দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

মিলল ওয়্যারলেস, নাগরোটায় স্পষ্ট পাক যোগ! দূতাবাসের অফিসারকে তলব দিল্লির

মিলল ওয়্যারলেস, নাগরোটায় স্পষ্ট পাক যোগ! দূতাবাসের অফিসারকে তলব দিল্লির

জইশ ই মহম্মদ জঙ্গি গোষ্ঠীই ভারতে বড়সড় হামলা চালাতে এই চারজনকে পাঠিয়েছিল বলে তদন্তে উঠে এসেছে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কাশ্মীরের নাগরোটায় নিহত জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধার হল পাকিস্তানে তৈরি ওয়্যারলেস সেট এবং ওষুধ৷ যা থেকে জঙ্গিদের সঙ্গে পাকিস্তানের যোগাযোগ আরও স্পষ্ট হল৷ গত বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে নাগরোটার টোল প্লাজায় মৃত্যু হয় চার জঙ্গির৷

জানা গিয়েছে, নিহত জঙ্গিদের কাছ থেকে যে ওয়্যারলেস উদ্ধার হয়েছে, সেটি পাক সংস্থা মাইক্রো ইলেক্ট্রনিক্স-এর তৈরি৷ ওই ওয়্যারলেস সেট পরীক্ষা করে দেখে গোয়েন্দারা নিশ্চিত, জঙ্গিদের এবং পাকিস্তানে থাকা তাদের হ্যান্ডলারদের মধ্যে নিয়মিত তথ্যের আদানপ্রদান চলছিল৷ জঙ্গিরা কতদূর পৌঁছেছে, কী পরিস্থিতি, তা জানতে টেক্সট মেসেজও পাঠায় পাকিস্তানে থাকা হ্যান্ডলাররা৷

শুধু তাই নয়, ওই মেসেজ থেকে আরও স্পষ্ট, জঙ্গিদের জন্য সীমান্তের কাছাকাছি এলাকায় আগে থেকেই কোনও কয়েকজন তাদের জন্য অপেক্ষা করছিল৷ গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য একটি ট্রাকও অপেক্ষা করছিল৷ সম্ভবত সাম্বা সেক্টর দিয়েই জঙ্গিরা প্রবেশ করেছিল বললে অনুমান তদন্তকারীদের৷ তাঁদের আরও অনুমান, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের শাকারগড় থেকেই জঙ্গিদের নির্দেশ দিচ্ছিল তাদের হ্যান্ডলাররা৷

জঙ্গিদের জুতো এবং পরনে থাকা প্যান্টের ট্যাগ থেকেও তাদের সঙ্গে পাকিস্তানের যোগ স্পষ্ট হয়েছে৷ তাদের কাছে যে ওষুধের স্ট্রিপ পাওয়া গিয়েছে, সেগুলির গায়ে লাহোর এবং খাইবার পাখতুনখোয়ার ছাপ পাওয়া গিয়েছে৷

নাগরোটায় নিহত জঙ্গিদের সঙ্গে পাকিস্তানের যোগ স্পষ্ট হওয়ার পরেই দিল্লিতে পাক দূতাবাসের এক আধিকারিককে এ দিন ডেকে পাঠায় কেন্দ্রীয় সরকার৷ পাকিস্তানের মাটি থেকে জঙ্গি কার্যকলাপ রুখতে ইসলামাবাদ যাতে ব্যবস্থা নেই, এই মর্মে কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে পাক দূতাবাসের ওই আধিকারিককে৷ নিজেদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে ভারত যে কঠোর পদক্ষেপে পিছপা হবে না তাও পাকিস্তানের দূতকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে শীর্ষ সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে দাবি করেছে সংবাদসংস্থা এএনআই৷

২৬/১১-এর বর্ষপূর্তিতে ওই জঙ্গিদের ভারতে বড়সড় হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল বলে গোয়েন্দারা মনে করছেন৷ এই ঘটনার পরই স্বরাষ্ট্মন্ত্রী অমিত শাহ, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ জইশ ই মহম্মদ জঙ্গি গোষ্ঠীই ভারতে বড়সড় হামলা চালাতে এই চারজনকে পাঠিয়েছিল বলে তদন্তে উঠে এসেছে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 21, 2020, 3:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर