• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • MODI GOVT LIKELY TO ANNOUNCE BIG CHANGES IN WORKING HOURS PF AND TAKE HOME SALARY DETAILS INSIDE RC

অফিসে কাজের সময়-PF থেকে বেতন, বড়সড় বদল আনতে চলেছে মোদি সরকার

অফিসে কাজের সময়-PF থেকে বেতন, বড়সড় বদল আনতে চলেছে মোদি সরকার

নতুন প্রস্তাবে কী রয়েছে? জানুন...

পিএফ ও গ্র্যাচুইটি বাড়ার ফলে কোম্পানিগুলিরও কস্ট টু কোম্পানি বাড়বে। কারণ, তাদেরকেও কর্মীদের জন্য সমপরিমাণ টাকা পিএফ ও গ্র্যাচুইটিতে জমা করতে হবে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: অফিসে কাজের সময়, গ্র্যাচুইটি, প্রভিডেন্ট ফান্ড সংক্রান্ত তিনটি বিলে বিপুল পরিবর্তন আনতে চলেছে মোদি সরকার। আগামী ১ এপ্রিল থেকে কর্মীদের হাতে পাওয়া বেতনের পরিমাণও কমে যেতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে বাড়বে গ্র্যাচুইটি ও পিএফ জমার পরিমাণ। নতুন নিয়মে এই ভাতার পরিমাণ বেসিক পে-এর সবচেয়ে বেশি ৫০ শতাংশ হবে। এবং এটি শুরু হতে পারে এ বছরের এপ্রিল মাস থেকেই। ৭৩ বছরের স্বাধীন ভারতে এমন নিয়ম প্রথমবার লাগু হচ্ছে বলেই মনে করা হচ্ছে। মোদি সরকারের দাবি, এতে কোম্পানি ও কর্মী দুই পক্ষেরই লাভ হবে।

    হাতে পাওয়া বেতনের পরিমাণ কমবে, বাড়বে PF

    নতুন খসরা নিয়মে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, মোট বেতনের ৫০ শতাংশ বা তার বেশি হবে বেসিক বেতন। পিএফ-এ টাকার পরিমাণ বাড়ানো হবে। পিএফ এই বেসিক পে-র উপরেই নির্ভর করে। তবে এর ফলে টেক হোম বা হাতে পাওয়া টাকার পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে। গ্র্যাচুইটি ও পিএফ বৃদ্ধির ফলে কর্মীদের অবসরের পরের জীবন অনেক বেশই সুরক্ষিত হবে। স্যালারি স্ট্রাকচারকে এমন ভাবেই বদলানো হবে, যাতে কর্মীদের ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে কম মনে হয়। পিএফ ও গ্র্যাচুইটি বাড়ার ফলে কোম্পানিগুলিরও কস্ট টু কোম্পানি বাড়বে। কারণ, তাদেরকেও কর্মীদের জন্য সমপরিমাণ টাকা পিএফ ও গ্র্যাচুইটিতে জমা করতে হবে।

    ১২ ঘণ্টা কাজ ও ওভারটাইম

    নতুন খসরা বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, অফিসে কাজের সবচেয়ে বেশি সময় বাড়িয়ে ১২ ঘণ্টা করতে। এর পর ১৫ থেকে ৩০ মিনিট বেশি কাজ করলেই তাকে ওভারটাইম হিসেবে ধরা হবে। ১৫ মিনিটের বেশি কাজ মানেই তা আধ ঘণ্টার হিসেবে পড়বে। এখনকার নিয়মে ৩০ মিনিট বাড়তি কাজ করলেও তাকে ওভারটাইম ধরা হয় না। এছাড়াও খসরা বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, টানা কোনও কর্মীকে ৫ ঘণ্টার বেশি কাজ করানো যাবে না। প্রতি পাঁচ ঘণ্টা পর আধ ঘণ্টা করে বিশ্রামের সুযোগ দিতে হবে কর্মীদের।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published:

    লেটেস্ট খবর