• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • 'চিরতরে তো কাউকে বন্দি রাখা যায় না!' মেহবুবা মুফতি মামলায় কেন্দ্রকে বলল শীর্ষ আদালত

'চিরতরে তো কাউকে বন্দি রাখা যায় না!' মেহবুবা মুফতি মামলায় কেন্দ্রকে বলল শীর্ষ আদালত

আপাতত শ্রীনগরে নিজের বাড়িতেই বন্দি করে রাখা হয়েছে মেহবুবা মুফতিকে৷

আপাতত শ্রীনগরে নিজের বাড়িতেই বন্দি করে রাখা হয়েছে মেহবুবা মুফতিকে৷

আগামী ১৫ অগাস্ট ফের মামলাটির বিস্তারিত শুনানি হবে৷ সেদিন সরকারি পক্ষকে সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে আসার জন্য নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: জনজীবনকে শান্ত রাখার অজুহাতে কাউকে কি এক বছরেরও বেশি সময় আইন বলে বন্দি করে রাখা যায়? পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতিকে বন্দি করে রাখার ঘটনায় মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় সরকার ও জম্মু কাশ্মীর প্রশাসনকে এই প্রশ্নই করল সুপ্রিম কোর্ট৷

    জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির মেয়ের দায়ের করা মামলার শুনানি চলাকালীন এ দিন বিচারপতি সঞ্জয় কে কলের বেঞ্চ এই প্রশ্ন তুলেছে৷ এ দিন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতাকে সুপ্রিম কোর্ট আরও প্রশ্ন করে, জন সুরক্ষা আইনে কি কাউকে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে এ ভাবে বন্দি করে রাখা যায়? বিচারপতি কল বলেন, 'এর আগেও অন্য একটি মামলায় এই প্রশ্ন উঠেছে৷ এ ভাবে কতদিন কাউকে আটকে রাখা যেতে পারে? চিরকাল তো কাউকে বন্দি করে রাখা যায় না?'

    আইনজীবী নিত্য রামকৃষ্ণণ এ দিন সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করেন, যাতে সংশোধনাগারের বন্দিরের মতোই মেহবুবা মুফতিকেও দিনে দু' বার ফোনে কথা বলার অনুমতি দেওয়া হয়৷ এর পরই বিচারপতিরা সলিসিটর জেনারেলের কাছে জানতে চান, ঠিক কতদিন মেহবুবা মুফতিকে বন্দি করে রাখতে চায় সরকার? এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কার্যত সতর্ক করে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা জানিয়ে দেন, যে কোনও মাধ্যম ব্যবহার করেই হোক সরকার যাতে বিষয়টির নিষ্পত্তি করে৷

    যদিও এ দিনই কোনও পর্যবেক্ষণ না জানানোর জন্য বিচারপতিদের কাছে আর্জি জানান সলিসিটর জেনারেল৷ তিনি দাবি করেন, মেহবুবা মুফতি অতীতে জনসমক্ষে এমন মন্তব্য করেছেন, যা জনজীবনে উত্তেজনা ছড়িয়েছে৷

    আগামী ১৫ অগাস্ট ফের মামলাটির বিস্তারিত শুনানি হবে৷ সেদিন সরকারি পক্ষকে সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে আসার জন্য নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷ যদিও নিজের রাজনৈতিক দলের সমাবেশে যোগ দেওয়ার জন্য মেহবুবা মুফতিকে অনুমতির আবেদন এ দিন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ প্রয়োজন অনুযায়ী স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছে মেহবুবা মুফতিকে অনুমতি চাইতে হবে বলে জানিয়েছে শীর্ষ আদালত৷ জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার এবং তাকে ভেঙে দু'টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার আগের দিন গত ৪ অগাস্ট মেহবুবা মুফতিকে গ্রেফতার করা হয়েছিল৷ শ্রীনগরে নিজের সরকারি বাসভবনেই বন্দি করে রাখা হয়েছে মেহবুবা মুফতিকে৷ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনকেই অস্থায়ী জেল হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: