Home /News /north-bengal /

পাহাড়ে পালাবদল, মোর্চা অফিসের দখল নিলেন বিনয় তামাং, সরল গুরুঙের ছবি

পাহাড়ে পালাবদল, মোর্চা অফিসের দখল নিলেন বিনয় তামাং, সরল গুরুঙের ছবি

Morcha Office

Morcha Office

পাহাড়ে পালাবদল, মোর্চা অফিসের দখল নিলেন বিনয় তামাং, সরল গুরুঙের ছবি

  • Share this:

    #দার্জিলিং: বৃত্ত সম্পূর্ণ হল পাহাড়ে। পালাবদল ঘটে গেল মোর্চা নেতৃত্বে। বিনয় তামাঙের নামে সিলমোহর পড়ে গেল আজ। দলের ১১ তম প্রতিষ্ঠাদিবসে কালিম্পঙের ডাম্বারচকে মোর্চার পার্টি অফিসের দখল নেন বিনয়পন্থী মোর্চা সমর্থকরা। দেওয়ালে টাঙানো বিমল গুরুঙের ছবি সরিয়ে দেওয়া হয়। ঠিক একসময় সুবাস ঘিসিংকে যেমন গুরুত্বহীন করে দিয়েছিলেন গুরুং।

    সুবাস ঘিসিংয়ের গাড়িচালক থেকে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার স্টিয়ারিং। দশ বছর আগে, ২০০৭ সালের এই দিনেই পাহাড়ে সুবাস ঘিসিংয়ের জিএনএলএফ-কে মুছে দিয়ে বিমল গুরুঙের নেতৃত্বে আত্মপ্রকাশ করেছিল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। তারপর, জিটিএ থেকে পৃথক রাজ্যের দাবিতে আন্দোলন। রাশ ছিল বিমল গুরুঙের হাতেই। তাঁর তেজে পাহাড় ছাড়তে হয়েছিল একসময়ের দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতা সুবাস ঘিসিংকেও। প্রিয় দার্জিলিঙে আর ওঠা হয়নি সুবাসের। সেই পাহাড়েই আরও একটি বৃত্ত সম্পূর্ণ হল।

    পাহাড়ে অদৃশ্য দেওয়াল লিখন পড়াই যাচ্ছিল। বিনয় তামাংই মোর্চার নেতা। শনিবার তাতেই সিলমোহর পড়ল। শনিবার, দলের এগারো তম প্রতিষ্ঠা দিবসে, কালিম্পঙের ডাম্বারচকের পার্টি অফিসে ঢোকেন মোর্চা কর্মী-সমর্থকরা। সরিয়ে দেওয়া হয় বিমল গুরুঙের ছবি।

    ছবি সরিয়ে দিয়ে আত্মগোপন করে থাকা বিমল গুরুংকে ঘুরিয়ে বার্তা দিয়েছে মোর্চা। আর তা নিয়ে কৌশলী পদক্ষেপ বিনয়ের। বিমল গুরুং থেকে বিনয় তামাং। কোন সমীকরণে বদলে গেল পাহাড়ের নেতা?

    বিমলের জায়গায় বিনয়

    - পাহাড়ে টানা ১০৪ দিনের বনধ - অথচ দেখা মেলেনি নেতা বিমল গুরুঙের - মামলার খাঁড়া ঝুলছে দেখে বেপাত্তা হয়ে যান বিমল - পাহাড়বাসী তীব্র অসুবিধায় পড়লেও কোনও বার্তা দেননি গুরুং - উলটে গোপন স্থান থেকে বন্্ধ চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে গেছেন - পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে এগিয়ে আসেন বিনয় তামাং - নানাভাবে পাশে দাঁড়িয়ে পাহাড়বাসীর বড় অংশের সমর্থন আদায় করে নেন তিনি

    মোর্চার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। বিমল গুরুঙের খুবই কাছের লোক বলেই পরিচিত ছিলেন বিনয় তামাং। ঠিক যেমন সুবাস ঘিসিংয়ের প্রিয়পাত্র ছিলেন বিমল। আনুষ্ঠানিক ভাবে দায়িত্ব হাতে না পেলেও, দলের লাগাম যে এখন তাঁর হাতেই তা বিলক্ষণ বুঝেছেন বিনয়। তাই জমানা বদলের সঙ্গে সঙ্গে দলের কৌশল পরিবর্তনের ইঙ্গিতও দিয়েছেন মোর্চার মিস্টার কুল।

    গোর্খাল্যান্ড নিয়ে কেন্দ্রের ওপরেই চাপ বাড়াচ্ছেন বিনয়। শীতকালীন অধিবেশনেই গোর্খাল্যান্ড বিল পেশের দাবি তুলেছেন তিনি।

    First published:

    Tags: Bimal gurung, Binay Tamang, Darjeeling, Gorkha janamukti morcha, Hill Politics, Kalimpong, Morcha Office

    পরবর্তী খবর