাচারের আগেই উদ্ধার ৪০০ কেজি গাঁজা!

    ব্লকের প্রাণী সম্পদ বিকাশ আধিকারিক ডা: রতন বোস বলেন, 'বর্তমানে বাজারে ডিমের দাম অন্যান্য জিনিসের মতই বেড়েছে। ব্লকে বেশ কিছু পরিবারের শিশুদের পুষ্টির ঘাটতি আছে। সেইসব পরিবারকে চিহ্নিত করে ১০টি করে মুরগীর বাচ্চা দেওয়া হয়েছে। মুরগি প্রতিপালন আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া পরিবারের জন্য লাভজনক।

    আরও পড়ুনঃ জেলা পুলিশের নির্দেশে প্রতিটি থানায় সাইবার সংক্রান্ত অভিযোগ জানাতে পারবে সাধারণ মানুষ

    এই মুরগির বাচ্চা গুলিকে পালন করার পর তাদের ডিমগুলিকে প্রোটিন হিসেবে বাড়ির বাচ্চারা খাওয়া দাওয়া করবে এবং বিশেষত্ব কিছু উদ্বৃত্ত হলে বাজারেও বিক্রি করে সংসার চালানোর জন্য কিছু অর্থ উপার্জন হবে।' শুধু মহিষাদল ব্লক নয় পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ২৫ টি ব্লকের প্রায় প্রতিটি ব্লকে প্রাণী সম্পদ দফতরের উদ্যোগে বিভিন্ন সময়ে সাধারণ মানুষকে মুরগি ছানা বিতরণ করা হয়।

    Saikat Shee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Mahishadal, Purba medinipur

    পরবর্তী খবর