• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • SONIA GANDHI APPEALS OPPOSITION LEADERS TO RISE ABOVE PERSONAL GAINS TO DEFEAT BJP DMG

Sonia Gandhi|| Mamata Banerjee: বিরোধী মতানৈক্য দূরে সরানোর বার্তা সনিয়ার, গণতন্ত্র বাঁচানোর ডাক দিলেন মমতা

সনিয়ার ডাকা বৈঠকে অংশ নিলেন মমতাও৷

সনিয়া গান্ধির ডাকা বৈঠকে এ দিন কলকাতা থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যোগ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ গত মাসের শেষে দিল্লিতে গিয়ে বিরোধী ঐক্যের সুর বেঁধে দিয়ে এসেছিলেন তৃণমূলনেত্রী (onia Gandhi|| Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: নিজেদের ক্ষুদ্র স্বার্থ ভুলে এবং যাবতীয় মতানৈক্য দূরে সরিয়ে ২০২৪-এ বিজেপি-কে হারাতে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে৷ কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধির ডাকে ১৯টি বিরোধী রাজনৈতিক দলের বৈঠক শেষের সারমর্ম এটাই৷ যেভাবে সংসদের বাদল অধিবেশনে একজোট হয়ে বিরোধীরা যে সরকারকে চাপে ফেলতে পেরেছেন, সেই বিষয়টি নিয়েও এ দিনের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে৷

    সনিয়া গান্ধির ডাকা বৈঠকে এ দিন কলকাতা থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যোগ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ গত মাসের শেষে দিল্লিতে গিয়ে বিরোধী ঐক্যের সুর বেঁধে দিয়ে এসেছিলেন তৃণমূলনেত্রী৷ এ দিনের বৈঠকেও তিনি বিরোধীদের একজোট হয়ে গণতন্ত্র রক্ষার ডাক দিয়েছেন৷ কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধিও বৈঠকে বলেছেন, প্রত্যেকটি দলের নিজস্ব বাধ্য বাধকতা থাকলেও বিজেপি-কে ক্ষমতা থেকে সরাতে একজোট হওয়া ছাড়া বিকল্প কোনও উপায় নেই৷ কাজটা কঠিন হলেও ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিরোধীরা ২০২৪-এ বিজেপি হারাতে পারেন বলেও বৈঠকে দাবি করেছেন সনিয়া গান্ধি৷

    সনিয়া গান্ধি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও এ দিনের বৈঠকে অংশ নেন ডিএমকে প্রধান ও তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিন, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধ্বব ঠাকরে, এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার, জেডিএসের এইচ ডি দেবেগৌড়ার মতো বিরোধী নেতারা৷ এ ছাড়াও সিপিএম, সিপিআই, সমাজবাদী পার্টি, ন্যাশনাল কনফারেন্স, আরজেডি-র মতো দলগুলির নেতারাও বৈঠকে অংশ নিয়েছেন৷ ফলে নিজেদের মধ্যে ঐক্যের ছবিটা জোরাল ভাবেই তুলে ধরা গিয়েছে বলে মত বিরোধী শিবিরের৷

    সূত্রের খবর, বৈঠকে সনিয়া গান্ধি বাকি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, 'এটা একটা কঠিন চ্যালেঞ্জ সন্দেহ নেই৷ কিন্তু আমাদের এই মুহূর্তে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতেই হবে এবং এ ছাড়া কোনও বিকল্প উপায় নেই৷ আমাদের প্রত্যেকেরই রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা আছে ঠিকই৷ কিন্তু দেশের প্রয়োজনে সে সমস্ত কিছুর ঊর্ধ্বে উঠে আমাদের কাজ করার সময় এসে গিয়েছে৷'

    কংগ্রেস সভানেত্রী আরও বলেন, '২০২৪ সালের নির্বাচনই প্রধান লক্ষ্য। দেশকে এমন এক সরকার উপহার দিতে হবে যারা স্বাধীনতা সংগ্রামের মূল্যবোধ পুনঃপ্রতিষ্ঠা করবে। ' সূত্রের খবর, বৈঠকে উপস্থিত বিরোধী শাসিত রাজ্যের সব মুখ্যমন্ত্রীই কংগ্রেস সভানেত্রীর সঙ্গে সহমত হয়েছেন৷ তাঁরা অভিযোগ করেন, বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলিকে হেনস্থা করছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ ফলে এবার সেই রাজ্যগুলিরও একজোট হয়ে কেন্দ্রের মোকাবিলায় নামতে হবে৷

    পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো এবং কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলির অপব্যবহার নিয়ে সরব হওয়ার জন্য বিরোধী নেতাদের কাছে আবেদন জানান৷ পাশাপাশি, করোনা প্রতিষেধক বণ্টন নিয়ে বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলির সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ নিয়েও সরব হওয়ার আর্জি জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

    এর পাশাপাশি পেগাসাস ইস্যু নিয়েও এ দিনের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে৷ মোটের উপরে, বিরোধী নেতারা একযোগে দাবি করেন, দেশের মানুষের কোনও সমস্যারই নিরসন করতে ব্যর্থ মোদি সরকার৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: