করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পরেও ফের সংক্রমণের সম্ভাবনা প্রবল, কী পরামর্শ দিচ্ছে ICMR, জেনে নিন

করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পরেও ফের সংক্রমণের সম্ভাবনা প্রবল, কী পরামর্শ দিচ্ছে ICMR, জেনে নিন
করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পাঁচ মাসের মধ্যেই যদি অ্যান্টিবডি কমতে থাকে শরীরে, তা হলে পুনরায় এই ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে

করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পাঁচ মাসের মধ্যেই যদি অ্যান্টিবডি কমতে থাকে শরীরে, তা হলে পুনরায় এই ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে

  • Share this:

করোনা থেকে সদ্য সুস্থ হয়েছেন। ভাবছেন আপনি পুরোপুরি ফিট। দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়ে গিয়েছে, তাই করোনা আর আপনার নাগাল পাবে না। ভুল ভাবছেন। কারণ অ্যান্টিবডিরও একটি নির্দিষ্ট জীবদ্দশা রয়েছে। আর দেহে অ্যান্টিবডির পরিমাণ কমলেই জাঁকিয়ে বসবে করোনা। সম্প্রতি এ নিয়ে সতর্ক করল ICMR। এ বিষয়ে গতকাল ICMR-এর তরফে জানানো হয়েছে, করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পাঁচ মাসের মধ্যেই যদি অ্যান্টিবডি কমতে থাকে শরীরে, তা হলে পুনরায় এই ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই সুস্থ হয়ে উঠলেও মাস্ক পরার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে।

মানুষজনকে মাস্ক পরার আবেদন জানানোর পাশাপাশি ICMR-এর ডিরেক্টর জেনেরাল বলরাম ভার্গবের বার্তা- এ নিয়ে বিস্তর পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। কী ভাবে একজন নেগেটিভ হওয়ার পরও ফের পজিটিভ হয়ে পড়ছেন, সেই রিপোর্টগুলিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কারণ তথ্য বলছে মানবশরীরে তিন থেকে পাঁচ মাস পর্যন্ত বাঁচতে পারে অ্যান্টিবডিগুলি। এর মাঝে অনিয়মিত জীবনযাপনই সংক্রমণের কারণ হয়ে উঠছে। বলরাম ভার্গব আরও জানিয়েছেন, এটি একটি নতুন রোগ।

স্বভাবতই এই রোগ ও ভাইরাস সম্পর্কে তথ্যের পরিমাণও সীমিত। শরীরে এই ভাইরাসের আচরণ বুঝতেও অনেকটা সময় লাগে। এ ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে যদি সুস্থ হওয়ার পাঁচ মাসের মধ্যেই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির শরীরে অ্যান্টিবডির পরিমাণ কমে যায়, তা হলে তাঁর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


গত সপ্তাহে এক প্রেস বিবৃতিতে এ নিয়ে আলোচনা করেছিলেন ভার্গব। সেখানে তিনি ICMR-র প্রসঙ্গ তুলে বলেছিলেন, পুনরায় সংক্রমণের ক্ষেত্রে ন্যূনতম ১০০ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ। অর্থাৎ তিন মাসেরও বেশি সময় পর্যন্ত খুব সাবধানে থাকতে হবে করোনা থেকে সদ্যমুক্ত মানুষজনকে।

তাই সুস্থ হওয়ার পরও কয়েকমাস পর্যন্ত খুব সাবধানে থাকতে হবে। সমস্ত প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। হাত ধোওয়ার পাশাপাশি বাইরে বেরোলে মাস্ক পরাটাও আবশ্যক। সর্বোপরি ভিড় এড়িয়ে যেতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি সর্বদা মাথায় রাখতে হবে। মনে রাখবেন আপনার অসাবধানতাই ডেকে আনতে পারে বড় বিপদ!

Published by:Ananya Chakraborty
First published: