ফুলশয্যার আগের রাতে স্বামীর ফেসবুকে এল স্ত্রীর যৌনতায় মত্ত নগ্ন ছবি!

ফুলশয্যার আগের রাতে স্বামীর ফেসবুকে এল স্ত্রীর যৌনতায় মত্ত নগ্ন ছবি!
ছবিটি প্রতীকী

সুমিত তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন৷ কী ঘটেছিল? বেঙ্গালুরুর সুব্রহ্মণ্যমনগরের বাসিন্দা সুমিত৷ সনিয়ার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়৷ সনিয়া চিকমাগালুরের বাসিন্দা৷ গত বছর জুন মাসেই তাঁদের এনগেজমেন্ট হয়৷ সনিয়া সরকারি চাকরিজীবী৷ সুমিত বেসরকারি৷

  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: সবে বিয়ে হয়েছিল সুমিত শর্মার (নাম পরিবর্তিত)৷ স্ত্রীকে নিয়ে নতুন জীবনের স্বপ্নে বুক বাঁধছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার কর্মী সুমিত৷ সবে দিন দুয়েক হল বিয়ে হয়েছে৷ পরের দিনই ছিল ফুলশয্যা৷ হঠাত্‍ সব স্বপ্ন সাফ৷ আঘাত এল ফোনে৷ মুহূর্তে সব কিছু বদলে গেল৷

সুমিত তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন৷ কী ঘটেছিল? বেঙ্গালুরুর সুব্রহ্মণ্যমনগরের বাসিন্দা সুমিত৷ সনিয়ার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়৷ সনিয়া চিকমাগালুরের বাসিন্দা৷ গত বছর জুন মাসেই তাঁদের এনগেজমেন্ট হয়৷ সনিয়া সরকারি চাকরিজীবী৷ সুমিত বেসরকারি৷

পুলিশকে সুমিত জানিয়েছেন, তিনি এনগেজমেন্টেই খরচ করেছেন ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা৷ বিয়েতে ৭ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা৷ ডিসেম্বরের ১৫ তারিখ তাঁদের ফুলশয্যা ছিল৷

ছবিটি প্রতীকী ছবিটি প্রতীকী

সুমিতের কথায়, '১৩ ডিসেম্বর রাতে আমি ফেসবুক মেসেঞ্জার ফটোগ্রাফ পাই স্ত্রীর৷ ছবিতে দেখি, এক অচেনা ব্যক্তির সঙ্গে নগ্ন হয়ে রয়েছে আমার স্ত্রী৷ ছবির সঙ্গে একটি মোবাইল নম্বরও ছিল৷ সেই ব্যক্তি নিজেকে রমেশ নামে পরিচয় দিয়েছে৷ পরে জানতে পারি, রমেশের সঙ্গে সনিয়ার ৭ বছরের বেশি সম্পর্ক৷'

সুমিত অভিযোগে জানিয়েছেন, রমেশ ও সনিয়া শারীরিক সম্পর্ক চালিয়ে গিয়েছে তাঁদের বিয়ের কিছুদিন আগেও৷ রমেশ ও সনিয়ার হোয়াটসঅ্যাপে সেক্সটিং-এর কিছু স্ক্রিনশটও আসে মোবাইলে৷ রমেশকে সনিয়া বলেছে, সনিয়া রমেশকেই ভালোবাসে৷ কিন্তু সনিয়ার পরিবার সুমিতকে পছন্দ করে৷

গোটা বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর থেকেই আত্মহত্যার হুমকি দিতে শুরু করে সনিয়া৷ সনিয়ার হুমকি, সুমিত ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার সুইসাইড নোট লিখে সে আত্মহত্যা করবে৷ সুব্রহ্মণ্যমনগর পুলিশ তদন্তে জানতে পেরেছে, মেয়ের সম্পর্কের কথা জানতেন মা-বাবা৷ তা লুকিয়েই সুমিতের সঙ্গে বিয়ে দেন৷

পুলিশের বক্তব্য, বিষয়টি অত্যন্ত জটিল৷ আমরা ভিডিও ও মেসেজের প্রমাণ সংগ্রহ করছি৷

First published: March 17, 2020, 5:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर