Home /News /north-bengal /
Malbazar: পুলিশি অভিযানেও বন্ধ হয়নি নদীতে বেআইনি এই কাজ, সংলগ্ন এলাকায় প্লাবনের আশঙ্কা

Malbazar: পুলিশি অভিযানেও বন্ধ হয়নি নদীতে বেআইনি এই কাজ, সংলগ্ন এলাকায় প্লাবনের আশঙ্কা

নদী সংলগ্ন এলাকা থেকে একটি মাটি কাটার যন্ত্র,দুটি ডাম্পার এবং এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ

নদী সংলগ্ন এলাকা থেকে একটি মাটি কাটার যন্ত্র,দুটি ডাম্পার এবং এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ

Malbazar: পুলিশ অভিযান এর পরেও বন্ধ হচ্ছেনা মালবাজারের ঘীস নদীতে বেআইনি খনন কাজ।

  • Share this:

    মালবাজার : পুলিশ অভিযানের পরেও বন্ধ হচ্ছে না মালবাজারের ঘিস নদীতে বেআইনি খনন কাজ। ধারাবাহিক খবরের জেরে ফের মঙ্গলবার রাতে ঘিস নদীতে অভিযান। অভিযান চালিয়ে মালবাজার থানার পুলিশ আটক করল মেশিন, গ্রেপ্তার  এক ।

    রাতের আঁধারে নদীর বুকে মেশিন দিয়ে চলছিল নদী খনন করে বালি ও পাথর তোলার কাজ। খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ভারী যন্ত্র-সহ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করল মালবাজার থানার পুলিশ। ঘটনা ঘটেছে ওদলাবাড়ি এলাকার ঘিস নদীর চরে।

    অভিযোগ, মঙ্গলবার রাতের অন্ধকারে ঘিস নদীতে মেশিনের সাহায্যে অবৈধ খননের কাজ চলছিল। খবর  পেয়ে অভিযান চালালো মালবাজার থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  মঙ্গলবার রাত ১১টার পর মালবাজারে এসডিপিও  রবীন থাপা এবং আই সি সুজিত লামার নেতৃত্বে পুলিশের একটি বিশাল বাহিনী ঘিস নদী সংলগ্ন এলাকা থেকে একটি মাটি কাটার যন্ত্র,দুটি ডাম্পার এবং এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

    আরও পড়ুন : পোষা সারমেয়র আক্রমণ নিয়ে বিবাদ, ইটের আঘাতে নিহত ১

    আই সি সুজিত লামা বলেন, ‘‘আমাদের কাছে খবর ছিল রাতের অন্ধকারে প্রায় দিনই ঘিস নদীর বুকে অবৈধ খননের কারবার চলে। সেই মতো মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালানো হয়। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিকে এদিন জলপাইগুড়ি আদালতে পেশ করা হয়েছে। ধৃতকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।’’

    আরও পড়ুন : অল্প শ্রমে রোগা হতে চান? রোজ পান করুন আখরোটের খোসার জল

    দীর্ঘ দিনের অভিযোগ, ওদলাবাড়ির ঘিস নদী খাদান মাফিয়াদের কেন্দ্র। কয়েক বছর আগে চর দখল নিয়ে একজন খুন হন। কয়েক দিন আগে পুলিশ আক্রান্ত হয়। বার বার সতর্ক করা ও অভিযান চালানো সত্বেও বালিপাথর তোলা থামেনি। রাতের আঁধারেও বেআইনি ভাবে চলছে কাজ। যা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে সোচ্চার হয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দা থেকে শুরু করে পরিবেশপ্রেমীরা । পরিবেশপ্রেমীদের অভিযোগ, এই ভাবে অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে নদীর বুক থেকে বালি পাথর তুলে নিলে প্লাবিত হতে পারে পার্শ্ববর্তী বিস্তীর্ণ এলাকা এবং গ্রাম।

    ( প্রতিবেদন  : রকি চৌধুরী)

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Jalpaiguri, Malbazar

    পরবর্তী খবর