Mahashivratri 2021: রাতের চার প্রহরে কোন মন্ত্রে কী ভাবে উদযাপন করতে হয় এই ব্রত?

Mahashivratri 2021: রাতের চার প্রহরে কোন মন্ত্রে কী ভাবে উদযাপন করতে হয় এই ব্রত?

Mahashivratri 2021: রাতের চার প্রহরে কোন মন্ত্রে কী ভাবে উদযাপন করতে হয় এই ব্রত?

নিয়ম অনুসারে রাতের চারটি প্রহরে গঙ্গামৃত্তিকা দিয়ে নিজে হাতে তৈরি করতে হয় চারটি শিবলিঙ্গ।

  • Share this:

#কলকাতা: নাম থেকেই স্পষ্ট যে দেবাদিদেব শিবের উদ্দেশে নিবেদিত ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথির এই ব্রত উদযাপন করতে হয় রাতে। নিয়ম অনুসারে রাতের চারটি প্রহরে গঙ্গামৃত্তিকা দিয়ে নিজে হাতে তৈরি করতে হয় চারটি শিবলিঙ্গ। তার পর নির্দিষ্ট নিয়মে, নির্দিষ্ট মন্ত্রে তার উপাসনা করতে হয়।

তবে এই পূজায় বসা আগে উপবাসের মাধ্যমে আত্মশুদ্ধি অবশ্য কর্তব্য বলে উল্লেখ করা হয়েছে শাস্ত্রে। সাধারণত নির্জলা উপবাসই বিধেয়, কেউ অসমর্থ হলে ডাবের জল বা ফল খেতে পারেন।

এই বছরে ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশী তিথিটি শুরু হচ্ছে ১১ মার্চ দুপুর ২টো ৩৯ মিনিট থেকে, শেষ হচ্ছে ১২ মার্চ দুপুর ৩টে ০২ মিনিটে। দেখে নেওয়া যাক যে রাতের চারটি প্রহর পঞ্জিকা মতে কখন পড়ছে এবং এই চার প্রহরে কী ভাবে শিবের আরাধনা করা কর্তব্য!

প্রথম প্রহর শুরু হচ্ছে সন্ধ্যা ৬টা ২৭ মিনিটে, শেষ হচ্ছে রাত ৯টা ২৯ মিনিটে। এই প্রহরে শিবের নাম ঈশান। তাই ইদং স্নানীয় দুগ্ধং ওঁ হৌং ঈশানায় নমঃ মন্ত্রে দুধ দিয়ে অভিষেক করে, তার পরে গঙ্গাজলে অভিষেক করে শিবকে অর্ঘ্য অর্থাৎ ফুল-বেলপাতা অর্পণ করতে হয়।

দ্বিতীয় প্রহর শুরু হচ্ছে রাত ৯টা ২৯ মিনিটে, শেষ হচ্ছে রাত ১২টা ৩১ মিনিটে। এই প্রহরে শিবের নাম অঘোর। তাই ইদং স্নানীয় দধিং ওঁ হৌং অঘোরোয় নমঃ মন্ত্রে দই দিয়ে অভিষেক করে, তার পরে গঙ্গাজলে অভিষেক করে শিবকে অর্ঘ্য অর্থাৎ ফুল-বেলপাতা অর্পণ করতে হয়।

তৃতীয় প্রহর শুরু হচ্ছে রাত ১২টা ৩১ মিনিটে, শেষ হচ্ছে রাত ৩টে ৩২ মিনিটে। এই প্রহরে শিবের নাম বামদেব। তাই ইদং স্নানীয় ঘৃতং ওঁ হৌং বামদেবায় নমঃ মন্ত্রে ঘি দিয়ে অভিষেক করে, তার পরে গঙ্গাজলে অভিষেক করে শিবকে অর্ঘ্য অর্থাৎ ফুল-বেলপাতা অর্পণ করতে হয়।

চতুর্থ প্রহর শুরু হচ্ছে রাত ৩টে ৩২ মিনিটে, শেষ হচ্ছে ভোর ৬টা ৩৪ মিনিটে। এই প্রহরে শিবের নাম সদ্যোজাত। তাই ইদং স্নানীয় মধুং ওঁ হৌং সদ্যোজাতায় নমঃ মন্ত্রে মধু দিয়ে অভিষেক করে, তার পরে গঙ্গাজলে অভিষেক করে শিবকে অর্ঘ্য অর্থাৎ ফুল-বেলপাতা অর্পণ করতে হয়।

যে কোনও ব্রতের পরের দিনে উপবাস ভঙ্গের একটা নির্দিষ্ট সময় থাকে। এই উপবাস ভঙ্গের প্রক্রিয়াকে বলা হয় পারণ। এই বছরে মহাশিবরাত্রির পারণ হবে ১২ মার্চ ভোর ৬টা ৩৪ মিনিট থেকে দুপুর ৩টে ০২ মিনিটের মধ্যে। এই সময়ের মধ্যে শিবকে অন্ন নিবেদন করে প্মাম করতে হবে এই মন্ত্র উচ্চারণ করে- ওঁ সংসার ক্লেশদগ্ধস্য ব্রতেনানেন শঙ্কর/প্রসীদ সুমুখ নাথ জ্ঞান দৃষ্টিপ্রদ ভব। একমাত্র এর পরেই উপবাস ভঙ্গ করা বিধেয়।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: