Assembly Election 2021: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে উদ্বিগ্ন নির্বাচন কমিশন, রাত পোহালেই নয়া গাইডলাইন প্রকাশ...

Assembly Election 2021: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে উদ্বিগ্ন নির্বাচন কমিশন, রাত পোহালেই নয়া গাইডলাইন প্রকাশ...

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে চিন্তিত নির্বাচন কমিশন, প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের গ্রাফ। আগামিকাল প্রকাশিত হবে নতুন গাইডলাইন।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে চিন্তিত নির্বাচন কমিশন, প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের গ্রাফ। আগামিকাল প্রকাশিত হবে নতুন গাইডলাইন।

  • Share this:

#শিলিগুড়িঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে চিন্তিত নির্বাচন কমিশন, প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের গ্রাফ। আগামিকাল প্রকাশিত হবে নতুন গাইডলাইন। রাজনৈতিক দলের নেতা, কর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষদেরও কোভিড গাইডলাইন মানতে আহ্বান কমিশনের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরার। প্রতিটি বুথেই হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার বাধ্যতামূলক। ভোটারদের থার্মাল চেকিং করা হবে। গ্লাভস পড়তে হবে। মাস্ক এবং ফেস শিল্ড ব্যবহার করতে হবে। দূরত্ববিধি মেনে চলতে হবে। নইলে ভোট দিতে দেওয়া হবে না।

করোনার জন্যে রাজ্যে ৩১ শতাংশ অতিরিক্ত বুথ করা হয়েছে। যাতে ভিড় কমানো যায়। এ বারে সাধারণ নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের নজর রাখবে বিশেষ নির্বাচন পর্যবেক্ষক এবং বিশেষ অবজার্ভারদের নজর রাখবে নির্বাচন কমিশন। নয়া বিধি চালু। ইতিমধ্যেই মহিলা পুলিশকর্মীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে একজন সাধারণ অবজার্ভারকে। কারণ অবাধ এবং শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন পরিচালনা করাই একমাত্র লক্ষ্য নির্বাচন কমিশনের।

এ দিকে, মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও দার্জিলিংয়ে গোর্খাল্যাণ্ড টেরিটোরিয়াল এডমিনিস্ট্রেশনে চেয়ারম্যান পদে বহাল রয়েছেন অনীত থাপা। যেখানে প্রতিটি পুরসভার প্রশাসক সরিয়ে সরকারী আধিকারীকদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, সেখানে কেন উল্টো ছবি জিটিএ-তে? মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানান, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মুখ্য নির্বাচনী আধিকারীককে এ নিয়ে রিপোর্ট পেশ করতে হবে। বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, একাধিক খুন-সহ রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় অভিযুক্ত মোর্চা নেতা বিমল গুরুং বহাল তবিয়তে নির্বাচনী প্রচার সারছেন পাহাড় থেকে সমতলে। এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে তবে সংবাদমাধ্যমে কিছু বলব না। কমিশন বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।মঙ্গলবার দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত শিলিগুড়িতে উত্তরের ৮ জেলার জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারদের নিয়ে বৈঠক করে কমিশনের ফুল বেঞ্চ। কমিশনার জানান, সুষ্ট ও অবাধ নির্বাচনের জন্যে রাজ্যে নির্বাচন কমিশন ২০৯ জন সাধারন পর্যবেক্ষক ৫৫জন পুলিশ পর্যবেক্ষক এবং ৮৫ জন আয়-ব্যয় পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে। এ ছাড়া রাজ্যের নির্বাচনকে অবাধ এবং শান্তিপূর্ণভাবে পরিচালনা করার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে।

Partha Sarkar

Published by:Shubhagata Dey
First published:

লেটেস্ট খবর