সেনা ইস্যুতে উত্তাল সংসদ ! পশ্চিমবঙ্গে সেনা মোতায়েন নিয়ে জবাব প্রতিরক্ষামন্ত্রীর

তৃণমূলের রাজ্য থেকে সেনা প্রত্যাহারের দাবিতে জবাব দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকর ৷

  • Last Updated :
  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: পশ্চিমবঙ্গে সেনা নজরদারিতে এখন আক্রমণাত্মক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এবার কার্যত যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরাজ্যের বিভিন্ন টোল প্লাজায় সেনা নজরদারির প্রতিবাদে আজ উত্তাল হল সংসদ অধিবেশনও ৷ তৃণমূলের রাজ্য থেকে সেনা প্রত্যাহারের দাবিতে জবাব দিলেন  প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকর ৷

    সেনার নজরদারি প্রসঙ্গে মনোহর পারিকর বলেন, ‘‘ উত্তর-পূর্বে বিভিন্ন রাজ্যেই সেনা পাঠানো হয়েছে ৷ পরে অন্যান্য রাজ্যেও তল্লাশি চলবে ৷ পশ্চিমবঙ্গের পুলিশকে আগেই জানানো হয়েছিল ৷ ২৮ নভেম্বর বনধ থাকায় পুলিশের কথামতো দিন পিছনো হয় ৷ পুলিশের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত হয়েছে ৷ সেনার রুটিন তল্লাশিকে নিয়ে তাই অহেতুক বিতর্ক তৈরি হচ্ছে ৷ এটা রাজনৈতিক হতাশা ছাড়া আর কিছুই নয় ৷ ’’

    এর আগে তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় দাবি করেন, ‘‘বাংলায় যা হচ্ছে তা কখনও কোনও রাজ্যে ঘটেনি ৷ দ্বিতীয় হুগলি সেতুর পাশে নবান্ন ৷ সেখানে মুখ্যমন্ত্রী বসেন ৷ সেখানে হঠাৎ সেনা কনভয় চলে এল ! গাড়িতে সেনার স্টিকার লাগানো হচ্ছে ৷ কিন্তু রাজ্যেকে এসম্পর্কে কিছুই জানানো হয়নি ৷ সেনাকে নিয়ে বিতর্ক চাই না ৷ সেনারা সীমান্তে শহিদ হচ্ছেন ৷ সেনাদের জন্য আমরা সুরক্ষিত ৷ কিন্তু পুলিশকে কিছুই জানানো হয়নি ৷ স্থানীয় প্রশাসনকেও জানানো হয়নি ৷ সংবিধানে কোথায় এরকম লেখা আছে? ’’

    অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে সেনা মোতায়েন নিয়ে এদিন রাজ্যসভায়  সরব হন বহুজন সমাজবাদী পার্টির নেত্রী মায়াবতীও ৷ তিনি বলেন, ‘‘ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যা হচ্ছে সেটা অন্যায় ৷ ওখানে টোল প্লাজায় সেনা মোতায়েন হয়েছে ৷ আমি উত্তরপ্রদেশের চার বার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছি ৷ রাজ্যের অনুমতি না নিয়ে সেনা এলে তা সংবিধানের উপর আঘাত ৷’’

    First published:

    Tags: Army Deployment, Mamata Banerjee, Manohar Parrikar, Parliament, Rajyasabha, TMC, সংসদ