Home /News /national /
India-Bangladesh: দীর্ঘ ২৬ মাস পর, দু'দেশের মধ্যে গড়াবে যাত্রীবাহী ট্রেনের চাকা, আগামী ২৯ মে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রীবাহী ট্রেন

India-Bangladesh: দীর্ঘ ২৬ মাস পর, দু'দেশের মধ্যে গড়াবে যাত্রীবাহী ট্রেনের চাকা, আগামী ২৯ মে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রীবাহী ট্রেন

দীর্ঘ ২৬ মাস পর, দু'দেশের মধ্যে গড়াবে যাত্রীবাহী ট্রেনের চাকা, আগামী ২৯ মে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রীবাহী ট্রেন

দীর্ঘ ২৬ মাস পর, দু'দেশের মধ্যে গড়াবে যাত্রীবাহী ট্রেনের চাকা, আগামী ২৯ মে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশ যাত্রীবাহী ট্রেন

India-Bangladesh Train Service: চালু হচ্ছে মৈত্রী, বন্ধন ও মিতালি এক্সপ্রেস চলাচল। 

  • Share this:

আবীর ঘোষাল, কলকাতা: দীর্ঘ ২৬ মাস পর ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে আন্তর্দেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। ২৯ মে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন দুটির চলাচল শুরু হবে। আর ১ জুন চালু হবে মিতালি এক্সপ্রেস (India-Bangladesh Train Service)।

২০২০ সালে করোনার সংক্রমণ শুরু হলে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ট্রেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে যায়। এর মধ্যে রয়েছে কলকাতা স্টেশন থেকে গেদে-দর্শনা হয়ে ঢাকাগামী মৈত্রী এক্সপ্রেস। কলকাতা স্টেশন থেকে পেট্রাপোল বেনাপোল হয়ে খুলনাগামী বন্ধন এক্সপ্রেস ও নিউ জলপাউগুড়ি থেকে চ্যাংরাবান্ধা হয়ে ঢাকাগামী মিতালি এক্সপ্রেস। দু’দেশের রেল মন্ত্রকের আলোচনার ভিত্তিতে অবশেষে চালু হতে চলেছে মৈত্রী এক্সপ্রেস। ২৯ মে থেকে ফের চলবে এই ট্রেন।

আরও পড়ুন- জল ঢোকা আটকাতে এবার ‘কামান গোলা’ ব্যবহার KMRCL-এর

বাংলাদেশের মানুষের জন্য মৈত্রী এক্সপ্রেস অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ট্রেন। প্রতি বছর বাংলাদেশ থেকে ভারতে চিকিৎসা করাতে আসেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। তার মধ্যে অনেকের নানা শারীরিক জটিলতার কারণে বিমানে চড়ায় নিষেধাজ্ঞা থাকে। অনেকের বিমানের টিকিট কাটার সামর্থ্য থাকে না। আবার সড়কপথে বাসে কলকাতা আসার ধকল নিতে পারে না শরীর। এই পরিস্থিতিতে তাদের একমাত্র ভরসা দু’দেশের সংযোগ রক্ষাকারী ট্রেনগুলি। রেল মন্ত্রক সূত্রের খবর, একে একে চালু হয়ে যাবে বাকি ট্রেনগুলিও। তা ছাড়া আগামী কয়েক বছরে ভারত-বাংলাদেশের রেল যোগাযোগে যুগান্তর ঘটবে বলে মনে করছেন অনেকে।

আরও পড়ুন-রাতে দুধের সঙ্গে এক চামচ ঘি মিশিয়ে খেলেই কেল্লা ফতে!

বাংলাদেশে পদ্মা সেতু চালু হয়ে গেলে কলকাতা থেকে আড়াই ঘণ্টায় পৌঁছনো যাবে ঢাকায়। তা ছাড়া বনগাঁ লোকালকে পেট্রাপোল পর্যন্ত চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে পূর্ব রেল। সেক্ষেত্রেও সীমান্ত পার করে সরাসরি ট্রেনে উঠে পড়তে পারবেন ওপার থেকে আসা মানুষেরা। দীর্ঘ ২৬ মাস পর বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে আন্তদেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। ২৯ মে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন দুটির চলাচল শুরু হবে। আর ১ জুন চালু হবে মিতালি এক্সপ্রেস।

মৈত্রী এক্সপ্রেস ঢাকা-কলকাতার মধ্যে চলাচল করে। বন্ধন চলে খুলনা-কলকাতা পথে। আর মিতালী এক্সপ্রেস ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ির পথে চলবে। এ পথে ট্রেন চলাচলের সিদ্ধান্ত আগে নেওয়া হলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে চালু হতে পারেনি। রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গিয়েছে। দেশে করোনা সংক্রমণ দেখা দেওয়ার পর ২০২০ সালের ২৪ মার্চ থেকে সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এর আগে ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী আন্তর্দেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সংক্রমণ কমায় মাঝে দেশের ভেতরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও আন্তদেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধই থাকে।

ঢাকা-কলকাতার মধ্যে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করছে ২০০৮ সাল থেকে। বন্ধ হওয়ার আগে বৃহস্পতিবার বাদে সপ্তাহের সব দিনই এই ট্রেন চলাচল করত। ২৯ মে থেকে আগের মতোই চলাচল করবে। বন্ধন এক্সপ্রেস চালু হয় ২০১৭ সালে। বাংলাদেশ থেকে বৃহস্পতি ও রোববার দুদিন এই ট্রেন ছেড়ে যাবে। ভারত থেকে আসবে দু’দিন। মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেনের জন্য নতুন ভাড়ার হার ঠিক করেছে দুই দেশের রেলওয়ে। রেলওয়ে সূত্র জানায়, মিতালি এক্সপ্রেসে ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত এসি বার্থের ভাড়া হবে ৪ হাজার ৯০৫ টাকা। এসি সিটের ভাড়া ৩ হাজার ৮০৫ টাকা। আর এসি চেয়ারের ভাড়া ২ হাজার ৭০৫ টাকা।

মৈত্রী, বন্ধন, মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেনের আয় ভাগাভাগি করে নেবে বাংলাদেশ ও ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ। মৈত্রী এক্সপ্রেসের ৭৫ শতাংশ আয় পায় বাংলাদেশ, ২৫ শতাংশ যায় ভারতে। বন্ধন এক্সপ্রেসের আয় ৫০ শতাংশ করে দুই দেশের মধ্যে ভাগাভাগি হয়। আর মিতালি এক্সপ্রেস চালু হলে আয়ের ৮০ শতাংশ পাবে বাংলাদেশ। ২০ শতাংশ পাবে ভারতীয় রেলওয়ে। পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী জানিয়েছেন, কী ধরণের রেক চলাচল করবে তা শীঘ্রই জানিয়ে দেওয়া হবে। ফলে বুকিং শীঘ্রই শুরু হবে এই সব ট্রেনের।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: Bandhan Express, India-Bangladesh

পরবর্তী খবর