বিমান ভাড়া বেঁধে দেওয়ার সময়সীমা বৃদ্ধি

বিমান ভাড়া বেঁধে দেওয়ার সময়সীমা বৃদ্ধি
কোভিড অতিমারীর ধাক্কায় যে ভাবে বিমান শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা সামাল দিতেই এই বৃদ্ধি বলে ব্যাখ্যা দিয়েছে কেন্দ্র।

কোভিড অতিমারীর ধাক্কায় যে ভাবে বিমান শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা সামাল দিতেই এই বৃদ্ধি বলে ব্যাখ্যা দিয়েছে কেন্দ্র।

  • Share this:

#কলকাতা: বিমান ভাড়ার ঊর্ধ্বসীমা এবং নিম্নসীমা বেঁধে দেওয়ার সময়সীমা বাড়াল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক। নতুন এই সময়সীমা বাড়ল ৩১ মার্চ পর্যন্ত। তবে এই ভাড়া বেঁধে দেওয়ার সময়সীমা বৃদ্ধির পাশাপাশি বিমান পরিবহণ সংস্থাগুলিকে বাড়তি সুবিধে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। নতুন তালিকায় ভাড়ার ঊর্ধ্বসীমা এবং নিম্নসীমা প্রায় ৩০ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিল সরকার। যদিও বিশেষজ্ঞদের একাংশের উদ্বেগ, এখনও পর্যন্ত শিল্পপতিদের যাতায়াত বৃদ্ধি না পাওয়ায় বেশি দামের টিকিটের চাহিদা বাড়েনি। ফলে, বিমান সংস্থাগুলি এখনও সে ভাবে লাভের মুখ দেখে উঠতে পারেনি।

কোভিড অতিমারীর ধাক্কায় যে ভাবে বিমান শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তা সামাল দিতেই এই বৃদ্ধি বলে ব্যাখ্যা দিয়েছে কেন্দ্র। একইসঙ্গে, নতুন বিজ্ঞপ্তিতে এ-ও বলা হয়েছে, কোভিড-পূর্ব পরিস্থিতিতে যে সংখ্যক যাত্রী বহণ করা হত, তার ৭০ শতাংশ নিতে পারবে। তবে 'মার্কেট লিডার' ইন্ডিগোর ক্ষেত্রে এই সীমা বাড়িয়ে ৮০ শতাংশ করা হয়েছে। সম্প্রতি, কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানিয়েছিলেন, ডিসেম্বরের মধ্যে বিমান কোভিড-পূর্ব যাত্রী সংখ্যা ফেরত পাবে এবং মার্চের শেষের আগেই বিমান পরিষেবা স্বাভাবিক হয়ে উঠবে। যদিও বিশেষজ্ঞদের একাংশের উদ্বেগ, এখনও পর্যন্ত শিল্পপতিদের যাতায়াত বৃদ্ধি না পাওয়ায় বেশি দামের টিকিটের চাহিদা বাড়েনি। ফলে, বিমান সংস্থাগুলি এখনও সে ভাবে লাভের মুখ দেখে উঠতে পারেনি।


কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের এক কর্তার কথায়, "এখনও পর্যন্ত বিমান সংস্থাগুলি লাভের মুখ দেখেনি।  একইসঙ্গে, নতুন বিজ্ঞপ্তিতে এ-ও বলা হয়েছে, কোভিড-পূর্ব পরিস্থিতিতে যে সংখ্যক যাত্রী বহণ করা হত, তার ৭০ শতাংশ নিতে পারবে। তবে 'মার্কেট লিডার' ইন্ডিগোর ক্ষেত্রে এই সীমা বাড়িয়ে ৮০ শতাংশ করা হয়েছে।  অদূর ভবিষ্যতে দেখবে এমন সম্ভাবনাও নেই। সেই কারণে এই সীমা বাড়িয়ে বিমান সংস্থাগুলিকে সামান্য সুবিধে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।"

Published by:Pooja Basu
First published: