• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ‘‌পরিযায়ী শ্রমিকদের যন্ত্রণা সবাই শুনেছে, শুনতে পায়নি সরকার’‌:‌ সনিয়া গান্ধি

‘‌পরিযায়ী শ্রমিকদের যন্ত্রণা সবাই শুনেছে, শুনতে পায়নি সরকার’‌:‌ সনিয়া গান্ধি

কয়েকদিন আগেই শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং নেতৃত্বে বদল চেয়ে সনিয়া গান্ধিকে চিঠি লেখে ২৩ জন সিনিয়র কংগ্রেস নেতা৷ যা নিয়ে ঝড় ওঠে দলের অন্দরে৷ ইস্তফা দিতে চান সনিয়া গান্ধি৷ যদিও শেষ পর্যন্ত দলের বাকি অংশের অনুরোধে আপাতত কংগ্রেস সভানেত্রী হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে রাজি হন কংগ্রেস সভানেত্রী৷ File Image

কয়েকদিন আগেই শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং নেতৃত্বে বদল চেয়ে সনিয়া গান্ধিকে চিঠি লেখে ২৩ জন সিনিয়র কংগ্রেস নেতা৷ যা নিয়ে ঝড় ওঠে দলের অন্দরে৷ ইস্তফা দিতে চান সনিয়া গান্ধি৷ যদিও শেষ পর্যন্ত দলের বাকি অংশের অনুরোধে আপাতত কংগ্রেস সভানেত্রী হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে রাজি হন কংগ্রেস সভানেত্রী৷ File Image

কংগ্রেস আগেই জানিয়েছিল, গরিব, মধ্যবিত্ত মানুষের স্বর তুলে ধরতে ও সরকারের কানে পৌঁছে দিতেই এই স্পিক আপ প্রচার কর্মসূচি নিয়েছে ‌দল

  • Share this:

    #‌নয়াদিল্লি: ‘‌গোটা দেশ শুনেছে পরিযায়ী শ্রমিকদের যন্ত্রণার স্বর, শুধু সরকার শুনতে পায়নি।’‌ এমনই কথা বললেন কংগ্রেসের সভাপতি সনিয়া গান্ধী। একটি ভিডিও বার্তায় এদিন একথা বলেন কংগ্রেস নেত্রী। দলের ‘‌স্পিক আপ’‌ প্রচারের অংশ হিসাবে এদিন সনিয়া গান্ধি পরিযায়ী শ্রমিকদের অবস্থা নিয়ে একহাত নেন কেন্দ্রীয় সরকারকে।

    কংগ্রেস আগেই জানিয়েছিল, গরিব, মধ্যবিত্ত মানুষের স্বর তুলে ধরতে ও সরকারের কানে পৌঁছে দিতেই এই স্পিক আপ প্রচার কর্মসূচি নিয়েছে ‌দল। সেই প্রচারের অংশ হিসাবে এর আগে একাধিক ভিডিও বার্তা দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। বলেছেন সনিয়াও। এবারেও সেই একই ধরণের বার্তায় কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশানা করলেন তিনি। কংগ্রেস সভাপতির দাবি, সরকারের উচিত এখনও সাধারণ দরিদ্র মানুষের হাতে পরের ছ’‌মাসের আর্থিক সাহায্য হিসাবে ৭,৫০০ টাকা করে তুলে দিতে। আর এখনই মানুষের হাতে সাহায্য হিসাবে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার কথা তিনি বলেন। এছাড়া, পরিযায়ী শ্রমিকেরা যাতে নিরাপদে বাড়ি পৌঁছতে পারেন, সেই বিষয়েও কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশ্চয়তা দিতে বলেছেন সনিয়া।

    এর আগে রাহুল গান্ধী নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একটি ভিডিও আলোচনায় বসেছিলেন। সেখানে অভিজিতের কথাতেই রাহুল বারবার বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার অর্থনৈতিক পরিস্থিতির উন্নতির জন্য যেন দরিদ্র মানুষের হাতে নগদ টাকা দিয়ে সাহায্য করেন। এখন ঋণ দিয়ে পরিস্থিতির উন্নতি হবে না, সেকথাও বলেন রাহুল।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: