আমেরিকার সঙ্গে ঐতিহাসিক সামরিক চুক্তি ভারতের!‌ শক্তিশালী হচ্ছে ভারতীয় সেনা

আমেরিকার সঙ্গে ঐতিহাসিক সামরিক চুক্তি ভারতের!‌ শক্তিশালী হচ্ছে ভারতীয় সেনা

আমেরিকার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সপ্তাহখানেক আগে ভারতে এসে পৌঁছেছেন দুই মার্কিন প্রতিনিধি। এঁদের মধ্যে একজন বিদেশ সচিব, অন্যজন প্রতিরক্ষা সচিব।

আমেরিকার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সপ্তাহখানেক আগে ভারতে এসে পৌঁছেছেন দুই মার্কিন প্রতিনিধি। এঁদের মধ্যে একজন বিদেশ সচিব, অন্যজন প্রতিরক্ষা সচিব।

  • Share this:

    #‌নয়াদিল্লি:‌ দিল্লিতে এসে পৌঁছেছেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও ও প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক টি এসপার। তাঁদের সঙ্গে এদিন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের উপস্থিতিতে স্বাক্ষরিত হল একটি সামরিক চুক্তি। BECA নামে এই ঐতিহাসিক সামরিক চুক্তি নানা দিক থেকে ভারতীয় সেনার শক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে। দুই দেশের সেনার মধ্যে উচ্চ শক্তির সামরিক প্রযুক্তি, গোপন উপগ্রহ ফেরত তথ্য দেওয়া নেওয়া করার কথা বলা হয়েছে। এখানেও মাইক পম্পেও এনেছেন চিন প্রসঙ্গ। তিনি বলেছেন, ভারত ও আমেরিকা হাতে হাত ধরে সামরিক শক্তি বৃদ্ধির কাজ করছে যাতে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির মতো গণতন্ত্র বিরোধী শক্তি তার প্রভাব বিস্তার করতে না পারে। গতবছর বিভিন্ন সাইবার ক্ষেত্রে দু’‌দেশের মধ্যে চুক্তি হয়েছিল, দু’‌দেশের নৌসেনা সাগরে যৌথ মহড়া দিয়েছিল।’‌ ভারতের কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, ভারতীয় উপমহাদেশ এলাকার শান্তি রক্ষার বিষয়টি আলোচনার মূল্য উপজীব্য ছিল। দু’‌দেশের প্রতিনিধিরা সে নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন।

    আমেরিকার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সপ্তাহখানেক আগে ভারতে এসে পৌঁছেছেন দুই মার্কিন প্রতিনিধি। এঁদের মধ্যে একজন বিদেশ সচিব, অন্যজন প্রতিরক্ষা সচিব। তাঁরা ভারতে এই দুই মন্ত্রকের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীদের সঙ্গে আগে আলাদা বৈঠক করেন। জয়শঙ্কর সেখানেও জানান পম্পেও ভারতীয় উপমহাদেশ এলাকায় শান্তি বজায় রাখার কথা বারবার বলেছেন। বলেছেন, যাতে এই অঞ্চল নিরাপদ থাকে। এর আগে ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মাইক পম্পেও। তিনি সেখানেও ভারতের সার্বভৌমত্ত্ব রক্ষার বিষয়ে কথা বলেন। ভারতীয় উপমহাদেশে এই দুই দেশের স্ট্র‌্যাটেজি কী হবে, তা নিয়ে বিস্তারিত কথা হয় তাঁদের মধ্যে। কিন্তু ২+‌২ বৈঠক, অর্থাৎ দু’‌দেশেরই দু’জন করে প্রতিনিধির মধ্যে যে বৈঠক হয়েছে, সেখানে স্বাক্ষরিত হয়েছে B‌asic Exchange and Cooperation Agreement। অর্থাৎ বিশেষ একধরনের সামরিক উক্তি। কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, ‘আমরা BECA নিয়ে অত্যন্ত আনন্দিত। তথ্য দেওয়া নেওয়া করার বিষয়ে এটি নতুন একটি রাস্তা উন্মোচিত করে দেবে। আমেরিকার সঙ্গে আরও আলোচনার জন্য আমরা অপেক্ষা করছি। বৈঠকের পর মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও ট্যুইট করে জানিয়েছেন,‌ ‌২+‌২ বৈঠক অত্যন্ত ভাল হয়েছে। আমরা মনে করি, ভারত ও আমেরিকার শান্তি ও সার্বভৌমত্ত্ব বজায় রাখতে দুই দেশকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। এতে ভারতীয় উপমহাদেশে যেমন শান্তি থাকবে, তেমন পৃথিবীতেও শান্তি থাকবে।’‌

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: